২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২ ভাদ্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২০ আগস্ট ২০১৯ 

BREAKING NEWS

ধীমান রায়, কাটোয়া: ভিতরে সিসিটিভি ক্যামেরায় নজরদারি, বাইরে সিভিক ভলান্টিয়ারদের পাহারা। নিরাপত্তার ফাঁক গলে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটল পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামের সতীপীঠ অট্টহাস মন্দিরে। মন্দিরের তালা ভেঙে দেবীর অলঙ্কার-সহ প্রায় সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকা সামগ্রী লুট করে পালাল দুষ্কৃতীরা। কেতুগ্রাম থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে মন্দির কমিটি।

[আরও পড়ুন: প্রেমিকার সঙ্গে কথা বলতে বলতেই আত্মঘাতী যুবক! চাঞ্চল্য বুনিয়াদপুরে]

সতীর ৫১ পীঠের অন্যতম পূর্ব বর্ধমানের কেতুগ্রামে অট্টহাস। পুরাণ মতে, অট্টহাসে দেবীর অধর বা নিম্ন ওষ্ঠ পড়েছিল। অট্টহাস মন্দিরে দেবী অধরেশ্বরী রূপে পূজিতা হন। কেতুগ্রামে দক্ষিণদিহি গ্রামে অট্টহাস মন্দিরে আসেন বহু ভক্ত। মন্দিরে সর্বক্ষণ পাহারায় থাকেন সিভিক ভলান্টিয়ার। সিসিটিভি ক্যামেরায় চলে নজরদারি। কিন্তু, তা সত্ত্বেও রাতে অন্ধকারে কীভাবে মন্দিরে চুরি হয়ে গেল? তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মন্দিরের সিসিটিভ ফুটেজ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন পূর্ব বর্ধমানের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(গ্রামীণ) সৈকত ঘোষ।

জানা গিয়েছে, কেতুগ্রামে অট্টহাস মন্দিরে থাকেন মহেন্দ্র শংকর গিরি নামে এক সেবাইত। সোমবার সকালে তিনি দিল্লি রওনা হয়ে গিয়েছেন। রাতে পুজো শেষ মন্দিরে তালা দিয়ে চলে যান পুরোহিত অমল ভট্টাচার্য। মঙ্গলবার সকালে যথারীতি মন্দিরে কাজ করতে আসেন গ্রামের এক মহিলা। তিনি প্রথম দেখেন, মন্দিরের তালা ভাঙা ও ভিতরে সব লণ্ডভণ্ড হয়ে পড়ে রয়েছে। পুরোহিতকে খবর পাঠান তিনি। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়। অট্টহাস মন্দির কমিটির কোষাধ্যক্ষ আশিস কুমার সিংহ জানিয়েছেন, দেবী প্রতিমার দুটি মুকুট, ৬টি সোনার হার, নথ-সহ প্রায় সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকার সামগ্রী খোয়া গিয়েছে। এর আগে ২০১৪ সালেও চুরির ঘটনা ঘটেছিল কেতুগ্রামের অট্টহাস মন্দিরে। সেবার প্রধান পুরোহিতকে মারধর করে বেঁধে রেখে দেবীর বিগ্রহ প্রতিমা চুরি করে পালিয়েছে দুষ্কৃতীরা।

ছবি: জয়ন্ত দাস

[আরও পড়ুন: বুকে রেখে মোবাইলে চার্জ, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে প্রাণ গেল যুবকের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং