BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মায়ের পচাগলা দেহ আগলে মেয়ে, রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া এবার শ্রীরামপুরে

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: August 2, 2020 9:40 pm|    Updated: August 2, 2020 9:40 pm

An Images

দিব্যন্দু মজুমদার, হুগলি: বাড়ি থেকে বৃদ্ধার পচাগলা দেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল হুগলির শ্রীরামপুরের (Srerampur) চাতরা বাজার এলাকায়। কয়েকদিন ধরেই ওই বাড়িটি থেকে দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন প্রতিবেশীরা। বিষয়টি জানতে পেরে থানায় খবর দেন পুর প্রশাসক সন্তোষকুমার সিং। রবিবার ঘর থেকে উদ্ধার হয় বৃদ্ধার পচাগলা দেহ।

জানা গিয়েছে, কদিন ধরেই শ্রীরামপুরের ওই বৃদ্ধার বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ পাচ্ছিলেন প্রতিবেশীরা। রবিবার দুপুরে বাড়ে গন্ধের তীব্রতা। অতিষ্ট হয়ে বিষয়টি শ্রীরামপুর পুরসভার পুর প্রশাসক সন্তোষ কুমার সিংকে জানান স্থানীয়ারা। তিনিই শ্রীরামপুর থানায় খবর দেন। এরপর অনেক ডাকাডাকি করে সাড়াশব্দ না পেয়ে স্থানীয়রাই শাবল দিয়ে দরজা ভেঙে ফেলে ওই বাড়ির। তখনই তাঁরা দেখতে পান ঘরের মধ্যে পড়ে বৃদ্ধার পচাগলা দেহ। পাশেই বসে রয়েছেন তাঁর বছর ৫৫-এর মেয়ে। ফ্যালফ্যাল চোখে মায়ের দেহের দিকে তাকিয়ে ছিলেন তিনি। এরপর শ্রীরামপুর থানার পুলিশ গিয়ে দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠায়।

[আরও পড়ুন: জমি বিবাদ মেটাতে সালিশি সভায় হামলা, সুন্দরবন এলাকায় বোমা-গুলিতে মৃত ১]

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, গত তিন-চার দিন বাড়ি থেকে বেরননি ওই বৃদ্ধা ও তাঁর মেয়ে। সকলে ভেবেছিলেন করোনার জন্যই ঘরবন্দি তাঁরা। তবে এমন কিছু ঘটতে পারে তা ঘুণাক্ষরেও আন্দাজ করেননি কেউ। জানা গিয়েছে, বৃদ্ধার মেয়ে সোনালী রায়ের বিয়ে হলেও স্বামীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা চলায় মায়ের কাছেই থাকেন তিনি। পুর প্রশাসক সন্তোষ সিং জানান, মৃতার মেয়েকে বারংবার প্রশ্ন করার পরও কোনও উত্তর মেলেনি। তবে ঘরের ভিতর ছাই ইতস্তত ছড়িয়ে ছিল। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে অনুমান, মৃতার মেয়ে মানসিক অবসাদগ্রস্ত। কিন্তু ঠিক কী হয়েছিল বৃদ্ধার? কেনই বা মায়ের দেহ আগলে বসেছিল মেয়ে? অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: সাউন্ড সিস্টেমের দোকানে দেদার বিকোচ্ছে ব়্যাপিড টেস্ট কিট! শোরগোল শিলিগুড়িতে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement