২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ১১ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

রথের দিন বাজ পড়ে রাজ্যজুড়ে মৃত অন্তত সাতজন, আহত অনেকে, শোকে কাতর পরিবার

Published by: Sulaya Singha |    Posted: July 1, 2022 8:03 pm|    Updated: July 1, 2022 8:07 pm

Seven fie of lightning in West Bengal on Rath Yatra | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ব্যুরো: রথের দিন রাজ্যজুড়ে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হল হল অন্তত সাতজনের। আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। কেউ দিঘার সমুদ্রে স্নান করতে গিয়ে প্রাণ হারালেন তো কারও মৃত্যু হল বাস ধরতে গিয়ে। শোকে কাতর পরিবার।

দিঘায় (Digha) বেড়াতে গিয়ে সমুদ্রে স্নান করার সময় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয় দুই পর্যটকের। মৃতরা হলেন শুগম পাল (২৪) ও শুভজিৎ পাল (২৫)। এঁরা উত্তর ২৪ পরগনার বাসিন্দা। শুক্রবার বিকেলের দিকে বন্ধু-বান্ধবদের সঙ্গে স্নান করতে নেমেছিলেন। ঠিক সেই সময়ই বাজ পড়ে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় দু’জনকে দিঘার এক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু সেখানেই চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

[আরও পড়ুন: ‘অমিত শাহ যদি কথা রাখতেন…’, গদি খুইয়ে আক্ষেপ উদ্ধবের]

দিঘার পাশাপাশি পুরুলিয়া (Purulia) জেলার ভিন্ন ভিন্ন থানা এলাকায় এদিন দুপুরে বজ্রাঘাতের ঘটনায় এক কিশোরী-সহ মোট ৪ জন মহিলার মৃত্যু হয়। ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ৩ মহিলা। দুপুরে বরাবাজার থানার টকরিয়া মোড়ে বাস ধরতে গিয়ে বজ্রাঘাতে মৃত্যু হয় একজনের। আহত হন দু’জন। মৃত মহিলার নাম মঙ্গলী মুর্মু (৬২) এবং আহত দুই মহিলার নাম ভারতী টুডু (৫২), সুন্দরী সরেন (৫৫)। আহত দু’জন বর্তমানে পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এঁদের সকলেরই বাড়ি বরাবাজার থানার কুটনি গ্রামে। অন্যদিকে আড়ষা থানার বলিয়া গ্রামে মাঠে চাষের কাজ করার সময় বজ্রাঘাতে (Thunder) মৃত্যু হয় চন্দনা মাহাতো (৫৫) নামে এক মহিলার। পাশাপাশি কোটশিলা থানার চাতরানি গ্রামে পুকুরে স্নান করে গিয়ে বজ্রাঘাতে প্রাণ হারান ইরা কুমার (৩৫)। ওই থানা এলাকারই মোহনপুর গ্রামে স্নান করে ফেরার সময় মৌসুমী মহাদানি নামে ১৪ বছর বয়সি এক কিশোরীর মৃত্যু হয়। অপরদিকে হুড়া থানার খৈরিপিহিড়া গ্রামে বজ্রাঘাতে আহত হন জ্যোৎস্না গরাই (৬০) নামে এক বৃদ্ধা। পুরুলিয়া সদর হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে তাঁকে।

এদিকে শালবনীর রথযাত্রার দিন দু’টি পৃথক এলাকায় বজ্রাঘাতে মৃত্যু হল দু’জনের। শালবনীর কর্ণগড় গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত বাহারকলাবেড়িয়া গ্রামে দশ বছরের বালক খাঁদু হাঁসদা গরু চরাতে মাঠে গিয়েছিল। স্থানীয় প্রাথমিক স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্র সে। মাঠে গরু চরানোর সময়ই সে বজ্রাঘাতে মারা যায়। পরে গ্রামবাসীরা জানতে পেরে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে। অন্যদিকে শালবনীরই কলসীভাঙা গ্রামে মৃত্যু হয়েছে গৃহবধূ আমেনা বিবির (৪০)। বজ্রপাত-সহ বৃষ্টির সময় তিনিও মাঠে ছিলেন। সেখানেই তাঁর মৃত্য হয়। বাজ পড়ে মৃত্যু হয়েছে দু’টি ছাগলেরও।

[আরও পড়ুন: গৃহশিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ, স্যরের বাড়িতে বিবস্ত্র অবস্থায় পাওয়া গেল নাবালিকা ছাত্রীকে!]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে