BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ৫ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

‘জামাই আদরে রাখা অসম্ভব’, কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে বিক্ষোভ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য শতাব্দীর

Published by: Sayani Sen |    Posted: June 6, 2020 5:18 pm|    Updated: June 6, 2020 5:20 pm

An Images

নন্দন দত্ত, বীরভূম: কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে ‘অব্যবস্থা’র অভিযোগ তুলে চলছে প্রতিবাদ, বিক্ষোভ। অভিযোগকে হাতিয়ার করে শাসকদলকে বারবার খোঁচা দিচ্ছে বিরোধীরা। তবে এই ইস্যুতে মুখ খুলে এবার বিতর্কে জড়ালেন বীরভূমের সাংসদ শতাব্দী রায়।

শনিবার সাঁইথিয়ায় একাধিক প্রশাসনিক বৈঠক করেন শতাব্দী রায়। সেই সময় পরিযায়ী শ্রমিকদের কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে বিক্ষোভ প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হয় তাঁকে। বীরভূমের তারকা সাংসদ শতাব্দী রায় বলেন,সবাইকে জামাই আদরে রাখা সম্ভব নয়। মাছ দিলে মাংস চাইছে। মাংস দিলে ডিম। এখন অস্থিরতার সময়। এলাকায় ফিরে সকলে বাড়ি ফিরতে চাইছেন। এটাই তো স্বাভাবিক। একজন এলে যে আদর যত্ন মিলবে হাজার জন এলে তো তা হবে না। তাই একটু মানিয়ে নিয়ে চলতে হবে”

[আরও পড়ুন: বঙ্গোপসাগরে তৈরি হচ্ছে নিম্নচাপ, বাংলায় আবার কি ধেয়ে আসবে ঘূর্ণিঝড়?]

সম্প্রতি রাজ্যে একের পর এক আসছে শ্রমিক স্পেশ্যাল ট্রেন। তার ফলে ভিনরাজ্য থেকে ফিরছেন বহু পরিযায়ী শ্রমিক। অন্যত্র থেকে আসার ফলে পরিযায়ী শ্রমিকদের মাধ্যমে করোনা সংক্রমণের সম্ভাবনা রয়েছে যথেষ্টই। তবে শুধু আশঙ্কাই নয়। ইতিমধ্যে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ফেরা পরিযায়ী শ্রমিকদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার খবরও মিলছে। তাই তাঁদের বাধ্যতামূলকভাবে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। সে কারণে একাধিক স্কুল, কলেজে কোয়ারেন্টাইন সেন্টারও তৈরি করেছে সরকার। দেওয়া হচ্ছে খাবারদাবারও। তবে পরিযায়ী শ্রমিকরা মাঝেমধ্যেই কোয়ারেন্টাইন সেন্টারে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন।

তাঁদের অভিযোগ, কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলির অবস্থা মোটেও ভাল নয়। সেখানে নেই আলো। নেই পর্যাপ্ত জলও। আবার কিছু কিছু কোয়ারেন্টাইন সেন্টার দুর্গন্ধে ভরা বলেও দাবি অনেকের। খাবারও ঠিকমতো পাওয়া যাচ্ছে না বলেও সুর চড়াচ্ছেন অনেকেই। পরিযায়ী শ্রমিকদের এই অভিযোগকেই হাতিয়ার করে ঘোলা জলে মাছ ধরতে নেমে পড়েছে বিরোধীরা। তাঁরাও বারবার কোয়ারেন্টাইন সেন্টারগুলিতে ‘অব্যবস্থা’র অভিযোগে সরব। এই পরিস্থিতিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে বেফাঁস মন্তব্য করে বিতর্কে জড়ালেন বীরভূমের তারকা সাংসদ শতাব্দী রায়। ‘এটাই ওদের দৃষ্টিভঙ্গি’, পালটা শতাব্দী রায়কে তোপ দেগেছেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। 

[আরও পড়ুন: আমফান কেড়েছে নদীবাঁধ, কোটালের আগে ফের প্লাবনের আশঙ্কায় কাঁটা সুন্দরবন]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement