BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

নেশার টাকায় টান, অপহরণের নাটক করে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টায় গ্রেপ্তার শিক্ষক

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: June 29, 2020 8:05 pm|    Updated: June 29, 2020 8:11 pm

An Images

ছবি: প্রতীকী

নন্দন দত্ত, সিউড়ি: নেশার টাকা জোগাড় করতে অপহরণের গল্প ফেঁদে পুলিশ হেফাজতে এক শিক্ষক-সহ তিন যুবক। বীরভূমের সিউড়িতে অপহরণের কাহিনি শুনিয়ে গত দু’দিন ধরে টাকা আদায়ের চেষ্টা করেও লাভ হয়নি। পুলিশের হাতে ধরা পড়ে এখন কারাবাসে শিক্ষক ও তাঁর দুই বন্ধু।

রাজনগরের প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষক সিউড়ি গরুইঝোড়া গ্রামের বাসিন্দা আমির খান। স্থানীয় সূত্রে খবর, গত ২৭ জুন মায়ের কাছে টাকা চেয়ে বিফল হন আমির। সেদিনই বাড়ি থেকে বের হন। পুলিশের দাবি, ২৮ জুন সকাল থেকে আমিরের ফোন থেকে তাঁর বাবার কাছে অপহরণের দাবি করে ফোন আসে। ৫ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। সরকারি আইনজীবী চন্দ্রনাথ গোস্বামী জানান, আমিরের মা সিউড়ি থানায় তাঁর ছেলেকে অপহরণের অভিযোগ দায়ের করেন। সিউড়ি থানার পুলিশ মোবাইলের টাওয়ার ধরে তসরকাটা জঙ্গলে তাদের হদিশ পায়।

[আরও পড়ুন: হেঁটে নদী পেরনোর সময়ে দুর্ঘটনা, শিলাবতীর চোরা স্রোতে তলিয়ে মৃত্যু ২ বৃদ্ধার]

এদিকে, অপহরণকারীরাও সেই জঙ্গলেই মুক্তিপণ নিয়ে আমিরের বাবাকে আসার কথা বলে। পেশায় অটোমোবাইল ব্যবসায়ী আমিরের বাবা সাদা পোশাকের পুলিশের সঙ্গে টাকার ব্যাগ নিয়ে জঙ্গলে যান। সেখানেই আমির খান ও তার দুই বন্ধু সুমন রায় ও পল্টু সাহা মুক্তিপণের টাকা নিতে এসে পুলিশের পাতা ফাঁদে ধরা পড়ে।

[আরও পড়ুন: করোনা আবহে বাড়ছে দুষ্কৃতীদের দৌরাত্ম্য, বাংলার শতাধিক স্টেশনে বসছে সিসি ক্যামেরা]

পুলিশ জানিয়েছে, নেশার কবলে পরে বেশ কিছু জায়গায় আমির ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। সেই টাকা শোধের জন্য তিন বন্ধুকে নিয়ে অপহরণের গল্প ফেঁদেছিল সে। যদিও এদিন আদালতে যাওয়ার পথে আমির খান দাবি তুলতে থাকেন, তাঁকে অপহরণ করা হয়েছিল। আবার তাঁকেই কেন পুলিশ গ্রেপ্তার করল, সেই প্রশ্নও তোলে। সোমবার ধৃত তিনজনকে আদালতে তোলা হলে তাদের তিনদিন পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেওয়া হয়।যদিওছেলের এই শাস্তিতে কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি পরিবার।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement