BREAKING NEWS

১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ৩ ডিসেম্বর ২০২০ 

Advertisement

রায়গঞ্জ থানায় মৃত বিজেপি কর্মীর দেহ ফের ময়নাতদন্তের নির্দেশ হাই কোর্টের, সুবিচারের আশায় পরিবার

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: October 21, 2020 9:28 pm|    Updated: October 21, 2020 9:28 pm

An Images

শংকরকুমার রায়, রায়গঞ্জ: পুলিশ হেফাজতে মৃত ইটাহারের বিজেপির কর্মী অনুপ রায়ের দেহ তৃতীয়বার ময়নাতদন্তের নির্দেশ দিল কলকাতা হাই কোর্ট। সেইসঙ্গে অনুপ খুনে অভিযুক্ত রায়গঞ্জ (Raiganj) থানার পুলিশ আধিকারিকদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে রিপোর্ট দ্রুত কোর্টে জমা দিতে রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিল আদালত। পাশাপাশি ঘটনার সময়ের সিসিটিভি সমস্ত ফুটেজ এক মাসের মধ্যে কোর্টে জমা দেওয়ার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

বুধবার সন্ধেয় রায়গঞ্জের বিজেপি কার্যালয় থেকে জেলা সভাপতি বিশ্বজিৎ লাহিড়ী বলেন, “ইটাহারের বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে রায়গঞ্জ থানায় অনুপ রায়কে বেধড়ক পিটিয়ে, গুলি করে খুন করা হয়। কিন্তু অভিযুক্ত পুলিশদের কোনও শাস্তি হয়নি এখনও। ছেলের মৃত্যুর তদন্তের সুবিচারের আশায় কলকাতা হাই কোর্টে আবেদন করেছিলেন ওই যুবকের মা। শুনানির পর কলকাতা হাই কোর্ট ফের ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেয়। অনুপের মা এইমস (AIMS) হাসপাতালে তৃতীয়বারের জন্য অনুপের দেহের ময়নাতদন্তের দাবি জানিয়েছিলেন। হাই কোর্ট আরজিকর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত করার নির্দেশ দেন।”

[আরও পড়ুন: সব প্রতিকূলতা পেরিয়ে NEET’তে দারুণ ফল, দরিদ্র পরিবারের রুনা খাতুনের জন্য গর্বিত গ্রাম]

আদালত রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দিয়েছে যে সমস্ত পুলিশ অন্যায় করেছে, তাদের বিরুদ্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেওয়ার। কী জন্য এবং কী ব্যবস্থা নেওয়া হল তা নির্দিষ্ট সময়ে কোর্টকে জানাতে হবে। আদালতের উপর আস্থা রেখে এদিন বিজেপি জেলা সভাপতি বলেন,” অনুপের মৃত্যুর ন্যায়বিচার পাব। হাই কোর্টের কাছ থেকে সেই বিশ্বাস আছে।” উল্লেখ্য, ২ সেপ্টেম্বর ইটাহারের নন্দনগ্রামের বাড়ি থেকে বিনা নোটিসে রায়গঞ্জ থানায় তুলে নিয়ে গিয়ে অনুপ রায়কে পিটিয়ে খুন করা হয় বলে অভিযোগ ওঠে। তারপর ওই রাতেই রায়গঞ্জ মেডিক্যাল হাসপাতালের মর্গে ময়নাতদন্ত হয়। কিন্তু পরে রায়গঞ্জ জেলা আদালতের নির্দেশে ফের ৪ সেপ্টেম্বর ময়নাতদন্ত করা হয়। কিন্তু সেই ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পরিবারকে এখনও দেওয়া হয়নি। তারপর অনুপের দেহ স্থানীয় নন্দনগ্রামের বাড়ির পাশেই কবর দেওয়া হয়েছিল।

[আরও পড়ুন: করোনার বিরুদ্ধে অভিনব লড়াই, গান গেয়ে শহরবাসীকে সচেতন করছেন এই টোটো চালক]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement