৪ কার্তিক  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২২ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

শ্রীকান্ত পাত্র, ঘাটাল: ক্ষমতায় আসার আগে একগুচ্ছ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু গত পাঁচ বছরে কোনও কথাই রাখেনি তারা। উলটে মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরির চেষ্টা করেছে। আর তাই ধর্মের রাজনীতি নয়, উন্নয়ন দেখে ভোট দিন। ঘাটালে রোড শোয়ে গিয়ে ফের কাজের নিরিখেই জনগণকে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানালেন সুপারস্টার তথা তৃণমূল প্রার্থী দেব।

রবিবার নিজের নির্বাচনী কেন্দ্র ঘাটালে দেবের প্রচারে ছিল উপচে পড়া জনতার ভিড়। সাংসদ হিসেবে গত পাঁচ বছরে মানুষের অনেকটাই কাছে পৌঁছে যাওয়ার চেষ্টা করেছেন তিনি। তাই তাঁর উপস্থিতিতে যে চওড়া হাসি ফোটে এই গ্রামবাসীদের মুখে, এদিনের ছবিও সেকথাই ফের প্রমাণ করে দিল। তবে নিজের সুপারস্টার তকমাকে কাজে লাগিয়ে নয়, উন্নয়নের নিরিখেই তৃণমূল কংগ্রেসকে ভোট দিতে বললেন দেব।

[আরও পড়ুন: রোগীকে রাস্তায় বের করে দিলেন হাসপাতালের কর্মীরা, উত্তেজনা বনগাঁয়]

এদিন সকাল দশটায় দাসপুরের খাঞ্জাপুর গ্রামে কর্মিসভার পর কামালপুর হাটতলা থেকে শুরু হয় তৃণমূল প্রার্থী দীপক অধিকারীর রোড শো। দাসপুরের ২ নম্বর ব্লকের বিভিন্ন গ্রামে ম্যাটাডরে চেপে ঘোরেন তিনি। কিন্তু শুধুই দূর থেকে ভোট প্রচার নয়, আটচালা বাড়িতে ঢুকে গ্রামবাসীদের সঙ্গে কথাও বলেন তিনি। এরপর গাসপুরের একটি হাইস্কুলের মাঠে জনসভা করেন। দেবকে দেখতে ভিড় জমিয়েছিলেন হাজার হাজার মানুষ। প্রিয় অভিনেতার সঙ্গে সেলফি তোলার হিড়িকও পড়ে যায়। ভক্তদের সে আবদারও মেটান তিনি। দেব বলেন, “বিজেপি মানুষের মধ্যে বিভাজন তৈরি করেছে। কিন্তু আমি হিন্দুও নই, মুসলমানও নই, আমি একজন ভারতীয়। এটাই আমার পরিচয়।” এভাবেই গ্রামবাসীদের ঐক্যের পাঠ দেন তৃণমূল প্রার্থী। সঙ্গে জুড়ে দেন, “আমাদের রাজ্যে দিদির (মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়) মতো মুখ্যমন্ত্রী আছেন বলেই আমরা শান্তিতে আছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাত ধরেই উন্নয়নের মুখ দেখেছে এ রাজ্য। তাই উন্নয়নের নিরিখেই তৃণমূলকে ভোট দিন।”

Dev

রোড শোয়ের ফাঁকে এদিন দলীয় কর্মীর বাড়িতেই খাওয়া-দাওয়া সারেন দেব। কৈজুরি, ব্যানাই, গোপিগঞ্জ বাজারে ঘোরে তাঁর ম্যাটাডর। তেঁতুলতলাতেও পথসভা করেন তিনি। সোনাখালি বাজারে শেষ হয় রোড শো। রবিবাসরীয় প্রচারে গ্রামবাসীদের থেকে বিপুল সাড়া পেয়ে আপ্লুত দেব।

[আরও পড়ুন: রাজনৈতিক দলে ভরসা নেই, গোর্খাল্যান্ড ইস্যুতে দাজির্লিয়ে একঝাঁক নির্দল প্রার্থী]

ছবি: সুকান্ত চক্রবর্তী

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং