১২ আষাঢ়  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৭ জুন ২০১৯ 

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

বিক্রম রায়, কোচবিহার: উত্তরবঙ্গ হোক কিংবা দক্ষিণবঙ্গ, লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পর থেকে রাজ্যে অশান্তি বিরাম নেই। রাজনৈতিক হামলার ঘটনায় ফের উত্তপ্ত কোচবিহারের তুফানগঞ্জ। ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর আহত দু’জন তৃণমূল কর্মী।

[আরও পড়ুন: অব্যাহত ভোট পরবর্তী হিংসা, জয়ী আসনেই তৃণমূলের আক্রমণের মুখে বিজেপি]

এবার লোকসভা ভোটে উত্তরবঙ্গে সাফ হয়ে গিয়েছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। সবক’টি আসনেই জিতেছেন বিজেপি প্রার্থীরা। ব্যতিক্রম নয় কোচবিহারও। দল থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন একদা তৃণমূল কংগ্রেসের যুবনেতা নিশীথ প্রামাণিক। কোচবিহারের নতুন সাংসদ নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। অভিযোগ, ভোটে জেতার পর থেকে জেলার বিভিন্ন জায়গায় নিজেদের দাপট দেখানোর চেষ্টা করছেন বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, রবিবার সকালে তুফানগঞ্জের দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের কৃষ্ণপুরে এক তৃণমূল কর্মীর বাড়িতে চড়াও হন কয়েকজন বিজেপি কর্মী। তখন তিনি বাড়িতে ছিলেন না। ওই তৃণমূল কর্মীকে না পেয়ে তাঁর ভাই ও দাদাকে বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। এমনকী, তাঁদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। ঘটনার পর আক্রান্তদের উদ্ধার করে তুফানগঞ্জ মহকুমা হাসপাতালে ভরতি করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। যদিও তৃণমূল নেতার বাড়িতে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি স্থানীয় নেতৃত্ব।

বস্তুত, ভোট ফল ঘোষণার আগে থেকেই রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত তুফানগঞ্জ। ভোট বেরনোর ঠিক আগে গভীর রাতে এলাকায় বিজেপির একটি কার্যালয়ে হামলা চালায় দুষ্কৃতীরা। চলে ভাঙচুর। ঘটনার প্রতিবাদে তুফানগঞ্জে রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মীরা। এমনকী, পুলিশের সঙ্গেও বচসা জড়িয়ে পড়েন বিক্ষোভকারীরা। শেষপর্যন্ত অবশ্য পুলিশের আশ্বাসেই অবরোধ তুলে নেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: বিজেপিকে ভোট দেওয়ায় গ্রামে ঢুকে ‘দাদাগিরি’, তৃণমূল নেতাদের পালটা গণধোলাই

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং