Advertisement
Advertisement
Train Service Disrupted

ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু ষাঁড়ের, সকাল থেকে ব্যাহত বনগাঁ-শিয়ালদহ শাখার রেল পরিষেবা, নাকাল যাত্রীরা

সকাল থেকে পরপর স্টেশনে দাঁড়িয়ে একাধিক ট্রেন।

Trains service disrupted in Bongaon-Sealdah line after an accident near Habra station

ফাইল ছবি

Published by: Sucheta Sengupta
  • Posted:April 11, 2022 10:31 am
  • Updated:April 11, 2022 10:58 am

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সপ্তাহের প্রথম কাজের দিনেই রেল পরিবেষা ব্যাহত বনগাঁ-শিয়ালদহ (Bongaon-Sealdah) শাখায়। দুর্ঘটনার জেরে সকাল সাতটার কিছুক্ষণ পর থেকেই এই শাখায় ট্রেন চলাচল ব্যাপক ব্যাহত। ট্রেনের ধাক্কায় রেললাইনের উপর একটি ষাঁড়ের মৃত্যু হওয়াতেও এই সমস্যা বলে জানা গিয়েছে। পরপর স্টেশনে দীর্ঘক্ষণ দাঁড়িয়ে ট্রেন। যার জেরে যাত্রীদের দুর্ভোগ চরমে। বেশ কয়েকঘণ্টা কেটে গেলেও রেল পরিষেবা স্বাভাবিক হয়নি বলেই খবর।

ঘড়িতে সময় সকাল প্রায় সওয়া সাতটা। ডাউন বনগাঁ-মাঝেরহাট লোকাল হাবড়ার সংহতি (Sanhati) স্টেশনের কাছে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে। জানা গিয়েছে, সেসময় রেললাইন পেরচ্ছিল একটি ষাঁড়। ট্রেনটি দ্রুতগতিতে থাকায় ষাঁড়টিকে ধাক্কা মারে। ট্রেনের সামনের চাকা শরীরে জড়িয়ে রেললাইনের উপরই মৃত্যু হয় ষাঁড়টির। এরপরই ট্রেনটিতে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। যার জেরে ট্রেনটি কিছুদূর এগিয়েই থেমে যায়। 

Advertisement

[আরও পড়ুন: প্রয়াত বলিউডের বিশিষ্ট অভিনেতা শিব সুব্রহ্মণ্যম]

যাত্রীরা জানাচ্ছেন, সেই সকাল ৭টা ১৫ থেকেই এই লাইনে ট্রেন চলাচল ব্যাহত। দত্তপুকুরের কাছে এসে কোনও ট্রেন আর এগোতে পারছে না। দুর্ঘটনাগ্রস্ত ট্রেনটিকে ট্র্যাক থেকে সরানো না হলে অন্যান্য ট্রেন যাতায়াত করা সম্ভব নয়।  বিষয়টি খতিয়ে দেখছেন  রেলের ইঞ্জিনিয়াররা। ঠিক কী যান্ত্রিক ত্রুটি হয়েছে, তা বোঝার চেষ্টা চলছে। এই সমস্যা সমাধান কতক্ষণ সময় লাগবে, সে বিষয়ে এখনও অন্ধকারে তাঁরা। ফলে যাত্রী দুর্ভোগ এখনই মিটছে না, এমনই মনে করছেন ভুক্তভোগীরা। 

Advertisement

[আরও পড়ুন: ফের বিতর্কে বিশ্বভারতী, জাতি বৈষম্যমূলক মন্তব্য করে ছাত্রকে অপমান, গ্রেপ্তার অধ্যাপক]

এ বিষয়ে শিয়ালদহের ডিআরএম এসপি সিং জানিয়েছেন, ওই দুর্ঘটনার ফলে ট্রেনটির ব্রেকের এয়ারপাইপ লিক করেছে। ফলে ব্রেক কাজ করছে না। তা মেরামতির কাজ চলছে। রেল বোর্ডের তরফে আগে জানানো হয়েছিল, রেললাইনে আশেপাশে ফেন্সিং লাগানো হবে, যাতে আচমকা কোনও প্রাণী রেলট্র্যাকে চলে আসতে না পারে।  তাহলে কেন সংহতি স্টেশনের কাছে এমন দুর্ঘটনা ঘটল? এ নিয়ে এসপি সিং জানান, যেসব রেলপথে ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটারের বেশি গতি নিয়ে ট্রেন চলাচল করে, সেসব ট্র্যাক ফেন্সিংয়ে ঘেরা হবে। লোকাল জায়গায় এমন ফেন্সিং সম্ভব নয়। 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ