৩১ শ্রাবণ  ১৪২৬  শনিবার ১৭ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সৌরভ মাজি, বর্ধমান: তরুণীকে নিয়মিত রাস্তাঘাটে অনুসরণ করত এক যুবক। তারপর মোবাইলেও উত্যক্ত করতে শুরু করে। মাঝরাতে তরুণীকে ফোন করত সে। বারবার নিষেধ করলেও শোনেনি। এরপর ওই তরুণী ফোন ধরা বন্ধ করে দেওয়ায় তাঁকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে দেখে নেওয়ার হুমকি দিতে থাকে ওই যুবক। পুলিশের পোশাক পরা ছবিও হোয়াটসঅ্যাপে পাঠিয়ে আইনি পথে দেখে নেওয়ার হুমকি দেয় সে। শেষ পর্যন্ত তরুণীর বন্ধু ও পরিচিতরা ফাঁদ পেতে ওই যুবককে ধরে। গণপিটুনি দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয় তাকে। বর্ধমান মহিলা থানার পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে।

[ আরও পড়ুন: বেআইনি অস্ত্র মজুতের অভিযোগ, পুলিশের জালে ২ বিজেপি নেতা ]

পুলিশ জানিয়েছে, ধৃতের নাম সুদীপ দাস। বাড়ি বর্ধমান শহরের কালাগেট জামতলা এলাকায়। তার বিরুদ্ধে প্রতারণা ও শ্লীলতাহানির ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। শনিবার ধৃতকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। ভারপ্রাপ্ত সিজেএম কল্লোল ঘোষ ধৃতের জামিন মঞ্জুর করেছেন। ধৃতের পরিবারের সদস্যদের দাবি, মানসিকভাবে সুস্থ নয় সুদীপ। তার চিকিৎসাও চলছে। সেই সংক্রান্ত নথিপত্রও তাঁরা দেখিয়েছেন। পাশাপাশি, ওই তরুণীর এক বোনও গুরুতর অসুস্থ। ধৃতের পরিবারের লোকজনের আরও দাবি, মানসিকভাবে সুস্থ না হওয়ার ফলেও এমন কিছু করে ফেলেছে সে। তবে এর পিছনে অন্য কারণ রয়েছে কিনা বা তাকে ফাঁসানো হয়েছে কিনা সেটাও খতিয়ে দেখার দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

বর্ধমান শহরের বিধানপল্লী এলাকায় বাড়ি ওই তরুণীর। তিনি পুলিশে অভিযোগ জানিয়েছেন, গত এক সপ্তাহ ধরে নানাভাবে তাঁকে উত্যক্ত করছে ওই যুবক। মোবাইলেও উত্যক্ত করছিল। নিষেধ করলেও শুনছিল না। উলটে নিজেকে পুলিশ পরিচয় দিয়ে দেখে নেওয়ার হুমকি দিত তাঁকে। শুক্রবার রাতে তাঁকে ফোন করে ডাকা হয় বাদামতলায় একটি শপিং মলের সামনে। তারপরই তাকে গণধোলাই দেওয়া হয়। এমনকী ওই যুবক মদ্যপ ছিল বলেও অভিযোগ। তারপর তাকে মহিলা থানার পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

[ আরও পড়ুন: পরকীয়ার কাঁটা সরাতেই স্বামীকে খুন, পুলিশের উপস্থিতিতে ঘটনার পুনর্নির্মাণ ধৃত স্ত্রীর ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং