BREAKING NEWS

২৩ শ্রাবণ  ১৪২৭  শনিবার ৮ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

সুশান্তের পরিবার চাইলেই সিবিআই তদন্ত হবে, বার্তা বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: August 2, 2020 12:45 pm|    Updated: August 2, 2020 12:45 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সুশান্ত ইস্যু নিয়ে রাজনৈতিক চাপানউতোর তুঙ্গে। এর মাঝেই বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারের (Nitish Kumar) বার্তা, “প্রয়াত অভিনেতার পরিবার চাইলেই তদন্ত করবে সিবিআই।” অন্যদিকে, শনিবারই মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন যে, “সুশান্তের মৃত্যুটাকে রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করবেন না দয়া করে!” অতঃপর বিনোদন ইন্ডাস্ট্রির পর যে সুশান্ত সিং রাজপুতের (Sushant Singh Rajput) মৃত্যু রাজনৈতিক স্তরেও বেশ চাপানউতোরের সৃষ্টি করছে তা বোধহয় আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না।

শনিবারই এক টেলিভিশন চ্যানেলে নীতীশ কুমার সংশ্লিষ্ট বিষয়ে মুখ খুলেছিলেন। তাঁর কথায়, “সুশান্তের বাবা কৃষ্ণ কুমার সিং যিনি পাটনার রাজীব নগর থানায় এফআইআর দায়ের করেছেন, তিনি যদি নিজে সিবিআই তদন্তের দাবি জানান, তাহলে এই বিষয়ে আলাদা করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের সঙ্গে কথা বলবে বিহার সরকার।” পাশাপাশি তিনি এও জানান যে, সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত করা বিহার পুলিশের দায়িত্ব, আর সেটা করাও হচ্ছে।

এপ্রসঙ্গে উল্লেখ্য, সুশান্তের বাবা কেকে সিংয়ের দায়ের করা অভিযোগের ভিত্তিতেই বিহার পুলিশের ৪জনের একটি টিম ইতিমধ্যেই মুম্বইতে নিজেদের মতো করে তদন্ত শুরু করে দিয়েছে। সুশান্তের প্রাক্তন প্রেমিকা অঙ্কিতা লোখাণ্ডের তরফেও সাহায্য পাচ্ছেন তাঁরা। তবে এর মাঝেই অভিযোগ উঠতে শুরু করে যে, মুম্বই পুলিশ নাকি বিহার পুলিশের তদন্ত প্রক্রিয়ায় বাঁধার সৃষ্টি করছে! এমনকী কোনওরকম সহযোগিতাই করছে না। যদিও এই অভিযোগ নস্যাৎ করে দিয়েছে বিহার পুলিশ।

[আরও পড়ুন: রিয়া চক্রবর্তীর জন্য বাঙালি মহিলাদের কেন কদর্য আক্রমণ? প্রতিবাদে সরব নুসরত]

এদিকে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরের (Uddhav Thackeray) বিরুদ্ধে দোষীদের আড়াল করার বিস্ফোরক অভিযোগ এনেছেন বিহারের উপমুখ্যমন্ত্রী সুশীল মোদি (Sushil Modi)। তাঁর দাবি, “বলিউড মাফিয়ারা উদ্ধব ঠাকরকে চাপ দিচ্ছে। এরা আসলে কংগ্রেসের সঙ্গে যুক্ত। আর তাই সুশান্তের মৃত্যুর জন্য দায়ী প্রকৃত দোষীদের বাঁচাতে চাইছেন উদ্ধব।” অন্যদিকে, সুশান্ত মৃত্যুতে সিবিআই তদন্তের দাবি তুলে সরব হয়েছিলেন মনোজ তিওয়ারি, রূপা গঙ্গোপাধ্যায়, স্বামী সুব্রহ্মন্যম-সহ গেরুয়া শিবিরের একাধিক নেতামন্ত্রীরা। সবমিলিয়ে অভিনেতার মৃত্যু যে রাজনৈতিক ময়দানেও একটা ‘হুমকিবাণ’ হয়ে দাঁড়িয়েছে, তা বোধহয় আর চোখে আঙুল দিয়ে দেখানোর প্রয়োজন পড়ে না!

প্রথমত, বিহারের নির্বাচন আসন্ন। সমীক্ষা বলছে, নীতীশের জনপ্রিয়তা তুলনামূলক কমেছে। যাকে নড়বড়ে গদির ইঙ্গিত বললেও অত্যুক্তি করা হয় না! দ্বিতীয়ত, সুশান্তের মৃত্যু নিয়ে মহারাষ্ট্র বনাম বিহার কাজিয়া। সেই সুবাদে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন যে, ঘরের ছেলে সুশান্ত সিং রাজপুতকে নিয়ে যেহেতু বিহারবাসীর একটা আলাদা আবেগ রয়েছে, সেই কথা মাথায় রেখেই কি কখনও বিহার পুলিশের তৎপরতা আবার কখনও নীতিশ কুমারের গলায় সিবিআই তদন্তের জন্য দরজা খোলা রাখার বার্তা? ভূমিপুত্রের আকস্মিক মৃত্যুকেই কি নির্বাচনের জন্য হাতিয়ার করে তুলছে নীতীশ কুমার সরকার?

[আরও পড়ুন: ভারতীয় সেনা নিয়ে ইচ্ছেমতো সিনেমা বানানো যাবে না, লাগবে প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের বিশেষ অনুমতি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement