২২ আষাঢ়  ১৪২৭  মঙ্গলবার ৭ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

শরীরে করোনা উপসর্গ দেখেও মুখ ফেরায় হাসপাতাল, চিকিৎসার গাফিলতিতেই মৃত্যু প্রযোজকের!

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: June 6, 2020 3:26 pm|    Updated: June 6, 2020 3:28 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। ফিরিয়ে দিয়েছিল হাসপাতাল। শারীরিক অবস্থার করুণ পরিস্থিতি হওয়া সত্ত্বেও মুম্বইয়ের ২ দুটো খ্যাতনামা হাসপাতালের দুয়ার থেকে ফিরতে আসতে হয়েছে বলিউড প্রযোজকের পরিবারকে। অবশেষে মৃত্যু হল তাঁর।

বলিউডের সেই বর্ষীয়ান করোনা আক্রান্ত প্রযোজকের নাম অনিল সুরি। বয়স হয়েছিল ৭৭। ধর্মেন্দ্র, কমল হাসানের মতো অভিনেতার ছবি প্রযোজনা করলেও দীর্ঘ দিন ধরেই প্রচারের আলো থেকে দূরে ছিলেন তিনি। স্বাভাবিকবশতই, কালের নিয়মে গ্ল্যামার ইন্ডাস্ট্রির কেউই তাঁর বিশেষ খোঁজখবর করতেন না। তবে মৃত্যুর পরই ফের খবরের শিরোনামে আসেন অনিল সুরি। বলিউডের একসময়কার এই খ্যাতনামা প্রযোজকের ভাই বিস্ফোরক অভিযোগ তুলেছেন মুম্বইয়ের দুই হাসপাতালের বিরুদ্ধে। অনিলের শারীরিক পরিস্থিতি দেখেও নাকি তারা ভরতি নিতে চাননি তাঁকে। সোজাসুজি মুখের ওপর বলা হয়েছিল, ‘বেড নেই হাসপাতালে।’

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার মৃত্যু হয় অনিল সুরির। তবে শুক্রবার ওশিওয়ারার শ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হওয়ার পরই তাঁর ভাই রাজীব সুরি এই প্রসঙ্গে মুখ খোলেন। যিনি কিনা সদ্য প্রয়াত বাসু চট্টোপাধ্যায়ের একাধিক ছবির প্রযোজনা করেছিলেন।

[আরও পড়ুন: সোনু সুদের নাম করে প্রতারণার ফাঁদ! পরিযায়ী শ্রমিকদের সতর্ক করলেন অভিনেতা]

রাজীব সুরি জানিয়েছেন, দাদা অনিল ২ জুন থেকে জ্বরে ভুগছিলেন। পরদিনই তাঁর শারীরিক অবস্থার ভয়াবহ অবনতি হয়। শুরু হয়ে ব্যাপক শ্বাসকষ্ট। তাঁর মূল অভিযোগ, দাদাকে নিয়ে লীলাবতী এবং হিন্দুজার মতো নামকরা হাসপাতালে নিয়ে গেলেও শেষরক্ষা হয়নি। সংশ্লিষ্ট ২ হাসপাতালের স্বাস্থ্যকর্মীরা ভরতি নিতে অস্বীকার করেন অনিলকে। বেড না থাকার অজুহাতে দু’টি হাসপাতাল থেকেই ফিরিয়ে দেওয়া হয় তাঁদের।

পাশাপাশি রাজীব এও জানান যে, মঙ্গলবার সারাদিন এদিক ওদিক করে শেষ পর্যন্ত বুধবার শত চেষ্টার পরে মুম্বইয়ের একটি অ্যাডভান্সড মাল্টিস্পেশ্যালিটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছিল অনিল সুরিকে। তবে পরের দিনই অর্থাৎ বৃহস্পতিবার হাসপাতাল থেকে হঠাৎ জানানো হয় যে অনিলের অবস্থা আরও সংকটজনক হওয়ায় তাঁকে ভেন্টিলেটরে রাখা হয়েছে। তার ঘণ্টা খানেকের মধ্যেই খবর আসে যে সন্ধে ৭টায় অনিল সুরি গত হয়েছেন।

প্রসঙ্গত, প্রিয় পরিচালক বাসু চট্টোপাধ্যায় এবং দাদা অনিল সুরিকে একই দিনে হারিয়ে স্বাভাবিকবশতই শোকে মূহ্যমান রাজীব সুরি।

[আরও পড়ুন: ‘পাতাল লোক’ ইস্যু এবার কলকাতা হাই কোর্টে, মামলা দায়ের হিন্দুত্ববাদী নেতার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement