BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ফের বিপাকে সলমন, অভিনেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের সাংবাদিকের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: April 25, 2019 5:55 pm|    Updated: April 25, 2019 5:55 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের পুলিশি বিপাকে সলমন খান। এবার সলমনের উপর বেজায় চটলেন এক ভক্ত। শুধু তাই নয়, খেপে গিয়ে সলমনের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগও দায়ের করেন জনৈক ব্যক্তি। থানা-পুলিশে জড়িয়ে ভাইজান এমনিতেই সবসময়েই বিতর্কে থাকেন। তবে, এবার যা ঘটল, সেটা বোধহয় কেউ ভাবতেও পারেননি। প্রিয় অভিনেতার বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করার উদাহরণ বোধহয় এযাবৎকাল কেউ শোনেননি বা দেখেনওনি। সলমনের বিরুদ্ধে মুম্বইয়ের ডিএন নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন সেই ব্যক্তি। পেশায় সাংবাদিক তিনি।

 [আরও পড়ুন: ‘এবার থেকে একসঙ্গে থাকো’, রণবীর-আলিয়াকে পরামর্শ নীতু কাপুরের]

‘দাবাং থ্রি’-এর কাজে সলমন আপাতত ব্যস্ত। আর সেই কাজের ফাঁকেই মুম্বইয়ের রাস্তায় প্রকাশ্যে সাইকেল নিয়ে ঘুরছিলেন অভিনেতা। সলমন যে সাইকেল চালাতে ভালবাসেন, তা ভক্তকুলে সবারই জানা। তবে, কাজের ব্যস্ততার মাঝে সেভাবে আর সাইকেল নিয়ে বেড়ানো হয় না তাঁর। তবে, এদিন সুযোগ পেয়ে মনের ইচ্ছেয় সাইক্লিং করছিলেন মুম্বইয়ের রাস্তায়। ব্যান্ডস্ট্যান্ডের বাড়ি থেকে বেরিয়ে জুহু হয়ে ফিরে এলেন একই রাস্তা ধরে। আর ভাইজানকে এভাবে রাস্তায় প্রকাশ্যে সাইকেল চালাতে দেখা মানে ভক্তদের কাছে ভগবানের দেখা পাওয়ার মতোই ব্যাপার। তাই দু’-একটা ছবি তোলার সুযোগ যে তাঁরা হাতাছাড়া করবেন না, তা বলাই বাহুল্য। আর ভাইজানের সেই ছবি তুলতে গিয়েই ঘটে বিপত্তি। ঠিক কী ঘটেছিল সেদিন?

 [আরও পড়ুন: এবার সিরিয়াল কিলারের ভূমিকায় জ্যাকলিন]

সূত্রের খবর অনুযায়ী, বুধবার সকালে সলমন যখন মুম্বইয়ের লিঙ্কিং রোডে প্রকাশ্যে সাইকেল চালাচ্ছিলেন, তখন অশোক শ্যামল পাণ্ডে নামের ওই সাংবাদিক গোপনেই কিছু ছবি তুলছিলেন অভিনেতার। তখন নাকি অভিনেতা তাঁর মোবাইল ছিনিয়ে নেন হাত থেকে। কিছু গালিগালাজও করেন। আর সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই ভাইজানের বিরুদ্ধে ডিএন নগর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই শ্যামল পাণ্ডে। শোনা গিয়েছে, সলমনের দেহরক্ষীও পালটা এক অভিযোগ দায়ের করেন ওই সাংবাদিকের বিরুদ্ধে। শ্যামল পাণ্ডে নামে ওই সাংবাদিক নাকি বিনা অনুমতিতেই একের পর এক সলমনের ছবি তুলছিলেন। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে পালটা অভিযোগ দায়ের হয় ওই সাংবাদিকের নামে। বিষয়টি আপাতত বিচারাধীন।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement