BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ছোটবেলায় আরএসএসের সদস্য ছিলেন, নস্ট্যালজিয়া উসকে নেটদুনিয়ায় ট্রোলড মিলিন্দ

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 11, 2020 1:32 pm|    Updated: March 11, 2020 3:45 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নেটদুনিয়ায় এখন অন্যতম চর্চিত ব্যক্তি মিলিন্দ সোমন। তবে নিজের দেহসৌষ্ঠব নিয়ে নয়, মিলিন্দ আলোচনায় এসেছেন তাঁর সাম্প্রতিকতম বক্তব্যের জন্য। অভিনেতা তাঁর বইয়ে দাবি করেছেন, ছোটবেলায় আরএসএসের সদস্য ছিলেন তিনি। আজ যে শরীরচর্চার প্রতি তাঁর এত নিষ্ঠা, তা এসেছে ছোটবেলায় আরএসএসে যোগ দেওয়ার জন্যই। এই ঘটনার কথা শেয়ার করার পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার শিকার হয়েছেন মিলিন্দ। 

‘মেড ইন ইন্ডিয়া’ বইয়ে নিজের ছোটবেলার কথা জানিয়েছেন বছর পঞ্চাশের এই অভিনেতা। লিখেছেন, মুম্বইয়ের শিবাজি পার্ক এলাকায় আরএসএসের একটি স্থানীয় শাখা ছিল। সেখানেই তাঁকে ভরতি করে দিয়েছিলেন বাবা। তিনি বিশ্বাস করতেন প্রকৃত মানুষ হয়ে ওঠার জন্য চাই শৃঙ্খলা, ফিট শরীর ও সঠিক চিন্তাভাবনা। সেই কারণেই তিনি ছেলেকে আরএসএসের শাখায় ভরতি করেছিলেন। মিলিন্দ বলেছেন প্রথমে তাঁর সেখানে যেতে ভাল লাগত না। কিন্তু ধীরে ধীরে তিনি এই শৃঙ্খলাবদ্ধ জীবনের সঙ্গে মানিয়ে নেন। বরং দিন যত যেতে থাকে, তাঁরও শাখার প্রতি ভালবাসা বাড়তে থাকে।

[ আরও পড়ুন: ‘Man vs Wild’-এ বিয়ার গ্রিলসের সঙ্গে কেমন ছিল রজনীকান্তের বন্য অভিযান? প্রকাশ্যে ট্রেলার ]

অভিনেতা বলেছেন, এখন যেসব সাম্প্রদায়িক অপপ্রচার ও সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট তিনি শুনতে পান, তার সঙ্গে মেলাতে পারেন না। কার্যত হতবুদ্ধি হয়ে যান তিনি। কারণ সংঘ নিয়ে তাঁর যে স্মৃতি রয়েছে, তা সম্পূর্ণ অন্যরকম। তখন তিনি খাঁকি শর্টস পরে যোগাসন করতেন। সনাতনী জিমনেসিয়ামে প্র্যাকটিস করতেন নিয়মিত। গান গাইতেন, সংস্কৃত শ্লোক আবৃত্তি করতেন। সেই সব দিনের কথা মনে পড়লে এখনও নস্ট্যালজিক হয়ে পড়েন মিলিন্দ। তাঁর মতে, সংঘের জন্য তখন যেভাবে তাঁর শরীর ও মন গঠিত হয়েছিল, তার সুফল আজও ভোগ করেন তিনি। পঞ্চাশ বছর পেরিয়ে গেলেও শরীরের প্রতি যত্ন তাঁর এতটুকু কমেনি। এখনও তিনি ম্যারাথনে ছোটেন। নিয়মিত সাঁতার কাটেন।

এই বক্তব্যের পরই সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার শিকার হয়েছেন মিলিন্দ সোমন। একজন একটি ভিডিও ফুটেজ শেয়ার করে লিখেছেন, ‘মিলিন্দকে খুঁজে পাচ্ছেন?’ কেউ আবার লিখেছেন, ‘পড়া লিখা গাঁওয়র’ বলে কটাক্ষ করেছেন।

[ আরও পড়ুন: ফের গল্প চুরির অভিযোগ উইন্ডোজের বিরুদ্ধে! ফেসবুক পোস্টে ক্ষোভ উগরে দিলেন লেখিকা ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement