২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  মুম্বই মেট্রো রেলওয়েকে সমর্থন জানিয়ে ব্যস্ত জীবনের সহজতর যাতায়াত মাধ্যম হিসেবে তুলে ধরেছিলেন অমিতাভ বচ্চন। যে জন্য নেটিজেনদের জোর সমালোচনার মুখে পড়তে হল অমিতাভকে।

[আরও পড়ুন: ‘কোনও ভাষাই জোর করে চাপাতে পারেন না’, অমিত শাহকে কটাক্ষ রজনীকান্তের ]

মঙ্গলবার একটি টুইটে কিংবদন্তী এই অভিনেতা জানিয়েছিলেন, কীভাবে তাঁর এক বন্ধু আপদকালীন পরিস্থিতিতে হাসপাতালে পৌঁছেছিলেন। তিনি লেখেন, “গুরুতর বিপদের সময়ে আমার এক বন্ধু ব্যক্তিগত গাড়ি না নিয়ে মেট্রো করে হাসপাতালে পৌঁছেছিল। ফিরে এসে সেই বন্ধু তাঁর অভিজ্ঞতা জানিয়েছিল। মেট্রো করে অনেক তাড়াতাড়ি গন্তব্যে পৌঁছে গিয়েছিল ও।” আর এই টুইটের জেরেই অমিতাভ বচ্চনের বাড়ির সামনে আন্দোলনে বসেন মুম্বইয়ের পরিবেশপ্রেমীরা। কারণ, সম্প্রতি মু্ম্বই মেট্রোর কারশেড তৈরির জন্য আরে বনাঞ্চলের ২৭০০ গাছ কেটে জায়গা সাফ করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল।

বৃহনমুম্বই মিউনিসিপাল করপোরেশনের তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল আরে বনাঞ্চলের থরে থরে সাজানো গাছ কেটে ফেলার। আর সেই গাছ কাটার সংখ্যাও নেহাত কম নয়। প্রায় ২৭০০ গাছ কাটার নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল উপরমহল থেকে। যেখানে প্রকৃতিকে বাঁচানোর জন্য ভারতে প্লাস্টিক বিরোধী অভিযান শুরু করেছে মোদি সরকার, সেখানে নির্বিচারে আরে বনাঞ্চলের গাছ কেটে ফেলাকে একেবারেই মেনে নিতে পারছেন না মুম্বইয়ের পরিবেশপ্রেমীরা। শুধু মায়ানগরীর বাসিন্দারাই নন, বিএমসি’র এই নির্দেশে গর্জে উঠেছেন গোটা দেশের পরিবেশপ্রেমীরাই। আর মু্ম্বই মেট্রোকে সমর্থনের জন্য তাই বচ্চনদের বাংলো ‘জলসা’র সামনে প্রতিবাদী বার্তা নিয়ে ভিড় জমিয়েছেন পরিবেশপ্রেমীরা।  

[আরও পড়ুন: অল্পের জন্য দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেলেন অভিনেত্রী মৌনী, কাঠগড়ায় মুম্বই মেট্রো]

ওই একই টুইটে অমিতাভ বলেন, “দূষণ রুখতে মেট্রোই সেরা উপায়। নিজের বাগানে তাই গাছ লাগান। আমিও লাগিয়েছি।” যার প্রত্যুত্তরে প্রতিবাদীরা বলেছেন, “আপনি বাগানে গাছ লাগাতেই পারেন, কিন্তু তা করলে তো আর আমাদের বনাঞ্চল ফিরে পাব না আমরা!” জলসার দ্বাররক্ষীরা জমায়েত হওয়া পরিবেশপ্রেমীদের জিজ্ঞেস করেন যে তাঁদের পুলিশের অনুমতি রয়েছে কি না!

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং