BREAKING NEWS

২৩ চৈত্র  ১৪২৬  সোমবার ৬ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

‘এটাই বিজেপির আতঙ্কবাদীদের নগ্ন সত্যি’, জামিয়ায় পুলিশি তাণ্ডব নিয়ে সরব অনুরাগ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: February 16, 2020 7:01 pm|    Updated: February 16, 2020 7:01 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গত ১৫ ডিসেম্বর সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী বিক্ষোভ চলাকালীন জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে পুলিশি বর্বরতার অভিযোগ উঠেছিল। পড়ুয়াদের অভিযোগ ছিল, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক নিয়ন্ত্রিত দিল্লি পুলিশ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ঢুকে বেনজিরভাবে আক্রমণ শানিয়েছেন তাঁদের উপর। দিল্লি পুলিশ অবশ্য শুরু থেকেই সেই অভিযোগ অস্বীকার করে এসেছে। তাতেও ইস্যুটি ধামাচাপা পড়েনি। এবার ফের মাস ঘুরতেই ভাইরাল সেই ভিডিও। সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশ্যে আসতেই ফের শিরোনামে জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে। এবারও সেই ভিডিও শেয়ার করে মোদি সরকারকে খোঁচা দিলেন বলিউড পরিচালক।

ভিডিও শেয়ার করে অনুরাগ বলেছেন, “দিল্লি পুলিশের বিরুদ্ধে এটাই সুস্পষ্ট প্রমাণ। লাইব্রেরির ভিতর পঠনরত অবস্থায় নিরাপরাধ শিক্ষার্থীদের উপর লাঠিচার্জ করছে পুলিশরা। এখানে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে কী হয়েছিল সেদিন। কিন্তু এই ঘটনার পরও অমিত শাহ-সহ বিজেপি সরকারের লোকেরা মিথ্যে কথা রটিয়েছে। পড়ুয়াদের উপর দেশদ্রোহীর তকমা সেঁটেছে। এটাই হল বিজেপিদের আসল আতঙ্কবাদীদের নগ্ন সত্যি।”

[আরও পড়ুন: ‘কোনও অ্যাওয়ার্ড শো-তে যাব না’, ফিল্মফেয়ার কর্তৃপক্ষকে কটাক্ষ গীতিকার মনোজ মুন্তাশিরের ]

গতকাল ভাইরাল হওয়া ৪৯ সেকেন্ডের ওই সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যাচ্ছে জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে বসে রয়েছেন পড়ুয়ারা। হঠাৎই সেখানে প্রবেশ করে পুলিশ। পুলিশ আধিকারিকরা দাঙ্গা মোকাবিলার সময় ব্যবহৃত ‘রায়ট গিয়ার’ পরে ও মুখে রুমাল বেঁধে বিশ্ববিদ্যালয়ের লাইব্রেরিতে প্রবেশ করে। এরপর কোনও প্ররোচনা ছাড়াই বেধড়ক লাঠিচার্জ করতে করে পড়ুয়াদের উপর। ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার পরে সোশ্যাল মিডিয়ায় অনেকেই সমালোচনা করেছেন। বলিউড পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপও (Anurag Kashyap) ভিডিওটি নিয়ে একটি টুইট করেছেন, যা ভাইরাল হয়েছে। ফের কড়া সমালোচনা করেছেন মোদি সরকারের।

[আরও পড়ুন: মেয়ের স্বয়ম্বর শো নিয়ে আপত্তি, কালার্সের বিরুদ্ধে শিব সেনার দ্বারস্থ হচ্ছেন শেহনাজের বাবা!]

সম্প্রতি জামিয়ার সভায় গিয়ে মোদি সরকারকে বিঁধে অনুরাগ বলেন, “আমাদের লড়াই ধৈর্যের সঙ্গে লড়তে হবে। হিংসাত্মকভাবে নয়। এটাই চাবিকাঠি। এক বা দু’দিনে এর মীমাংসা হবে না। আমাদের দৃঢ়ভাবে প্রতিবাদ চালিয়ে যেতে হবে। তবেই সব প্রশ্নের উত্তর আমরা পাব। এই লড়াই অনেক দীর্ঘ। কিন্তু আমাদের একসঙ্গে থাকতে হবে। তোমরা হয়তো অনেকে ভাবছো কেন আরও মানুষ সামনে আসছে না? কিন্তু অনেকে নিঃশব্দে তোমাদের পাশে রয়েছে। আমরা দেখতে পাচ্ছি এখানে কী হচ্ছে। জামিয়া থেকে জেএনইউ, লড়াই ছড়িয়ে পড়ছে সর্বত্র। বহু বছর পর এই প্রথম গোটা বিশ্ব দেখল দেশের একতা কাকে বলে। আমাদের দেশ ও সংবিধানকে ফিরিয়ে আনতে হবে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement