BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

‘বুলবুল’ ছবিতে ‘কলঙ্কিনী রাধা’ গানে হিন্দু ধর্মের অপমান! Netflix বয়কটের ডাক হিন্দুত্ববাদীদের

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: July 2, 2020 6:09 pm|    Updated: July 4, 2020 11:27 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “বিভ্রান্তিকরভাবে বাউলগান ‘কলঙ্কিনী রাধা’কে ব্যবহার করা হয়েছে অনুষ্কা শর্মা প্রযোজিত ‘বুলবুল’ সিনেমায়। অপমান করা হয়েছে হিন্দুধর্মকে। তাই বয়কট করা হোক নেটফ্লিক্সকে”, এমন রবই তুলেছেন ভারতের হিন্দুত্ববাদীরা।

দেশের হিন্দুত্ববাদীদের নিশানায় অনুষ্কা শর্মার (Anushka Sharma) একের পর এক কাজ! উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগেই ‘পাতাললোক’ নিয়ে প্রযোজক অনুষ্কার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছিল উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, এমনকী কলকাতা উচ্চ আদালতেও। এবার, ‘বুলবুল’ (Bulbul) সিনেমায় একটি জনপ্রিয় বাংলা লোকগীতি ‘কলঙ্কিনী রাধা’ ব্যবহারের জন্য ফের হিন্দুত্ববাদীদের রোষানলে পড়লেন অনুষ্কা শর্মা।

“বুলবুলে যেটা করেছে, তা হল সিলেক্টিভ সেকুলারিজম! সরকার কি অনুষ্কা শর্মাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করবে?”

কেন? সম্প্রতি নেটফ্লিক্সে মুক্তি পাওয়া ‘বুলবুল’ ছবিতে যে ‘কলঙ্কিনী রাধা’ গানটি ব্যবহার করা হয়েছে, তাতে ‘কানু হারামজাদা’ এবং ‘কলঙ্কিনী রাধা’ এই দুটি শব্দ নিয়ে মূলত আপত্তি তাঁদের। হিন্দুত্ববাদীর ঝান্ডাধারীদের কথায়, “গানে হিন্দুদের ভগবান কৃষ্ণকে যেভাবে ‘কানু হারামজাদা’ এবং তাঁর লীলাসঙ্গিনী রাধাকে ‘কলঙ্কিনী’ বলে বর্ণনা করা হয়েছে। তা মোটেই মেনে নেওয়া যায় না!” এই গানটি নিয়ে আপত্তি তুলেছেন বিশেষত উত্তর ভারতের অনেকে। তাঁরা, এই গানটিকে হিন্দুত্বের ওপর আক্রমণ হিসেবেই দেখছেন। আর তাঁদের কথায়, বাংলা প্রচলিত এই লোকগীতি ‘বুলবুল’ সিনেমায় ব্যবহার করে অনুষ্কা তাতে ইন্ধন যুগিয়েছেন! “বোঝো কান্ড!” এসব দেখেশুনে নেটিজেনদের একাংশের এমনটাই মন্তব্য।

বিতর্কের জল এতদূর গড়িয়েছে যে, এই আক্রমণ ও সমালোচনার মুখে পড়ে নেটফ্লিক্স সংশ্লিষ্ট সিনেমার ওই গানের সাবটাইটেলে কৃষ্ণের বর্ণনায় ‘হারামজাদা’ শব্দটি পালটে ‘নটখট’ অর্থাৎ দুষ্টু শব্দটি ব্যবহার করেছে।

প্রসঙ্গত, ‘বুলবুল’ ছবিতে যে প্রাচীন বাংলা গানটি নিয়ে এই বিতর্ক, সেই ‘কলঙ্কিনী রাধা’ (Kalankini Radhaa) গানটি আদতে বাংলাদেশের সিলেটের কিংবদন্তী বাউলশিল্পী শাহ আবদুল করিমের গান। যা এখনও অবধি বাংলার ঘরে ঘরে বেশ জনপ্রিয়। আর ‘বুলবুল’ মুক্তি পাওয়ার পর থেকেই এই গানটি নিয়ে বেশ হইচই শুরু হয়ে গিয়েছিল। তবে প্রথমটায় তেমন আমল কেউই দেননি, পরে সোশ্যাল দুনিয়ায় ‘বিগ বস ১৩’র প্রতিযোগী হিন্দুস্তানি ভাউ থেকে শুরু করে আরও অনেকেই যেভাবে এই গানের নিন্দা শুরু করেছেন, তাতে রীতিমতো শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: অঙ্গদানের অঙ্গীকার রীতেশ-জেনেলিয়ার, তারকা দম্পতির প্রশংসায় পঞ্চমুখ কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী]

ভাউ টুইট করে প্রশ্ন তুলেছেন, “বুলবুলে যেভাবে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ ও রাধাকে অশ্লীল ভাষায় অপমান করা হয়েছে, তার জন্য সরকার কি অনুষ্কা শর্মাদের বিরুদ্ধে তদন্ত করবে?” আরেক গোড়া হিন্দুত্ববাদীর মন্তব্য, “বিনোদনের নামে চিরকালই বলিউড এভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠ হিন্দু সমাজ ও তাদের দেব-দেবীদের অপমান করে আসছে। প্রথমে ‘পাতাললোক’, এখন ‘বুলবুল’- অনুষ্কা শর্মা এমন সব প্রজেক্টের প্রযোজনাই করছেন যেগুলো মূলত হিন্দুদের ভাবাবেগকে আঘাত করে!” আরেক জনের মন্তব্য, “বুলবুলে যেটা করেছে, তা হল সিলেক্টিভ সেকুলারিজম!”

তবে নেটিজেনদের একাংশ কিন্তু এই বিতর্ক কিংবা অভিযোগ মেনে নিতে নারাজ। তাঁদের কথায়, “এই গানে ‘হারামজাদা’ কিংবা ‘কলঙ্কিনী’ শব্দ ব্যবহার করা হয়েছে বলেই যাঁরা হিন্দুত্ব নিয়ে গেল রব তুলছেন, তাদের উদ্দেশে বলি, আপনারা আসলে বাঙালিয়ানা বা বাংলা লোকসংস্কৃতির কিছুই বোঝেন না!”

[আরও পড়ুন: সুশান্তের মৃত্যুতে মামলা দায়ের! মুম্বই পুলিশের নজরে এবার পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশালি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement