৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  বুধবার ২০ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুধুই করমুক্ত নয়। স্যানিটারি ন্যাপকিনের মতো নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য বিনামূল্যেই দেওয়া উচিত এ দেশে। এমনটাই মনে করেল খিলাড়ি অক্ষয় কুমার। নতুন বছরে সাধারণতন্ত্র দিবসে মুক্তি পাবে তাঁর ছবি ‘প্যাডম্যান’। তার আগে রিয়েল লাইফের প্যাডম্যান মুরুগানন্থম অরুণাচলমের সঙ্গে পর্দার প্যাডম্যান অক্ষয় কুমার বম্বে আইআইটিতে পড়ুয়াদের মুখোমুখি হন। সেখানেই তিনি বলেন, কেন ন্যাপকিনকে করমুক্ত করার দাবি ওঠে? এমন একটি নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস যা মহিলাদের সুরক্ষায় ব্যবহৃত তা কি বিনামূল্যে বিলি করা যায় না। সরকারের উচিত বিনামূল্যে স্যানিটারি ন্যাপকিনের ব্যবস্থা করা। এ জিনিসের উপর মূল্য বসানোরই প্রয়োজন মনে করেন না জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা।

[মুখে টাকা নিয়ে উদ্দাম নাচ, রিসেপশন পার্টি মাতালেন বিরুষ্কা]

কথায় আছে, সুপারম্যান বা ব্যাটম্যানের মতো সব সুপারহিরোরা কেপ পরে আসে না। নিজের ছবির চরিত্র লক্ষ্মীকান্ত চৌহানকে এইভাবেই বর্ণনা করেছেন অক্ষয়। যা কিনা অরুণাচলমের জীবনের অনুপ্রেরণায় রচিত। তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটুরের এক সাধারণ পরিবারের ছেলে অরুণাচলম গ্রামীণ আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতিতে মহিলাদের ঋতুস্রাব নিয়ে প্রচলিত ট্যাবু ভাঙতে চেয়েছিলেন। তার জন্য নিজের স্ত্রীর কাছেও গঞ্জনা সহ্য করতে হয় তাঁকে। কিন্তু লক্ষ্যে অবিচল ছিলেন তিনি। ঋতুচক্রের সময় গ্রামের মহিলারা কাপড় ব্যবহার করতেন। অস্বাস্থ্যকর এই অভ্যাসের জন্য ফি বছর বহু মহিলা অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন অরুণাচলম। তৈরি করেছিলেন স্যানিটারি ন্যাপকিন বানানোর যন্ত্র। অত্যন্ত কম খরচে মহিলাদের জন্য এই স্যানিটারি ন্যাপকিনের মেশিন এক যুগান্তকারী আবিষ্কার। দেশের ২৩টি রাজ্য আজ তাঁরই মেশিন ব্যবহার করছে। বর্তমানে নিজের উৎপাদন প্রক্রিয়াকে বিশ্বের ১০৬টি দেশে বিস্তৃত করতে চান অরুণাচলম। ২০১৪ সালে টাইম ম্যাগাজিন তাঁকে বিশ্বের ১০০ জন সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তির একজনের শিরোপা দেয়। তার ঠিক দুবছর পর ভারত সরকার তাঁকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করে। এদিনের অনুষ্ঠানে নিজের অভিজ্ঞতার কথা ভাগ করে নেন অরুণাচলম। বলেন, ৬৮ হাজার টাকা খরচ করে স্যানিটারি ন্যাপকিনের মেশিন তৈরি করেছিলেন তিনি। বহু কর্পোরেট সংস্থার প্রলোভন সত্ত্বেও সেই যন্ত্র বিক্রি করেননি তিনি। তারপর ব্রিটেনে ইউনিলিভার-এর একটি সম্মেলনে নিজের আবিষ্কার নিয়ে বক্তৃতা দেন অরুণা। যদি সেদিন নিজের য্ন্ত্র বিক্রি করে দিতেন তাহলে তাঁর অবদান কর্পোরেট সংস্থার মার্কেটিং স্ট্র্যাটেজির তলায় চাপা পড়ে যেত। এমনটাই মত অরুণার।

[তফসিলিদের বিরুদ্ধে অবমাননাকর মন্তব্য, ছবিমুক্তির দিনই বিপাকে সলমন]

ছবির একটি দৃশ্যে নিজের তৈরি করা স্যানিটারি ন্যাপকিন পরতে হয়েছিল অক্ষয়। পড়ুয়াদের প্রশ্নের উত্তরে সেই অভিজ্ঞতার কথা তুলে ধরেন তিনি। বলেন, ‘খুব ছোট দৃশ্য হলেও সে অভিজ্ঞতার কোনও পরিভাষা হয় না। আমার ঘরেও মহিলারা রয়েছেন। দৃশ্যে অভিনয়ের সময় তাঁরা ঋতুস্রাব চলাকালীন কী যন্ত্রণার মধ্যে যান তা উপলব্ধি করেছিলাম।’ অভিনেতা মনে করেন, এ ছবি শুধু মহিলা নয়, পরিবারের সবাইকে নিয়ে দেখার মতো ছবি। তাই সবাইকে এ ছবি দেখার জন্য আবেদন জানিয়েছেন অভিনেতা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং