৩০ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ১৭ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “প্রাণ দিতে চাই, মন দিতে চাই, সবটুকু ধ্যান সারাক্ষণ দিতে চাই”। উত্তর কলকাতার এক দুষ্টুমিষ্টি মেয়ের প্রেমকাহিনির ছবি ধরা পড়ল ‘পরিণীতা’র গানে। প্রকাশ্যে এল রাজ চক্রবর্তী পরিচালিত ছবি ‘পরিণীতা’র প্রথম গান তোমাকে। আর সেই সঙ্গে স্ত্রী শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়ের অভিনয়ের প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন পরিচালক রাজ। মেহুলের চরিত্রটা যে এক্কেবারে শুভশ্রীর জন্যই তা প্রথম গান লঞ্চের দিন একথা বললেন তিনি।  

[আরও পড়ুন:  বাবাই-মেহুলের প্রেমের পরিণতি কী? উত্তর মিলবে ‘পরিণীতা’য় ]

পরিচালক রাজ চক্রবর্তী জানান, শুভশ্রীকে প্রথমটায় ‘পরিণীতা’র জন্য তিনি নাকি ভাবেনইনি। তবে ছবির গল্প ডেভলপমেন্ট করতে গিয়েই মেহুলের চরিত্রে শুভশ্রীকে রাখার কথা ভেবেছেন তিনি। আর ট্রেলার মুক্তির পর তো শুভশ্রীর অভিনয় প্রশংসিত হওয়ায় যারপরনাই উচ্ছ্বসিত হয়ে উঠেছেন পরিচালক স্বামী রাজ। তা যাঁর অভিনয় নিয়ে এত কথা তিনি মেহুলের চরিত্রের জন্য প্রস্তুতি নিলেন কীভাবে? প্রশ্ন ছুঁড়তেই শুভশ্রী জানান, চিত্রনাট্য সাজানোর সময় থেকেই মেহুল চরিত্রের ঘোরে ছিলেন তিনি। সোহিনী সেনগুপ্তকে অনুরোধ করেন তাঁকে অভিনয়ের ওয়ার্কশপ করানোর জন্য। সোহিনীর উপদেশ অনুযায়ী অক্ষরে অক্ষরে তাঁর কথা পালন করেছেন অভিনেত্রী। সোহিনীর দেওয়া হোমওয়ার্কও করেছেন।

ফেরা যাক, ‘তোমাকে’ গানটি প্রসঙ্গে। গেয়েছেন শ্রেয়া ঘোষাল। ময়দানের মাঠ, শহরের উত্তরের অলিগলি, বাদাম চিবনো বিকেল, এ বাড়ির ছাদ থেকে ও বাড়ির ছাদে ইশারায় প্রেম নিবেদন.. এই গানের দৃশ্য আপনাকে নিয়ে যাবে স্কুল-কলেজে পড়াকালীন সেই প্রেমজীবনে। ‘তোমাকে’ গানের মধ্য দিয়ে বাবাই-মেহুলের হাত ধরে হারিয়ে যাওয়া সেই দিনগুলি আপনিও ফিরে পেতে পারেন। ‘পরিণীতা’র সংগীতের দায়িত্বে রয়েছেন অর্ক মুখোপাধ্যায়।

[আরও পড়ুন: ‘মোঘলরা ভারতকে ধনী করেছে’, স্বরার বিতর্কিত টুইটে সমালোচনার ঝড় নেটদুনিয়ায়]

‘পরিণীতা’য় এক স্কুল ছাত্রীর বেশে দেখা যাবে শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়কে। ক্রিকেট খেলা থেকে পাড়ায় ‘দিদিগিরি’, সবেতেই ওস্তাদ শুভশ্রী ওরফে ‘পরিণীতা’র মেহুল। যে ‘পাড়াতুতো’ দাদা বাবাইয়ের প্রেমে পড়েছে। চোখে চশমা সাঁটা, পড়ুয়া গোছের ছেলে বাবাই অর্থাৎ ঋত্বিক চক্রবর্তী পড়ায় অমনোযোগী মেহুলের অলিখিত অভিভাবক। এই ছবিতে আদ্যোপান্ত কলকাতার চালচিত্র তুলে ধরেছেন রাজ। প্রেক্ষাপট মূলত উত্তর কলকাতা। গল্প বেঁধেছেন প্রিয়াঙ্কা পোদ্দার এবং অর্ণব ভৌমিক। চিত্রনাট্য বিন্যাসে পদ্মনাভ দাশগুপ্ত। ছবির গল্পের অলিগলি পাড়াতুতো প্রেমের নস্টালজিয়াকে উসকে দিতে বাধ্য। তবে বড়পর্দায় এর স্বাদ নিতে অপেক্ষা করতে হবে আগস্ট অবধি।  

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং