১৭ চৈত্র  ১৪২৬  মঙ্গলবার ৩১ মার্চ ২০২০ 

Advertisement

‘দেশ জ্বলছে, ঘৃণা ছড়াবেন না’, দিল্লির হিংসা নিয়ে সরব রাজ-নুসরত-পরমব্রত

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: February 26, 2020 8:40 pm|    Updated: February 26, 2020 8:40 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “আমি শোকাহত, দুঃখিত… আমার দেশ জ্বলছে। ভুলে যাবেন না যে আমরা প্রথমে মানুষ। দয়া করে ঘৃণা ছড়াবেন না”, দিল্লির উত্তপ্ত পরিস্থিতিতে আরজি জানিয়েছেন অভিনেত্রী তথা সাংসদ নুসরত জাহান। রাজধানীর অচলাবস্থা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়, কৌশিক সেনও। বরং পরোক্ষভাবে গেরুয়া শিবিরকে বিঁধতেও পিছপা হননি।

প্রসঙ্গত, আধাসেনা নামানোর পরও অশান্তি থামেনি। বরং ৩৫ কোম্পানি আধাসেনা বাড়িয়ে তা ৪৫ কোম্পানি করে দেওয়া হয়েছে।  দিল্লির উত্তপ্ত পরিস্থিতি নিয়ে রীতিমতো উদ্বিগ্ন দেশের সভ্য নাগরিকরা। অনুরাগ কাশ্যপ, জাভেদ আখতার যেমন এই অশান্তি, হিংসা ছড়ানোর জন্য দায়ী করেছেন উগ্র হিন্দুত্ববাদকে। প্রশ্ন তুলেছেন, ‘এটা দিল্লি না সিরিয়া?’ এই কঠিন পরিস্থিতিতে AAP প্রশাসনের ভূমিকা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ। সেই প্রসঙ্গেই এবার তৃণমূলের তারকা সাংসদ সরব হলেন। রাজধানীর অন্দরে চলা এই হিংসা-অশান্তির মাঝে শান্তিবার্তা দিয়ে আরজি জানিয়েছেন ‘কেউ যেন গুজব না রটান। মিথ্যে খবরে কান না দেন।’ একটি প্রতীকী ছবি ব্যবহার করে মেরুকরণের রাজনীতির বিরুদ্ধে আওয়াজও তুলেছেন নুসরত।  

[আরও পড়ুন:‘অমিত শাহ ক্ষমা চাইলে দেশের অর্ধেক সমস্যা শেষ হবে’, দিল্লি হিংসা নিয়ে কটাক্ষ অনুরাগের   ]

অভিনেতা পরমব্রতর কথায়, “না এই ঘটনায় আমি মোটেই হতবাক নই! দীর্ঘদিন ধরেই এই কার্যকলাপ চলছিল, এখন সেটা প্রকাশ্যে এসেছে। আমাদের দেশের এই করুণ পরিস্থিতিতে কেমন যেন একটা নিজেদেরই করুণ অবস্থার প্রতিফলন দেখতে পাচ্ছি। অর্ধশতক পর ইতিহাস আমাদেরই কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে!” 

অন্যদিকে কৌশিক সেনের কথায়, “যা হচ্ছে তা পুরোপুরি পূর্ব-পরিকল্পিত।” জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় কাণ্ডের পর এবারেও দিল্লি পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ছুঁড়েছেন। তাঁর মন্তব্য, “দেশে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আসছেন, যেখানে রাজধানীকে শান্তিপূর্ণ দেখানোটা জরুরী। সেখানে দিল্লি পুলিশের কাছে এরকম একটা বড় খবর ছিল না, তা কী করে সম্ভব!” 

সাম্প্রদায়িক হানাহানি, রক্তারক্তির কাহিনি ভিত্তিক ছবি ‘ধর্মযুদ্ধ’র পরিচালক রাজ চক্রবর্তী মসজিদের মাথায় গেরুয়া পতাকা ওড়ানো ভিডিও শেয়ার করে লিখেছেন, “এভাবে লড়াই চলতে থাকলে, একদিন আর মানব সভ্যতা থাকবে না। থাকবে শুধু মন্দির-মসজিদ।”

[আরও পড়ুন:‘দিল্লি জ্বলছে, আপনি ট্রাম্পের সঙ্গে নৈশভোজে ব্যস্ত?’, কটাক্ষের শিকার রহমান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement