BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নিঃশব্দেই মানুষের সেবায় দেব, এবার রাশিয়া থেকে পড়ুয়াদের দেশে ফেরাচ্ছেন সাংসদ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: June 17, 2020 5:23 pm|    Updated: June 17, 2020 6:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “দয়া করে আমাদের বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করে দিন”, সূদুর রাশিয়া থেকে তৃণমূল সাংসদ তথা অভিনেতা দেবকে আরজি জানিয়েছিলেন এক পড়ুয়া। সেই বার্তা দেবের নজরে আসতেই তড়িঘড়ি ব্যবস্থা শুরু করে দেন তিনি। নেপাল থেকে ১০০০ শ্রমিককে ফেরানোর পর এবার ‘বন্দে ভারত মিশন’-এর অধীনে মোট ৭৭ জন ডাক্তারি পড়ুয়াকে দেশে ফেরাচ্ছেন সাংসদ। যাঁরা এই মুহূর্তে আটকে রয়েছেন রাশিয়াতে। এদের মধ্যে সিংহভাগ পড়ুয়ার বাড়িই বাংলায়।

একেবারে নিঃশব্দেই কাজ করে চলেছেন সাংসদ-অভিনেতা। সোশ্যাল মিডিয়ায় কোনওরকম ছবি নেই। প্রচারের আলো থেকে দূরে মানুষের জন্য কাজ করে চলেছেন নিঃশর্তে। অখিলেন্দু করক নামে এক ডাক্তারি পড়ুয়া টুইটারে ক্রমাগত তাঁদের সমস্যার কথা জানাতে থাকেন। সেখানে নরেন্দ্র মোদী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, এমনকী স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক অমিত শাহকে ট্যাগ করার পাশাপাশি সাংসদ দেবের (Dev) নামও উল্লেখ করেন তিনি। কারণ, অখিলেন্দু জানতেন, নেপালের পরিযায়ী শ্রমিকদের দেবের দেশে ফেরানোর কথা। এর আগে দুবাই থেকেও দেবকে ফোনে যোগাযোগ করা হয়েছিল।

খবর পেয়েই ময়দানে নামেন সাংসদ-অভিনেতা দেব (Trinamool MP Dev) । আগের মতোই মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে পরামর্শ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক এবং বিদেশ সচিবের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। এরপর সবুজ সংকেত মিললেই রাশিয়া থেকে বাংলার পড়ুয়াদের ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দেন দেব। আগামী ২৭ জুন ৭৭ জন পড়ুয়া দেশে ফিরছে সাংসদ দেবের উদ্যোগে।

লকডাউনের জেরে আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবা আপাতত বন্ধ। রাশিয়া (Russia) থেকে তাই পড়ুয়া দেশে ফিরবেন বন্দে ভারত মিশনে। দিল্লি কিংবা মুম্বই এসে, সেখান থেকে কানেকটেড ফ্লাইট ধরে কলকাতায় ফিরবেন তাঁরা। এরপর নিজ নিজ জেলায়। নিয়ম মেনে কোয়ারেন্টাইনেও থাকবেন তাঁরা। দেব-ই সহায় বটে!

[আরও পড়ুন: ‘বলিউড থেকে হুমকিও পেত!’, বিস্ফোরক মন্তব্য সুশান্ত সিং রাজপুতের তুতো ভাইয়ের]

এই বিষয়ে পড়ুয়াদের তরফ থেকে অখিলেন্দু ফের দেবকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন টুইটে। পালটা তার উত্তর দিতেও ভোলেননি তিনি। একেবারে আপনজনের মতোই বলেছেন, “ধন্যবাদ দেওয়ার মতো কিছু নেই। আমরা সকলেই এখন একই পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছি। আশা করি, খুব শিগগিরিই তোমরা ভালভাবে বাড়ি ফিরে আসবে। আর হ্যাঁ, ফিরে সবার আগে নিজেদের কোয়ারেন্টাইন করে রাখতে ভুলো না যেন! তোমরাওই দেশের যুবপ্রজন্ম। আগামীর দূত। যখনই দরকার পড়বে, মানুষের সাহায্যে হাত বাড়িয়ে দিও। শুভেচ্ছা রইল।”

তবে দেব কিন্তু ‘পরিযায়ী’ বলতে নারাজ! কারণ? তাঁর কথায়, এঁরা প্রত্যেকেই এই দেশের। তাঁরাই যখন নিজের বাড়ি ফিরছেন, কেন তাঁদের ‘পরিযায়ী’ বলা হবে? প্রসঙ্গত, অভিনেতার কথা বলার ধরণ, অভিনয় নিয়ে ট্রোল-মিমের ছড়াছড়ি হলেও দেব কিন্তু নিঃশব্দেই সমস্যায় পড়া মানুষদের জন্য কাজ করে চলেছেন ক্রমাগত, একেবারে ‘ঘরের ছেলে’র মতোই।

[আরও পড়ুন: সুশান্তের আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগে মামলা দায়ের সলমন, করণ, একতা, বনশালিদের বিরুদ্ধে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement