BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

৭৪ বছরেও করোনার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লড়াই, কোমা থেকে ফিরলেন এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম

Published by: Suparna Majumder |    Posted: August 16, 2020 4:10 pm|    Updated: August 16, 2020 10:54 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চুয়াত্তর বছর বয়সে করোনার সঙ্গে বুক চিতিয়ে লড়ে যাচ্ছেন প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম (SP Balasubramanyam)। কোমা থেকে বেরিয়ে এসেছেন দক্ষিণ ভারতের কিংবদন্তি শিল্পী। চিকিৎসায় ভাল সাড়া দিচ্ছেন। জানিয়েছেন তাঁর ছেলে এস পি বি চরণ (SPB Charan)।

৫ আগস্ট করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভরতি হন এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম। নিজে সোশ্যাল মিডিয়ায় একথা জানান। অনুরাগীদের আশ্বস্ত করে জানিয়েছিলেন, সামান্য উপসর্গ রয়েছে তাঁর। চিকিৎসকরা বাড়িতে থাকার পরামর্শ দিয়েছিলেন। কিন্তু পরিবারের বাকি সদস্যদের কথা মাথায় রেখে হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন তিনি। এরপরই গত শুক্রবার খবর আসে কিংবদন্তি সংগীতশিল্পীর স্বাস্থ্যের অবনতি হয়েছে। ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে তাঁকে। কোমায় চলে গিয়েছেন এস পি বালা বালাসুব্রহ্মণ্যম। খবর প্রকাশ্যে আসতেই, অনুরাগীরা সংগীতশিল্পীর সুস্থতা কামনা করে প্রার্থনা করতে থাকেন। সোশ্যাল মিডিয়ায় টুইটে নিজেদের চিন্তা জাহির করেন।

[আরও পড়ুন:দুষ্কৃতীদের তালিকায় ক্ষুদিরামের ছবি! বিপ্লবীকে অপমানে প্রবল রোষে ‘অভয় ২’ ওয়েব সিরিজ]

শনিবার রাতে সমস্ত অনুরাগীদের সুখবর জানান সংগীতশিল্পীর ছেলে এস পি বি চরণ। জানান, কোমা পরিস্থিতি কাটিয়ে উঠেছেন এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম। তাঁর ফুসফুসে সংক্রমণ ছড়িয়েছিল। তা অনেকটাই কমেছে। নিজের ভিডিওয় এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম একটি ছবিও শেয়ার করেছেন চরণ, যাতে ভেন্টিলেশনে থেকেও সকলকে আশ্বস্ত করছেন ৭৪ বছরের শিল্পী। তাঁকে আরও কিছুদিন পর্যবেক্ষণে রাখা হবে বলে জানা গিয়েছে।

 

[আরও পড়ুন: ভোটে লড়ার জন্য কংগ্রেস ও বিজেপি থেকে ডাক পেয়েছেন কঙ্গনা, কী উত্তর অভিনেত্রীর?]

সংগীত জগতে পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে কাজ করেছেন এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম। তামিল, তেলুগু, কন্নড় সিনেমার পাশাপাশি বলিউডের একাধিক ছবিতে তাঁর কণ্ঠ দর্শকদের মন ছুঁয়ে গিয়েছে। তালিকায় রয়েছে ‘ক্রিমিনাল’, ‘ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া’, ‘হাম আপকে হ্যায় কৌন’, ‘রোজা’-র মতো সিনেমা। একাধিক ছবিতে তাঁর অভিনয়ও দর্শকদের প্রশংসা পেয়েছে। ৭৪ বছরের অভিনেতা অবিলম্বে সুস্থ হয়ে উঠুন, এই প্রার্থনাই করছেন সকলে।  

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement