২১ চৈত্র  ১৪২৬  শনিবার ৪ এপ্রিল ২০২০ 

Advertisement

গণতান্ত্রিক সমাজ ব্যবস্থার মোড়কে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস উঠে এল ‘গাধা কাহিনি’ নাটকে

Published by: Bishakha Pal |    Posted: January 28, 2020 3:43 pm|    Updated: January 28, 2020 4:00 pm

An Images

সুযোগ বন্দ্যোপাধ্যায়: সম্প্রতি নাট্য অ্যাকাডেমি আয়োজিত নাট্যমেলা ২০১৯-এ শিশির মঞ্চ অভিনীত হল বহরমপুর গাঙচিল প্রযোজিত ‘গাধাকাহিনি’ নাটকটি। নাটকটি রচনা করেছেন বিশিষ্ট শিল্পী ও নাট্যকার সৌমিত্র বসু। প্রয়োগ, পরিকল্পনা, পরিচালনা শ্রী রাহুলদেব ঘোষ।

পঞ্চতন্ত্রের গল্পের পরিকাঠামো উপর নাটকটি নির্মিত। নাট্যকার সৌমিত্র বসু এবং পরিচালক রাহুলদেব ঘোষ গল্পটিকে একেবারে আধুনিক সময়োপযোগী করে তুলে পরিবেশন করেছেন। মূল গল্পটিতে ‘গাধা’ বা ‘গণতান্ত্রিক নির্বাচন’ কোনও কিছুরই অস্তিত্ব ছিল না। রাজামশাই রাম ধোপার গাধাকে রাজ্য শাসন করার ভার দিয়েছেন। সেই চূড়ান্ত দিশাহীন অন্ধকার সময় দল, রং নির্বিশেষে যখন রাজনীতিকদের উপর সাধারণ মানুষের আশা ভরসা প্রায় নেই বললেই চলে তখন এই উপস্থাপনা অত্যন্ত প্রাসঙ্গিক বলেই মনে হয়। রাজার ইচ্ছা অনুসারে রাম ধোপার গাধা তৈরি করবে সমাজ এবং সামাজিক নিয়ম।

[ আরও পড়ুন: বারাকের পর এবার মিশেল ওবামা, গ্র্যামি জিতলেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্টের স্ত্রী ]

gadha-kahini-1

পরিচালক রাহুল দেব ঘোষ অত্যন্ত মুন্সীয়ানার সঙ্গে ব্যবহার করেছেন মুখোশ। যা নাটককে অন্য মাত্রা এনে দিয়েছে। নাটকটিতে যাঁরা কাজ করেছেন তাঁরা সকলেই প্রায় শিশুশিল্পী। প্রত্যেকেই পরিচালকের প্রয়াসটিতে যোগ্য সঙ্গত করেছেন। নাটকটির পরিমিত আবহসংগীতও প্রশংসার দাবি রাখে। নাটকের মজাদার এবং অর্থপূর্ণ সংলাপ প্রতি মুহূর্তে উপভোগ্য করে তোলে নাটকটিকে।

লেখক রাজসিংহাসনে বসা গাধার চরিত্রটির সঙ্গে কথোপকথন দর্শকের সামনে একেবারে আধুনিক সময়ের সমাজ-রাজনীতির দাবি তুলে ধরে। যেখানে গণতন্ত্রের মোড়কে আগের মতোই বহাল থাকে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস। গাধা লেখককে প্রশ্ন করে যে লেখকের গল্পে রাজা অর্থাৎ গাধাকে হেনস্তা করা হয়েছে কিনা। এই দৃশ্য দেখতে দেখতে অনেক সাম্প্রতিক ঘটনার কথা মনে পড়ে যেতে থাকে। সারা পৃথিবী জুড়েই বিভিন্ন সময়ে লেখক-শিল্পীর সাংবাদিকরা সমাজের রাজনীতির অন্ধকার দিকগুলো তুলে ধরে রাষ্ট্র তথা শাসকশ্রেণির চক্ষুশূল হয়েছেন। গণতান্ত্রিক সমাজব্যবস্থার মোড়কে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, আমলাতন্ত্র এবং সামাজিক-নৈতিক অধঃপতনের এক সুন্দর চিত্র ফুটিয়ে তুলেছেন নাট্যকার।

নাটকটির পরিসমাপ্তিও যথাযথ। শিশুশিল্পীদের নিয়ে এমন একটি সার্থক প্রযোজনা করার জন্য পরিচালক শ্রী রাহুলদেব ঘোষকে সাধুবাদ জানাতে হয়। কারণ, প্রযোজনার পাশাপাশি প্রত্যক্ষভাবে পরবর্তী প্রজন্মকে তৈরি করাও একজন নাট্যকর্মীর গুরুদায়িত্বর মধ্যে পড়ে।

[ আরও পড়ুন: এপ্রিলেই কর্মীদের নোটিস দেওয়া হয়েছিল, আমার এফএম বন্ধ নিয়ে পালটা দিল কোম্পানি ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement