১ আশ্বিন  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

 একসঙ্গে এক ছবিতে আবির চট্টোপাধ্যায় ও যিশু সেনগুপ্ত। মৈনাক ভৌমিকের নতুন ছবি নিয়ে লিখছেন সোমনাথ লাহা।

বর্তমান সময়ের বাঙালি দর্শকদের বেশ কিছু ব্যতিক্রমী ছবি উপহার দিয়েছেন পরিচালক মৈনাক ভৌমিক। ঋতব্রত মুখোপাধ্যায় ও সৌরসেনী মৈত্রকে নিয়ে তাঁর পরিচালিত ছবি ‘জেনারেশন আমি’ শুধু যে বক্স অফিসে সাফল্য পেয়েছে তাই নয়। প্রশংসিত হয়েছে দর্শক ও সমালোচোক মহলে। আর ‘জেনারেশন আমি’-র হাত ধরেই এসভিএফ (শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস)-এর সঙ্গে প্রথমবার গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন মৈনাক। এই মৈনাক ভৌমিক এবার এসভিএফ-র হেঁশেল থেকেই নিয়ে আসছেন তাঁর পরিচালিত প্রথম থ্রিলার ছবি ‘বর্ণপরিচয়’। থ্রিলার এই ছবিতে রয়েছে এমন সমস্ত দৃশ্য ও অ্যাকশন সিকোয়েন্স যা দেখে তাক লেগে যাবে দর্শকদের। এর আগে মৈনাকের কোনও ছবিতেই যা দেখা যায়নি। ছবির কাস্টিংও নিঃসন্দেহে চমকপ্রদই। ছবিতে মুখ্য চরিত্রে রয়েছেন যিশু সেনগুপ্তআবির চট্টোপাধ্যায়। এই ছবির হাত ধরেই প্রথমবার একসঙ্গে, এক ফ্রেমে আসতে চলেছেন এই দুই অভিনেতা।

[আরও পড়ুন: পা ভাঙার পর কেমন আছেন, নিজেই জানালেন অভিনেত্রী ]

প্রসঙ্গত, যিশু এবং আবিরের কেরিয়ার গ্রাফ টলিউডের অনেকের কাছেই ঈর্ষণীয়। যিশু তো টলিউডের পাশাপাশি বলিউডি ছবিতেও কাজ করছেন পাল্লা দিয়ে। জনপ্রিয়তার নিরিখে এই দুই অভিনেতার ব্যক্তিগত রসায়নও ইন্ডাস্ট্রির কাছে চর্চার বিষয়। তবে তার থেকেও যিশু-আবিরের বড়পর্দায় তথা অনস্ক্রিনে টক্কর দেখা ও মূল চরিত্রে যৌথভাবে সেলুলয়েডে দেখার জন্য মুখিয়ে রয়েছেন সিনেপ্রেমীরা।‘বর্ণপরিচয়’ আসলে একটি সাসপেন্স থ্রিলার। সেটির ট্যাগলাইন হল ‘গ্রামার অফ ডেথ’।

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের দিন প্রকাশিত হয়েছে এই ছবির ফার্স্টলুক। ছবিতে যিশু ও আবির ছাড়াও অন্যতম একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে রয়েছেন প্রিয়াঙ্কা সরকার। ছবিতে যিশুর লুক একজন হ্যান্ডসাম হাংকের৷ লেদার জ্যাকেট পরিহিত, মেসি হেয়ার, চোখেমুখে রহস্যের ছাপ। অন্যদিকে আবিরকে দেখা যাবে  নিপাট বাঙালি চেহারায়৷ ব্যাকব্রাশ করা চুল, চোখে চশমা, সাধারণ পোশাকে একদম সাধারণ পরিবারের সদস্য। প্রিয়াঙ্কার লুকটি একেবারে সাধারণ বাঙালি মেয়ের। এই থ্রিলার ছবির স্টান্ট তথা অ্যাকশন দৃশ্যগুলির দায়িত্বভার সামলেছেন সুনীল রডরিগস। যিনি বলিউডে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’, ‘দিলওয়ালে’-র মতো ছবিতে স্টান্ট মাস্টারের কাজ করার পাশাপাশি হলিউডেও কাজ করেছেন।

ছবির কাহিনি আবর্তিত হয়েছে ধনঞ্জয় নামে একজন অ্যালকোহলিক প্রাক্তন পুলিশকর্মীকে ঘিরে৷ একটি সিরিয়াল কিলারের মামলার প্রতি ভয়ঙ্কর আসক্ত হয়ে পড়েন। ওই সিরিয়াল কিলারের নাম অর্ক। এই আসক্তির জেরে ধীরে ধীরে নিজের কাজ, পরিবার, মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন তিনি। ছবি জুড়ে রয়েছে খুনি আর পুলিশের ইঁদুর-বেড়াল খেলা। শুভ-অশুভের দ্বৈরথের এই নাগরদোলায় ঝুলতে থাকে ‘মৃত্যুর ব্যাকারণ’। দুই চরিত্রের এহেন টানাপোড়েনের উত্তেজনার ভরপুর রোলার কোস্টার রাইডের পরিণতি কী হবে, তার উত্তর মিলবে সিনেমার পর্দায়।

[আরও পড়ুন: ‘আমি মোদি নই, তাই আমার বায়োপিকেরও দরকার নেই’, টুইট মমতার]

ছবির সংগীত পরিচালনা ও গীতরচনার দায়িত্ব সামলেছেন অনুপম রায়। সিনেমাটোগ্রাফার রম্যদীপ সাহা। সম্পাদনায় সংলাপ ভৌমিক। নিবেদনে শ্রীকান্ত মোহতা ও মহেন্দ্র সোনি। ইতিমধ্যেই ছবির শুটিং শেষ গিয়ে চলছে ডাবিং-সহ অন্যান্য পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ। মৈনাকের এই ছবি ঘিরে সে দর্শকমহলে ইতিমধ্যেই চড়তে শুরু করেছেন উন্মাদনার পারদ৷ তার আঁচ পাওয়া গিয়েছে ছবির ফার্স্ট লুক প্রকাশের পর থেকেই। এখন পর্দায় যিশু-আবিরের মৃত্যুর ব্যাকরণ গাথার দ্বৈরথ ঠিক কতটা টানটান হয় তার অপেক্ষায় শুরু প্রহর গোনার পালা। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে চলতি বছরের জুলাইয়ের মধ্যে  মুক্তি পেতে পারে এই ছবি।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং