৩০ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৮  সোমবার ১৪ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

টাকার জন্য মিথ্যে প্রশংসা করতে হয়েছে, ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ প্রসঙ্গে বিস্ফোরক অমিত কুমার

Published by: Suparna Majumder |    Posted: May 11, 2021 4:40 pm|    Updated: May 11, 2021 5:11 pm

Amit Kumar says he was told to praise Indian Idol 12 contestants | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রিয়ালিটি শো ‘ইন্ডিয়ান আইডল ১২’-এর (Indian Idol 12) কিশোর কুমার স্পেশ্যাল এপিসোড নিয়ে জোর চর্চা নেটদুনিয়ায়। শোয়ে কিংবদন্তি কিশোর কুমারকে (Kishore Kumar) শ্রদ্ধা জানিয়ে গান গেয়েছিলেন দুই বিচারক নেহা কক্কর (Neha Kakkar) এবং হিমেশ রেশমিয়া (Himesh Reshammiya)। যা একেবারেই পছন্দ হয়নি দর্শকদের একাংশের। শোয়ের নিম্নমান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তাঁরা। এমন পরিস্থিতিতেই ‘ইন্ডিয়ান আইডল’ শোয়ের চলতি মরশুমের বিশেষ এই এপিসোডের নিন্দায় সরব হলেন কিশোরপুত্র অমিত কুমার (Amit Kumar)।

রিয়ালিটি শোয়ের বিশেষ এই এপিসোডের অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন অমিত কুমার। তবে এপিসোডটি সম্প্রচারিত হওয়ার পরই তার নিন্দায় সরব হন তিনি। এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রশ্নের উত্তরে অমিত কুমার জানান, তিনি টাকা পেয়েছিলেন বলেই শোয়ে অতিথি হয়ে গিয়েছিলেন। সেখানে তাঁকে প্রত্যেকের প্রশংসা করতে বলা হয়েছিল। আর সেই কারণেই তিনি সকলের প্রশংসা করেছিলেন। কিন্তু প্রতিযোগীদের বেসুরো গান অমিত কুমারের একদম পছন্দ হয়নি। শো ছেড়ে বেরিয়ে আসতে ইচ্ছে করছিল তাঁর। কখন শুটিং শেষ হবে তার অপেক্ষা করছিলেন। তবে টাকা যেহেতু নিয়েছিলেন সেই কারণে পেশাদার হিসেবে অতিথি বিচারকের আসনে বসেছিলেন বলে জানান অমিত কুমার। 

[আরও পড়ুন: বিপদের বন্ধু! পরিচালক বিরসার আত্মীয়ার জন্য বেডের বন্দোবস্ত করে দিলেন মিমি]

অমিত কুমারের মতে তাঁর বাবা কিশোর কুমারের মতো কিংবদন্তির গান গাওয়া কারও পক্ষেই সম্ভব নয়। বিশেষ করে আজকের প্রজন্মের এই গায়কদের পক্ষে তো একেবারেই কিশোর কুমারের প্রতিভার ধারে কাছে যাওয়া সম্ভব নয়। এই প্রজন্ম কেবল ‘রূপ তেরা মস্তানা’র খোঁজ রাখেন। তবে এরকম হতেই পারে বলে মনে করেন অমিত কুমার। তিনি জানান, শোয়ের প্রতিযোগী এবং বিচারকদের প্রতি তাঁর যথেষ্ট সম্মান রয়েছে। এমন একেক দিন হয়েই থাকে। সব গান কিংবা সমস্ত সিনেমা ভাল হতে পারে না। কিছু ভাল হলে কিন্তু মন্দও থাকে। যেমন ‘ইন্ডিয়ান আইডল ১২’-এর কিশোর কুমার স্পেশ্যাল এপিসোডটি বেশ ‘বোরিং’ ছিল বলেই মনে করেন তিনি। তবুও পেশাদারিত্বের খাতিরে যা বলতে বলা হয়েছিল তাই বলেছেন ক্যামেরার সামনে। 

[আরও পড়ুন: ফের ফ্রন্টলাইনে দেব, নিজের রেস্তরাঁ থেকে কোভিড রোগীদের বিনামূল্যে দিচ্ছেন খাবার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement