৪ ভাদ্র  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২২ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গেম শোয়ে ফের কাঞ্চন। ২২ জুলাই থেকে ‘কালার্স বাংলা’-য় শুরু হচ্ছে নতুন নন ফিকশন গেম শো ‘অদল বদল’। সোম থেকে শনি বিকেল সাড়ে পাঁচটায়। এবং শোয়ের উপস্থাপক আবার কাঞ্চন মল্লিক। অনেকদিন বাদে কাঞ্চনকে এমন আউটডোরে জনতার মাঝে শো সঞ্চালনা করতে দেখা যাবে। আক্ষরিক অর্থেই পাড়ায় পাড়ায়, একদম বাড়ি বাড়ি যাবেন তিনি মানুষের সঙ্গে খেলতে। আর খেলতে খেলতেই মানুষ জিতে নিতে পারেন রোজকার ব্যবহারের প্রয়োজনীয় গ্যাজেটস। বা খেলতে খেলতেই হাতছাড়াও করতে পারেন বাড়ির সাজানো টেলিভিশন সেট-টি। অর্থাৎ কাঞ্চন যেমন দেবেন হাতভরে, আবার নিয়েও নিতে পারেন যদি আপনি খেলায় হারেন। চ্যানেলের বক্তব্য, একদম আন্তর্জাতিক মানের শো-এর ফরম্যাটে বাঁধা হয়েছে ‘অদল বদল’-কে। বাড়ির পুরনো জিনিস ‘আপগ্রেড’ করে নেওয়া যাবে সহজ খেলা জেতার মাধ্যমে। অর্থাৎ পুরনো ফ্রিজের বদলে নতুন ঝাঁ চকচকে ফ্রিজ-ও পাওয়া যেতে পারে কয়েকটা সহজ প্রশ্নের সঠিক উত্তর দিতে পারলেই।

[আরও পড়ুন:  ‘গ্যাংস্টার গঙ্গা’য় জটিলতা বাড়াতে আসছেন তারাসুন্দরীরূপী চান্দ্রেয়ী]

গেম শো তো অনেক হয়, কোনটা টানল কাঞ্চন মল্লিককে?
“প্রায় সাড়ে চার কি পাঁচ বছর আমি কোনও গেম শো হোস্ট করিনি। তার ওপর এটা সেট ওরিয়েন্টেড নয়। আমি জানি গরমে প্রচণ্ড পরিশ্রম হবে, ঘাম হবে, হোক। একটা নতুন ধরনের কিছু তো করলাম। এটা একদম জেলা-কলকাতা সব মিলিয়ে হবে। শুটিং শুরু হয়ে গিয়েছে। বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের সঙ্গে ডিরেক্ট কানেকশন হওয়ার জায়গা থাকছে। আমি যেহেতু আগে ‘জনতা এক্সপ্রেস’ করেছি, আই লাভ দ্যাট ডিরেক্ট কানেকশন। সাজানো গোছানো সেট ভিত্তিক শো এটা নয়। আমার কাছে কোনও সেলিব্রিটি নেই, পার্টিসিপেন্ট সাধারণ মানুষই আমার সেলিব্রিটি। এই মানুষগুলোকেই সেলিব্রিটি বানাতে আমি বাড়ি বাড়ি যাব। আমরা সবাই একটু বেশি ভাল থাকতে চাই, যেমন আছি তার থেকে। যার অডি আছে, সে বিএমডব্লু চায়। যার স্টোভ আছে সে গ্যাস চায়। যার গ্যাস আছে সে ইনডাকশন, কুকার চায়। আমি তাদের ইচ্ছাপূরণ করতে যাব।’’ হাসতে হাসতে বললেন কাঞ্চন।

[আরও পড়ুন: দেশকে কেন কলুষিত করছেন? মোদিকে কটাক্ষ করে গ্রেপ্তার ‘বিগ বস’ খ্যাত আজাজ খান]

সঞ্চালক যাবেন পুরনো টিভি-ফ্রিজ-কমপিউটার, হ্যান্ডসেট-আইপড যা কিছু বদলে দিতে। তিনটে প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। দুটো ঠিক হলেই নতুন জিনিস পেয়ে যাবেন খেলায় অংশগ্রহণকারী। আর উত্তর দুটো ভুল হলেই পুরনোটাও নিয়ে চলে যাবেন সঞ্চালক তথা চ্যানেল! মজা এবং ঝুঁকি সেখানেই। আর একেবারে খেলা শেষের সঙ্গে সঙ্গে নতুন জিনিস পাওয়ার আনন্দও আছে এবং পুজোর আড়াই মাস আগেই। এবার দেখার ‘অদল বদল’ কেমন পছন্দ হয় মানুষের।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং