BREAKING NEWS

১১ কার্তিক  ১৪২৭  বুধবার ২৮ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

লকডাউনে বন্ধ কাজ, আর্থিক সমস্যায় পড়েছেন মুম্বইয়ের বাঙালি অভিনেত্রী সায়ন্তনী ঘোষ

Published by: Sandipta Bhanja |    Posted: May 10, 2020 9:54 am|    Updated: May 10, 2020 9:54 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা মোকাবিলায় দেশে বর্তমানে তৃতীয় পর্বের লকডাউন চলছে। বিগত দেড় মাস ধরেই অফিস-কাছারি, স্কুল-কলেজ থেকে শুরু করে সিনেমা-ধারাবাহিকের শুটিং সমস্ত কাজ বন্ধ। অন্যান্য ক্ষেত্রের মতো বিনোদুনিয়াতেও যে বড়সড় আর্থিক ধ্বস নামতে চলেছে, তা বোধহয় আর আলাদা করে বলার অপেক্ষা রাখে না। দৈনন্দিন পারিশ্রমিকের ভিত্তিতে যারা কাজ করেন, তাদের উদ্দেশে ইতিমধ্যেই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন বলিউড তারকারা। কিন্তু অনেকে অভিনেতা-অভিনেত্রীরাই রয়েছেন মুম্বইতে, এই মুহূর্তে যাঁরা সংসার সামলাতে হিমশিম খাচ্ছেন। হিন্দি টেলিভিশন জগতে ‘নাগিন’ খ্যাত অভিনেত্রী সায়ন্তনী ঘোষ ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার মাধ্যমে সেসব সমস্যার কথাই তুলে ধরেছেন।

সায়ন্তনী ঘোষের কথায়, “ভীষণই সমস্যার মধ্যে রয়েছে। যে কাজগুলির জন্য আমার পারিশ্রমিক পাওনা রয়েছে, তাঁরা কেউ টাকা দিতে অস্বীকার করছেন না! অথচ, এই পরিস্থতিতে তাঁরা টাকা দেবেনই বা কীভাবে? সব অফিসই তো বন্ধ। আমরা অনেকেই এই সমস্যার মধ্যে দিন কাটাচ্ছি। অনেকগুলি কাজের জন্য আমার পারিশ্রমিক আটকে রয়েছে। এদিকে, আমার বাড়ি ও গাড়ির EMI আটকে রয়েছে। আপাতত না হয় EMI ২-৩ মাসের জন্য বন্ধ রাখলাম। সরকারের তরফে EMI-এর ক্ষেত্রে এমনই নির্দেশিকা রয়েছে। কিন্তু আমাকে তো আমার সংসারটাও চালাতে হবে। এতদিন না হলেও এবার ধীরে ধীরে সমস্যা হওয়া শুরু করেছে।”

[আরও পড়ুন: ‘খাবারের কোনও জাত-ধর্ম হয় না’, রমজানে দুস্থদের খাবার বিলি করছেন অভিনেত্রী সানা খান]

দৈনন্দিন পারিশ্রমিকের ভিত্তিতে রোজগেরে কর্মীদের নিয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন অভিনেত্রী। তাঁর মন্তব্য, “এই পরিস্থিতিতে যাঁরা দিনমজুর, কিংবা সবে কাজ শুরু করেছেন ইন্ডাস্ট্রিতে, তাঁদের জন্য চিন্তা হচ্ছে। তাঁরা কীভাবে চালাবেন! প্রত্যেকটা মানুষের কর্মক্ষেত্রে সমস্যা তৈরি হয়েছে।” লকডাউন উঠে গেলেও শুটিং করা কতটা নিরাপদ হবে এই সময়ে? উদ্বিগ্ন সায়ন্তনী। “লকডাউনের পর আবারও হয়ত নতুন করে কাজকর্ম শুরু করার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। তবে কাগজ কলমে কাজের কথা দেখতে-শুনতে ভাল লাগলেও যাঁরা ময়দানে নেমে কাজ করবেন, সেখানে একটার ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে! শুটিং সেটের প্রত্যেকের সুরক্ষা গুরুত্বপূর্ণ। শুটিংয়ের সময়ে এই সেট থেকে ওই সেটে যাওয়া, কিংবা এতগুলো লোকের মাঝে শুটিং করার জন্যে একটা ঝুঁকি তো থেকেই যায়। সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকবে কীভাবে? এমনও বলা হয়েছে যে, অভিনেতারা শুটে এলে আর বাড়ি ফিরবেন না, আপাতত সেখানেই থাকবেন”, বললেন অভিনেত্রী।   

[আরও পড়ুন: করোনা মোকাবিলায় বিদেশেও সাহায্য শাহরুখের, দুস্থদের পাশে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্স]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement