১৭  আষাঢ়  ১৪২৯  শনিবার ২ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

প্রধানমন্ত্রী ‘লার্জার দ্যান লাইফ’, ছবি মুক্তির আগে প্রশংসায় পঞ্চমুখ বিবেক

Published by: Bishakha Pal |    Posted: April 3, 2019 8:42 pm|    Updated: April 3, 2019 8:42 pm

Vivek Oberoi asks ahead of Modi Biopic, 'Why Are People Overreacting?'

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মোদির বায়োপিকের মুক্তি নিয়ে এখন রীতিমতো উত্তেজনায় ফুটছে অনুরাগীরা। এই শুক্রবারই সিনেমাহলগুলিতে মুক্তি পাবে ছবিটি। কিন্তু তার আগে বিরোধীদের তোপের মুখে পড়েছে ছবিটি। কিন্তু কেন এভাবে প্রধানমন্ত্রীর বায়োপিক নিয়ে জলঘোলা হচ্ছে, তা বুঝে উঠতে পারছেন না বিবেক ওবেরয়। তিনি বলেছেন, ‘মোদির বায়োপিক নিয়ে মানুষ বাড়াবাড়ি করছে। বলা হচ্ছে আমরা নাকি ওনাকে লার্জার দ্যান লাইফ হিসেবে দেখিয়েছি। কিন্তু কাকে দেখাব? উনি তো এমনিতেই লার্জার দ্যান লাইফ।’

৫ এপ্রিল মুক্তি পাওয়ার কথা ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবিটির। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জীবনকাহিনি তুলে ধরা হয়েছে ছবিতে। ট্রেলার মুক্তির পর থেকেই এই বায়োপিক রীতিমতো চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। কংগ্রেস-সহ গেরুয়া শিবিরের বিরোধী দলগুলি অভিযোগ তুলতে শুরু করেছে ভোটের আগে মোদির বায়োপিক মুক্তির সিদ্ধান্ত নেওয়া বিজেপির একটি রাজনৈতিক কৌশল। অভিষেক মনু সিংভি ও কপিল সিব্বল জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছেন। সোশ্যাল মিডিয়াতেও উঠছে অভিযোগ। বলা হচ্ছে ছবিতে নাকি মোদিকে ‘লার্জার দ্যান লাইফ’ হিসেবে দেখানো হয়েছে। এই সব ব্যাপার নিয়েই অবাক অভিনেতা বিবেক ওবেরয়।

ছবিতে তিনি নরেন্দ্র মোদির ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। কথা প্রসঙ্গে অভিনেতা জানিয়েছেন, “আমি বুঝতে পারছি না কেন কিছু মানুষ এভাবে বাড়াবাড়ি করছে। অভিষেক সিংভিজি আর কপিল সিব্বলজি PIL ফাইল করেছেন কেন? ওঁরা কি ছবি নিয়ে ভয় পেয়েছেন নাকি চৌকিদারের ডান্ডাকে ভয় পেয়েছেন? আমরা মোদিজিকে লার্জার দ্যান লাইফ হিসেবে দেখাইনি। উনি তো এমনিতেই লার্জার দ্যান লাইফ। আমরা ওনাকে হিরো বানাইনি। উনি তো ইতিমধ্যেই হিরো। আমার একার জন্য নয়, কোটি কোটি মানুষের জন্য। তাঁর জীবন একটা অনুপ্রেরণামূলক গল্প। সেটাই আমরা পর্দায় তুলে ধরেছি।”

[ আরও পড়ুন: প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে প্রকাশ্যে ‘কলঙ্ক’-এর ট্রেলার, নজর কাড়লেন আলিয়া ]

মোদির বায়োপিক নিয়ে ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন হাই কোর্টে দায়ের হয়েছে মামলা। বম্বে হাই কোর্টের তরফে নির্বাচন কমিশনের কাছে বিস্তারিত জানতে চাওয়া হয়েছে। আদালতের তরফে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রককে এও জানানো হয়েছে, ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবির ট্রেলার যেন সমস্ত সোশ্যাল সাইট থেকে তুলে নেওয়া হয়। আবেদনে বলা হয়েছে, ছবিটি যে দিনে ও সময়ে মুক্তি পাবে, তা যদি হয়, তবে সেটি নির্বাচন বিধির নীতি লঙ্ঘন করবে। সেই আবেদনের ভিত্তিতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাই কোর্ট।

কিন্তু দিল্লি হাই কোর্ট ইতিমধ্যেই ক্লিনচিট দিয়ে দিয়েছে ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’-কে। আদালতের তরফে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, নির্ধারিত সময়েই মুক্তি পাবে ছবিটি। এবিষয়ে কোনও আইনি জটিলতা নেই। কিন্তু শুধু দিল্লি হাই কোর্টের ছাড়পত্র পেলেই তো হল না, দেশের একাধিক আদালতে এই বায়োপিক নিয়ে ইতিমধ্যেই দায়ের হয়েছে মামলা। সেসব কাটিয়ে নির্ধারিত দিনে ছবিটি মুক্তি পাবে কিনা, সেটাই এখন দেখার।

[ আরও পড়ুন: রিয়া সেনের জীবনে ‘মিসম্যাচ’! নেপথ্যে কে? ]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে