BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২২ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সাগরদিঘিতে শুরু আপেল চাষ, বিপুল অর্থলাভের সম্ভাবনা

Published by: Sayani Sen |    Posted: December 25, 2019 7:16 pm|    Updated: December 25, 2019 7:16 pm

An Images

শাহজাদ হোসেন, ফরাক্কা: মুর্শিদাবাদ জেলায় এবার শুরু হল আপেল চাষ। সৌজন্যে সাগরদিঘির বাহালনগরের কাশ্মীরে জঙ্গিহানায় নিহত পাঁচ শ্রমিক। মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সাগরদিঘির কৃষি মান্ডিতে ১০ একর জমিতে শুরু হয়েছে আপেল গাছ লাগানোর কাজ। প্রাথমিক পর্যায়ে বারোশো আপেল চারা গাছ লাগানো শুরু হয়েছে। কাশ্মীর থেকে প্রাণভয়ে ফিরে আসা আপেল বাগানে কর্মরত শ্রমিকদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগিয়ে আপেল চাষে উদ্যোগী হয়েছে মুর্শিদাবাদ জেলা প্রশাসন।

ইতিমধ্যেই সাগরদিঘিতে কিষান মাণ্ডিতে আপেল বাগান তৈরির কাজ শেষ হয়েছে। আপেল গাছ লাগানো চলছে জোরকদমে। গাছ লাগানোর তৃতীয় বছর থেকেই ফলন শুরু হবে। এক একটি গাছে প্রথম বছরে পঞ্চাশটি করে আপেল ধরবে। পাঁচ বছরে একটি গাছে আড়াইশো থেকে তিনশো আপেল ধরবে। এক একটি গাছ থেকে দু’হাজার টাকা। পাঁচ বছর পর থেকে বছরে প্রায় সাড়ে নয় হাজার টাকার লাভের মুখ দেখবেন চাষিরা। জুন-জুলাই মাস নাগাদ ফলন স্থানীয় বাজারে মিলবে।

Apple-Cultivation

স্থানীয় আপেলের বাজারদর সাধারণ মানুষের নাগালের মধ্যে থাকবে। দশ একর জমিতে ১২০০টি আপেল গাছ পরিচর্যার জন্য দশটি পরিবারকে নিয়োগ করেছে প্রশাসন। এর ফলে অবসর সময়ে বাড়তি আয়ের জন্য স্থানীয় শ্রমিকদের ভিনদেশে যেতে হবে না। প্রশাসনের এই উদ্যাগে খুশি স্থানীয় বাসিন্দারা।

Apple-Cultivation
[আরও পড়ুন: পিঁয়াজ চাষ করেই জ্যাকপট! রাতারাতি কোটিপতি বেঙ্গালুরুর কৃষক]

এ প্রসঙ্গে সাগরদিঘির যুগ্ম বিডিও অরুণাভ মণ্ডল বলেন, “মুর্শিদাবাদ জেলার মধ্যে প্রথম সাগরদিঘি ব্লকে আপেল চাষের কাজ শুরু হয়েছে। স্থানীয়দের কর্মসংস্থানের জন্য এই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। ১০টি বাগান করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে ১২০০টি আপেল গাছ লাগানো হচ্ছে। আপেল বাগানে কাজ করা স্থানীয় শ্রমিকদের অভিজ্ঞতাকে কাজে লাগানো হবে।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement