BREAKING NEWS

০৯ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  বুধবার ২৫ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে বাড়ি ফিরলেন শতায়ু বৃদ্ধা, উষ্ণ অভ্যর্থনা প্রতিবেশীদের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 22, 2020 9:08 pm|    Updated: May 22, 2020 9:11 pm

after losing son to COVID-19, centenarian granny wins battle against virus

হাসপাতাল থেকে বাড়ির পথে শতায়ু বৃদ্ধা

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কয়েকদিন আগে করোনায় মৃত্যু হয়েছিল ছেলের। সেই মারণ ভাইরাসকে কুপোকাত করেই জীবনযুদ্ধে জয়ী হলেন ১০০ বছরের চন্দ্র বাই। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোরে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ৪ মে ইন্দোরের নেহেরু নগরের বাসিন্দা চন্দ্রাদেবীর মেজো ছেলে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তার দুদিন পরেই তাঁদের পরিবারের ১৬ জন সদস্যের করোনা পরীক্ষা করা হয়। গত ১০ মে স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে দেওয়া রিপোর্টে জানা যায়, চন্দ্রা বাই, তাঁর ছোট ছেলে, নাতি, নাতির স্ত্রী ও তাঁদের দুই সন্তানের শরীরে করোনার জীবাণু রয়েছে। তারপর তাঁদের ছ’জনকে ইন্দোরের শ্রী অরবিন্দ ইনস্টিটিউট মেডিক্যাল সায়েন্সেস (SAIMS) হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানে ১১ দিন ধরে মরণের সঙ্গে অসম লড়াই করার পর জীবনযুদ্ধে জয়ী হন শত বসন্ত পার করা চন্দ্রাদেবী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সুস্থ অবস্থায় হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় তাঁকে। তারপর বাড়ি ফিরতেই করতালির মাধ্যমে তাঁকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান প্রতিবেশীরা।

[আরও পড়ুন: আর্থিক প্যাকেজ কেন্দ্রের ‘নির্দয় রসিকতা’, মোদি সরকারের সমালোচনায় মুখর সোনিয়া]

এপ্রসঙ্গে SAIMS হাসপাতালের সিনিয়র চিকিৎসক ডা. রবি দোশী বলেন, ‘ওই বৃদ্ধা হাসপাতালে যখন ভরতি হন তখন তাঁর অল্প জ্বর ছাড়া আর কোনও উপসর্গ ছিল না। যেখানে করোনায় আক্রান্ত বয়স্ক রোগীদের দীর্ঘসময় ধরে অক্সিজেন দিতে হচ্ছে। সেখানে ওনাকে অল্প কয়েকদিনের জন্য অক্সিজেন দিতে হয়। আসলে পরিবারের সঙ্গে আরও সময় কাটানোর ইচ্ছাই তাঁকে এই মারণ ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করার শক্তি দিয়েছে। এমনকী আমরা চিকিৎসকরা যখন অন্য রোগীদের নিয়ে হতাশ হয়ে পড়ছিলাম তখন উনিই আমাদের অনুপ্রাণিত করার চেষ্টা চালিয়ে গিয়েছে। নিজের সন্তানকে হারানোর পরেও যেভাবে তিনি করোনাকে হারিয়ে দিলেন তা অবিশ্বাস্য।’

[আরও পড়ুন: ইউনিফর্মের রং অনুযায়ী রঙিন মাস্ক পরতে হবে, নির্দেশ নৌসেনার]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে