Advertisement
Advertisement

কাঠুয়া কাণ্ডের ছায়া, মন্দিরেই পুরোহিতদের হাতে গণধর্ষিতা শিশুকন্যা

দুই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

2 priests allegedly harassed  5-year-old inside temple

ফাইল ছবি।

Published by: Bishakha Pal
  • Posted:October 4, 2018 12:00 pm
  • Updated:October 4, 2018 12:00 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাঠুয়া কাণ্ডের ছায়া এবার মধ্যপ্রদেশে। পাঁচ বছরের শিশুকন্যাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল দুই পুরোহিতের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের দাতিয়া জেলায়। মন্দিরের ভিতরে ওই মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

অভিযোগ, পাঁচ বছরের ওই মেয়েটিকে মিষ্টির লোভ দেখিয়ে মন্দিরের মধ্যে নিয়ে যায় পুরোহিতরা। সেখানে তাঁকে গণধর্ষণ করা হয়। ধর্ষণের পর মেয়েটিকে তার বাড়িতেও ছেড়ে দিয়ে আসে ‘দায়িত্ববান’ পুরোহিতরা। সেই সঙ্গে হুমকি দেয়, যদি সে ঘুণাক্ষরেও ধর্ষণের কথা কাউকে জানায়, তবে ফল ভাল হবে না।

Advertisement

কিন্তু ঘটনার কথা বেশি দিন চাপা থাকেনি। মেয়েটি তার বাড়িতে কিছু প্রকাশ করেনি ঠিকই। কিন্তু তার মা বুঝতে পারেন মেয়ের সঙ্গে খারাপ কিছু হয়েছে। কয়েকদিন ধরেই পেট ব্যথা হচ্ছিল শিশুর। প্রথমে সে ঘটনার কথা প্রকাশ করতে চায়নি। কিন্তু পরে সে সব জানায় মাকে। তখনই প্রকাশ্যে আসে ঘটনাটি।

Advertisement

মুসলিম বলে মেলেনি সুবিচার, মৃত ছেলের জন্য ধর্মান্তরিত হলেন বাবা ]

সব কিছু জানাজানি হওয়ার পর পুলিশে অভিযোগ দায়ের করে মেয়েটির পরিবার। অভিযোগের ভিত্তিতে দু’জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের নাম রাজু পন্ডিত ও বাতোলি প্রজাপতি। প্রথম জনের বয়স ৫৫ বছর, দ্বিতীয় জনের ৪৫। দু’জনেই মন্দিরের পুরোহিত। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারায় তাদের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়েছে। এছাড়া পকসো আইনেও মামলা দায়ের হয়েছে দুই পুরোহিতের বিরুদ্ধে। পুলিশের সন্দেহ এর আগে আরও অনেক নাবালিকার শ্লীলতাহানি করেছে তারা।

২০১৭ সালের ডিসেম্বরে বিল পাশ হয় যে ১২ বছরের নিচে কোনও নাবালিকাকে ধর্ষণ করলে দোষীর শাস্তি হবে মৃত্যুদণ্ড। মধ্যপ্রদেশেই প্রথম এই বিল পাশ হয়। তারপর সেই একই রাজ্যে এমন ঘটনায় অবাক অনেকেই। তবে বিল পাশের পর এই প্রথম যে এমন ঘটল তা নয়। ২০১৮ সালে ইন্দোরের রাজওয়াড়া এলাকায় এক চার মাসের শিশুকে ধর্ষণ করার অভিযোগ ওঠে তারই কাকার বিরুদ্ধে। বাড়ির ছাদ থেকে ওই শিশুর রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করেছিল পুলিশ।

মায়ার খেলা! মধ্যপ্রদেশ-রাজস্থানে আলাদা লড়ার সিদ্ধান্ত বিএসপির ]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ