২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২৭ কার্তিক  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নোট বাতিল-সহ মোদি সরকারের কয়েকটি আর্থিক নীতির সমালোচনা করায় অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের গায়ে অনেকে মোদি বিরোধী তকমা সেঁটে দিয়েছিল। গেরুয়াপন্থীদের একাংশ তাঁকে ব্যক্তিগত আক্রমণও শুরু করেছিলেন। কিন্তু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে সাক্ষাতের দিনই নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বুঝিয়ে দিলেন তিনি কারও পক্ষে বা কারও বিরোধী নন। সাধারণ মানুষ এবং অর্থনীতির স্বার্থেই কথা বলেন তিনি। অভিজিৎবাবুর দাবি, সংবাদমাধ্যমের একাংশ তাঁকে ফাঁদে ফেলে মোদি বিরোধী কথা বলানোর চেষ্টা করছে। আর সেকথা প্রধানমন্ত্রী নিজেও জানেন।


মঙ্গলবার সকাল সকাল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে দেখা করেন অভিজিৎবাবু। দু’জনের মধ্যে বেশ কিছুক্ষণ ধরে আলোচনা হয় একাধিক বিষয় নিয়ে। বাঙালি নোবেলপ্রাপকের সঙ্গে কথা বলে অভিভূত প্রধানমন্ত্রী টুইট করে তাঁর মুগ্ধতার কথা প্রকাশ করেছেন। নোবেল প্রাপ্তির পর ভারতের বর্তমান আর্থিক পরিস্থিতি সম্পর্কে মতামত জানতে চাওয়া হলে রাখঢাক না রেখেই অভিজিৎবাবু জানিয়েছিলেন, আর্থিক পরিস্থিতি বেশ উদ্বেগজনক। অর্থনীতি ধ্বংসের পথে। ঘুরে দাঁড়াতে হলে, লড়াইয়ে বেগ পেতে হবে।

[আরও পড়ুন: অযোধ্যা মামলায় রাতারাতি সুর বদল মসজিদের দাবিদার আনসারির]


বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে অবশ্য প্রধানমন্ত্রী বিরোধী সুরটা অনেকটাই নরম করলেন অভিজিৎবাবু। বললেন, “প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ এতটা সময় দেওয়ার জন্য। উনি ধৈর্য ধরে আমার কথা শুনেছেন। আমাদের দুজনেরই অর্থনীতি সম্পর্কে মতামত ছিল। উনি শুধু আর্থিক পরিস্থিত নয়, তাঁর নেপথ্যের কথাও শুনেছেন। ” এরপরই দারিদ্র দূরীকরণে প্রধানমন্ত্রীর জনধন প্রকল্প, আয়ুষ্মান ভারতের প্রশংসা শোনা যায় তাঁর মুখে। তিনি বলেন, “বর্তমান ভারতে চিকিৎসার জন্য প্রচুর টাকা খরচ হয়। পরিবারের একজন কেউ অসুস্থ হলে গোটা পরিবারকে সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। টাকা দিয়েও উপযুক্ত পরিষেবা পাওয়া যায় না। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে কথা হয়েছে। এ বিষয়ে ভাল কাজও হয়েছে। আয়ুষ্মান ভারত এখানে খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়েছে। আমাদের স্বাস্থ্য পরিষেবার খরচ অনেকটাই কমিয়েছে এই প্রকল্প।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং