BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ইয়েস ব্যাংকে অ্যাকাউন্ট রয়েছে? জেনে নিন কী ধরনের সমস্যায় পড়তে পারেন

Published by: Sulaya Singha |    Posted: March 6, 2020 7:03 pm|    Updated: March 6, 2020 7:03 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার হানায় দারুণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ভারতের শেয়ার বাজার। শুক্রবার সকাল থেকেই নিম্নগামী সেনসেক্সের সূচক। হু হু করে পড়তে শুরু করে ইয়েস ব্যাংকের শেয়ারের দামও। বাজার খোলার কিছুক্ষণের মধ্যেই ৮০ শতাংশ কমে যায় শেয়ারের মূল্য। এর ফলে জরুরি ভিত্তিতে বৈঠকে বসেন অর্থ মন্ত্রকের আধিকারিকরা। আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ সাধারণ মানুষকে আশ্বস্ত করে জানান, ভয়ের কোনও কারণ নেই। ইয়েস ব্যাংককে এই পরিস্থিতি থেকে তুলে আনতে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে তাতেও গ্রাহকদের মন থেকে আতঙ্ক দূর হচ্ছে না।

ইয়েস ব্যাংককে রক্ষা করতে বৃহস্পতিবার তাদের বোর্ড অফ ডিরেক্টরের থেকে ক্ষমতা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয় ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাংক (RBI)। এরপর এদিন শেয়ার বাজারে ধস নামার চিন্তার ভাঁজ পড়ে গ্রাহকদের কপালে। এমন পরিস্থিতিতে বেশ কিছু বাধানিষেধ লাগু করা হচ্ছে। এবার প্রশ্ন হল, আপনারও যদি ইয়েস ব্যাংকে (Yes Bank) সেভিংস বা কারেন্ট অ্যাকাউন্ট থাকে, সেক্ষেত্রে কী কী সমস্যার সম্মুখীন হবেন?

[আরও পড়ুন: দেউলিয়ার পথে ইয়েস ব্যাংক! ৫০ হাজার টাকার বেশি তোলার উপর জারি নিষেধাজ্ঞা]

১. রিজার্ভ ব্যাংকের নয়া নির্দেশিকা অনুযায়ী, ইয়েস ব্যাংকের সেভিংস অথবা কারেন্ট অ্যাকাউন্ট থেকে ৫০ হাজার টাকার বেশি তোলা যাবে না। ফিক্সড ডিপোজিটের ক্ষেত্রেও একই নিয়ম প্রযোজ্য।
২. আপনার যদি একই শাখায় একাধিক অ্যাকাউন্ট থাকে সেক্ষেত্রেও টাকা তোলার উর্ধ্বসীমা ৫০ হাজার। এই নিয়ম চালু থাকবে অন্তত ৩ এপ্রিল পর্যন্ত।
৩. আপাতত এই ব্যাংক থেকে নতুন করে কোনও লোন নেওয়া যাবে না। টাকা লগ্নিও করা যাবে না। ব্যাংক আর কোনও বকেয়া পেমেন্ট দেবে না এবং কোনও দায়ও নেবে না।
৪. পড়াশোনা, বিয়ে ও অন্যান্য অনুষ্ঠান থাকলে কিংবা চিকিৎসার ক্ষেত্রেই শুধুমাত্র পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত তোলা যাবে। এই ব্যাংকে ২৮.৬ লক্ষ সেভিংস অ্যাকাউন্ট রয়েছে। যেখানে গচ্ছিত আছে ২.০৯ লক্ষ কোটি টাকা।

এবার জেনে নেওয়া যাক, এই বাধানিষেধের জন্য আপনার ইএমআই কিংবা এসআইপিতে কী প্রভাব পড়তে পারে।

১. আপনার ইএমআই কিংবা এসআইপি যদি ৫০ হাজার টাকার বেশি হয়, সেক্ষেত্রে সমস্যায় পড়তে পারেন।
২. আপনার স্যালারি অ্যাকাউন্টটি যদি ইয়েস ব্যাংকে থাকে তবে তা অন্য ব্যাংকে স্থানান্তর করে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ। কারণ ৫০ হাজারের বেশি টাকা তুলতে পারবেন না।
৩. মিউচুয়াল ফান্ড ইনভেস্টমেন্টের ক্ষেত্রে কি ইয়েস ব্যাংকের সেভিংস অ্যাকাউন্টটি লিংক করে রেখেছেন? তাহলে সময় নষ্ট না করে এখনই ব্যাংক বদলে ফেলুন। নাহলে টাকা তুলতে জটিলতার সম্মুখীন হবেন।
৪. ব্যাংক দেউলিয়া হলে কী হবে? পাঁচ লক্ষ টাকা পর্যন্ত আপনার অর্থ সুরক্ষিতই থাকবে। তবে অ্যাকাউন্টে তার বেশি অর্থ থাকলে কিন্তু তা ফেরত না পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনায় থরহরিকম্প দেশে, সংক্রমণ এড়াতে বৃন্দাবনেও বন্ধ হোলি উৎসব]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement