২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কৃষি বিলের প্রতিবাদে আজ ভারত বনধ কৃষকদের, রুদ্ধ পাঞ্জাব, হরিয়ানা! রাজ্যেও শুরু বিক্ষোভ

Published by: Biswadip Dey |    Posted: September 25, 2020 8:59 am|    Updated: September 25, 2020 9:05 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আজ নতুন কৃষি বিলের (Farm Bill 2020) প্রতিবাদে পাঞ্জাবের বেশ কয়েকটি কৃষি সংগঠন ‘ভারত বনধ’ ডেকেছে। এই বনধকে সমর্থন করেছে শাসক কংগ্রেস ও বিরোধী আপ দুই দলই। তবে এই বনধ শেষ পর্যন্ত সীমাবদ্ধ থাকবে পাঞ্জাবেই। প্রসঙ্গত, ইতিমধ্যেই রাজ্যসভায় (Rajya Sabha) পাশ হয়ে গিয়েছে বিতর্কিত তিনটি কৃষি বিল।

বিল পাশের সময় ৮ বিরোধী সাংসদের বিরুদ্ধে উচ্চকক্ষে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির অভিযোগ উঠেছিল। সোমবার রাজ্যসভার চেয়ারম্যান এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু তাঁদের সাসপেন্ড করেন। কেবল রাজ্যসভা নয়, সারা দেশেই কৃষকরা শুরু করেছেন প্রতিবাদ আন্দোলন।

[আরও পড়ুন: বেঙ্গালুরুর হিংসার ঘটনার তদন্তে দিনভর তল্লাশি NIA’র, গ্রেপ্তার ‘মূল অভিযুক্ত’ ]

শুক্রবারের ভারত বনধ ডেকেছে পাঞ্জাবের ৩১টি কৃষি সংগঠন। হরিয়ানার ‘ভারতীয় কিষান ইউনিয়ন’ জানিয়েছে, তারা কোনও কোনও সংগঠনের দেশব্যাপী বনধের প্রস্তাবকেও সমর্থন করেছেন। এক বিবৃতিতে পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং জানিয়েছেন, তাঁর সরকার কৃষকদের পাশে রয়েছে। সেই কারণে আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে ১৪৪ ধারা ভঙ্গের কোনও অভিযোগ নথিবদ্ধ করা হবে না। এদিকে কৃষি বিলের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী প্রতিবাদ আন্দোলন শুরু করে দিয়েছে কংগ্রেসও। কৃষি বিলের বিরুদ্ধে ২ কোটি স্বাক্ষর সংগ্রহের অভিযান শুরু করেছে তারা। যুব কংগ্রেস দেশের নানা স্থানে পথে নেমে বিক্ষোভ দেখিয়েছে কংগ্রেসের মুখপাত্র অভিষেক সিংভি মোদি সরকারকে অভিযুক্ত করে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী বিলের ব্যাপারে সকলকে ভুল বুঝিয়েছেন। তাঁর দাবি, এই বিলের ফলে দেশের কৃষক শ্রেণি কর্পোরেট দাসত্বের শিকার হবে।

 

[আরও পড়ুন: ‘কাশ্মীরিরা নিজেদের ভারতীয় মনে করেন না, চিনা শাসনই তাঁদের পছন্দ’, বিস্ফোরক ফারুক আবদুল্লা]

প্রতিবাদের ঢেউ এসে পৌঁছেছে এরাজ্যেও। রাজ্যেও বিভিন্ন কৃষক সংগঠন বিক্ষোভ প্রদর্শন শুরু করেছে। মেয়ো রোডে ধরনা শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই পরিস্থিতিতে কৃষি বিলের সপক্ষে কৃষকদের নিয়ে জেলায় জেলায় মিছিল করার পরিকল্পনা নিয়েছে গেরুয়া শিবির। বৈঠক হবে কৃষকদের বাড়ি গিয়েও। তাঁদের বোঝানো হবে, এই বিল থেকে লাভবান হবেন কৃষকরাই।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement