BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

গেহলট সরকারের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ, সিবিআই তদন্তের দাবি বিজেপির

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 18, 2020 11:47 am|    Updated: July 18, 2020 11:47 am

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানে সরকার বাঁচাতে মরিয়া অশোক গেহলট  (Ashok Gehlot) নিয়মবহির্ভূতভাবে বিরোধীদের ফোন ‘ট্যাপ’ করছেন। রাজ্যে এক অঘোষিত ‘জরুরি অবস্থা’ চলছে। এবার এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুলল বিজেপি(BJP)। অশোক গেহলটের সরকারের বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়েছে তাঁরা।

‘রাজস্থানে সরকার ফেলার চেষ্টা করছে বিজেপি।’ গেরুয়া শিবিরের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে শুক্রবারই মামলা দায়ের করেছিল কংগ্রেস (Congress)। হাত শিবিরের তরফে প্রমাণস্বরূপ দুটি অডিও টেপ প্রকাশ করা হয়েছিল। কংগ্রেস মুখপাত্র রণদীপ সিং সুরজেওয়ালা (Randeep Singh Surjewala) দাবি করেছিলেন, “দুটি অডিও বার্তায় স্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে যে, রাজস্থানের এক শীর্ষ বিজেপি নেতা এবং কেন্দ্রীয় জলশক্তি মন্ত্রীর সঙ্গে সরকার ফেলার দর কষাকষি করছে দুই দলীয় বিধায়ক। এর ভিত্তিতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গজেন্দ্র সিং শেখাওয়াতের (Gajendra Singh Shekhawat) নামে এফআইআর করা হয়েছে।” এবার কংগ্রেসের সেই অভিযোগের পালটা এল গেরুয়া শিবির থেকেও। বিজেপি আগেই ওই অডিও টেপের সত্যতা অস্বীকার করেছিল। এবার তাঁদের পালটা প্রশ্ন, কংগ্রেস যে অডিও টেপ প্রকাশ করেছে তা কোথা থেকে এল? তাহলে কি রাজস্থানে বিরোধী নেতাদের ফোন ট্যাপ করা হচ্ছে? আর যদি করা হয়ে থাকে তাহলে সেটা কি আইন মেনে হচ্ছে?

[আরও পড়ুন: রাজস্থানের বিক্ষুব্ধ কং বিধায়কদের বিরুদ্ধে এখনই ব্যবস্থা নয়, আদালতের রায়ে স্বস্তিতে পাইলট শিবির]

শনিবার বিজেপি নেতা সম্বিত পাত্র (Sambit Patra) এক সাংবাদিক বৈঠকে রাজস্থানের ‘টেপ’ কাণ্ডে সিবিআই তদন্ত দাবি করেছেন। পাত্রর অভিযোগ,”রাজস্থানের এই টালমাটাল পরিস্থিতির জন্য বিজেপি দায়ী নয়। এটা কংগ্রেসের ঘরের ঝামেলা। ওদের পাপের ফল। আমরা আগেও বলেছি ওই অডিও টেপ নকল।” বিজেপি মুখপাত্র বলছেন, “আমরা অশোক গেহলটকে কয়েকটা প্রশ্ন করতে চাই। আপনি কি নিয়ম মেনে ফোন ট্যাপ করেছেন? নাকি চাপে পড়ে সব বিরোধীদের ফোন ট্যাপ করছেন? রাজস্থানে কি জরুরি অবস্থা চলছে?”

[আরও পড়ুন: মনমোহন জমানায় রেকর্ড হারে ‘গরিবি’ কমেছে ভারতে, অক্সফোর্ডের গবেষণায় মিলল তথ্য]

এদিকে কংগ্রেস শিবির থেকে আরও একটি চাঞ্চল্যকর খবর পাওয়া গিয়েছে। প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর সঙ্গে ফোনালাপের সময়  শচীন পাইলট নাকি দাবি করেছিলেন, এক বছরের মধ্যে তাঁকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করতে হবে। সেই ‘অযৌক্তিক’ দাবির পরই তাঁকে দলের সব পদ থেকে সরানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। অর্থাৎ একটা জিনিস স্পষ্ট, পাইলট যতই বলুন তিনি বিজেপিতে যোগ দেবেন না, কংগ্রেসে ফেরার রাস্তা তাঁর জন্য একপ্রকার বন্ধ। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement