২৬ বৈশাখ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ধর্ষণ মামলার দ্রুত তদন্তে উদ্যোগ, পাঁচ হাজার ‘বিশেষ কিট’ কিনছে কেন্দ্র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 22, 2018 8:59 pm|    Updated: July 22, 2018 9:06 pm

Centre Buys 5,000 Rape Probe Kits For Speedy Investigation: Official

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশে লাগাতার বেড়েই চলেছে ধর্ষণের সংখ্যা৷ সংসদের দাঁড়িয়ে সে হিসাবও জানিয়েছে কেন্দ্র৷ কিন্তু, ধর্ষণ রুখতে আদৌ কি কোনও পদক্ষেপ নিচ্ছে নরেন্দ্র মোদির সরকার? নানা মহল থেকে বারংবার এই একই প্রশ্ন উঠলেও নীরব থেকেছে কেন্দ্র৷ দেশজুড়ে লাগাতার সমালোচনার মুখে পড়ে এবার পদক্ষেপ নিচ্ছে কেন্দ্র৷ দেশজুড়ে বেড়ে চলা ধর্ষণের ঘটনায় দ্রুত তদন্তের লক্ষ্যে পাঁচ হাজার বিশেষ কিট কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রক৷ প্রতিটি থানায় পাঁটটি বিশেষ কিট পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে বলে মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে৷ প্রাথমিকভাবে থানাগুলিকে পাঁচটি কিট দেওয়া হচ্ছে কেন্দ্রের তরফে। পরবর্তীকালে সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারকে ৩০০ থেকে ২০০ টাকা দামের এই কিটটি কিনতে আর্জি জানানো হয়েছে৷

[মহাজোটের নেতা রাহুলই, ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক শেষে সিদ্ধান্ত কংগ্রেসের]

কী বিশেষ সুবিধা রয়েছে এই কিটে? জানা গিয়েছে, ধর্ষণের অভিযোগ প্রমাণ করাতে ওই কিটগুলির সাহায্যে নির্যাতিতার শারীরিক পরীক্ষার করা হবে৷ ওই কিট ব্যবহার করে রক্ত ও ঘামের মতো নমুনাও সংগ্রহ করা যাবে৷ কয়েক মিনিটের মধ্যেই ধর্ষণের প্রমাণ পাওয়া যাবে বলে জানা গিয়েছে৷ এই কিট ব্যবহারের ফলে কমবে তদন্তের সময়৷ কিটের রিপোর্টের ভিত্তিতে তদন্ত শুরুও করেতে পারবে পুলিশ৷ নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, বেশিরভাগ যৌন নির্যাতনের অভিযোগ উপযুক্ত পরিকাঠামোর অভাবে ও ঘটনার ফরেনসিক রিপোর্ট জমা না পড়ার কারণে পার পেয়ে যায় অভিযুক্তরা৷ সম্প্রতি প্রকাশিত রিপোর্ট বলছে, প্রতি বছর প্রায় ১৩ হাজার ধর্ষণ মামলা খারিজ হয়ে যায় তথ্যপ্রমাণ ও ফরেনসিক রিপোর্টের অভাবে৷ ফলে, এবার থেকে পরিকাঠামোর অভাবে যাতে কোনও অভিযুক্ত ছাড়া না পায়, সে ব্যাপারে আরও কড়া পদক্ষেপ নিতেই এই ব্যবস্থা জানানো হয়েছে৷  

[স্কুল পালিয়ে বাড়ি ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার কিশোরী]

এমনিতেই, দেশজুড়ে মাত্রা ছাড়িয়েছে ধর্ষণের মতো গুরুতর অপরাধ৷ তথ্য বলছে,  ২০১৬ সালে দেশে ৩৮৯৪৭টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে৷ ২০১৫ সালে ধর্ষণের সংখ্যাটা ছিল ৩৪৬৫১ ও ২০১৪ সালে ৩৬৭৩৫টি৷ ২০১৬ সালে নারী-নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৩৩৮৯৫৪টি৷ ২০১৫ ও ২০১৪ সালে নারী-নির্যাতনের সংখ্যা ছিল যথাক্রমে ৩২৯২৪৩ ও ৩৩৯৪৫৭টি৷ ফলে, ক্রমাগত বেড়ে চলা এই অপরাধ ঘটনা রুখতেই কেন্দ্রের উদ্যোগ৷

[ধর্ষকের কোনও জাত নেই, সমাজ থেকে ‘রাক্ষস’ বিদায়ের ডাক নোবেলজয়ীর]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে