Advertisement
Advertisement
Delhi

প্রবল গরমে দিল্লিতে মৃত বেড়ে ২০, হাসপাতালের জন্য বিশেষ নির্দেশিকা কেন্দ্রের

দ্রুত হিটওয়েভ ইউনিট চালু করতে আধিকারিকদের নির্দেশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেপি নাড্ডার।

Centre issues guidelines for Delhi hospital as death toll rises to 20

প্রতীকী ছবি।

Published by: Anwesha Adhikary
  • Posted:June 19, 2024 10:38 pm
  • Updated:June 19, 2024 10:39 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তর ভারতে চোখ রাঙাচ্ছে দাবদাহ। কেবল দিল্লির তিন হাসপাতালেই প্রবল গরমের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন ২০ জন। চিকিৎসাধীন রয়েছেন আরও অনেকেই। এহেন পরিস্থিতিতে সরকারি হাসপাতালগুলোর জন্য বিশেষ নির্দেশিকা জারি করল কেন্দ্র। হিটস্ট্রোকে আক্রান্তদের জন্য জরুরি ভিত্তিতে চিকিৎসা করতে হবে বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে সরকারি হাসপাতালগুলোকে।

জানা গিয়েছে, বুধবার হাসপাতালগুলোর জন্য জারি হয়েছে বিশেষ নির্দেশিকা। সদ্যই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের দায়িত্ব নেওয়া মন্ত্রী জেপি নাড্ডা (JP Nadda) দিল্লির (Delhi) সমস্ত সরকারি হাসপাতালের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছেন। হিটস্ট্রোকের চিকিৎসা করতে হাসপাতালগুলো আদৌ প্রস্তুত কিনা সেই নিয়েও তিনি খোঁজ নিয়েছেন। আধিকারিকদের নির্দেশ দিয়েছেন, যেন দ্রুত হিটওয়েভ ইউনিট চালু করা হয় যেখানে হিটস্ট্রোকে আক্রান্তদের চিকিৎসা করা সম্ভব হবে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: ভোটে ধাক্কার পরেই ‘অন্নদাতা’দের কল্যাণ মোদির! ১৪ শস্যের MSP বাড়াল কেন্দ্র

উল্লেখ্য, দিল্লির তিনটি বড় হাসপাতালে গরমে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২০। তার মধ্যে গত দুদিনেই মৃতের সংখ্যা ১২। কেবল দিল্লি নয়, গোটা উত্তর ভারত যেন উনুনে বসানো তপ্ত কড়াই! আর সেই কড়াইয়ে কার্যত ভাজা ভাজা অবস্থা সেখানকার বাসিন্দাদের। গত ২৪ ঘণ্টাতেই নয়ডায় মারা গিয়েছেন অন্তত ১০ জন। গরমে অসুস্থ আরও বহু মানুষ। এহেন পরিস্থিতিতে দিল্লির বিপর্যয় মোকাবিলা আধিকারিকদের তরফে আমজনতাকে বিশেষভাবে সতর্ক থাকতে বলা হয়েছে।

Advertisement

প্রসঙ্গত, কেবল দিনের বেলা নয় রাতেও দিল্লির তাপমাত্রা থাকছে খুব বেশি। সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ভেঙেছে গত ১২ বছরের রেকর্ড। ২০১২ সালের জুনে গড়ে ৩৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রাই ছিল এযাবৎকালের রেকর্ড। সেই রেকর্ড ভেঙে গিয়েছে। বুধবার দিল্লির সর্বনিম্ন তাপমাত্রাই ছিল ৩৫.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। তবে এহেন পরিস্থিতিতে আশ্বাস দিচ্ছে আবহাওয়ার পূর্বাভাস। হাওয়া অফিস জানিয়েছে ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যেই পশ্চিমী ঝঞ্ঝার কারণে দিল্লি ও পার্শ্ববর্তী অঞ্চলে বৃষ্টি হতে পারে। ফলে মিলতে পারে স্বস্তি। তবে তা সাময়িক বলেই জানাচ্ছেন আবহাওয়াবিদরা।

[আরও পড়ুন: মুখ্যমন্ত্রী থেকে বিরোধী দলনেতা, আড়াই দশক পর ওড়িশায় ‘কুরসি বদল’ নবীন পট্টনায়েকের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ