২২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ৯ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

আলপনা এঁকে CAA’র অভিনব প্রতিবাদ, চেন্নাইয়ে আটক পাঁচ আন্দোলনকারী

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 29, 2019 5:30 pm|    Updated: December 29, 2019 5:31 pm

Chennai police detained 5 for drawing ‘kolams’ in protest against CAA .

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার দোরে-দোরে আলপনা (কোলাম) এঁকে CAA, NRC’র প্রতিবাদ দক্ষিণ ভারতে। রবিবার সকালে ছয় যুবক-যুবতী মিলে চেন্নাইয়ের বেসান্ত শহরে অভিনব কায়দায় প্রতিবাদ শুরু করেন। বাড়ির সামনে, রাস্তায় CAA, NRC বিরোধী বার্তা দিয়ে আলপনা বা রঙ্গোলি আঁকছিলেন। সেই খবর পেয়ে চেন্নাই পুলিশ ওই ছ’জনকে আটক করে। তাঁদের স্বপক্ষে কথা বলতে এসে আটক হন দুই বর্ষীয়ান আইনজীবীও। আটক প্রতিবাদীদের অভিযোগ, গলা টিপে প্রতিবাদকে হত্যা করতে চাইছে পুলিশ। কোনওরকম উপযুক্ত কারণ ছাড়াই আন্দোলনকারীদের আটক করা হচ্ছে। যদিও পুলিশের সাফাই, রাস্তায় আলপনা এঁকে আমজনতার সমস্যা তৈরি করছিলেন ওঁরা। চলে যেতে বললেও কথা শোনেননি। তাই বাধ্য হয়ে আটক করেছি।

 

সংসদে নাগরিকত্ব (সংশোধিত) বিল পাশ হওয়ার পর থেকেই দেশজুড়ে বিক্ষোভ চলছে। কোথাও সহিংস প্রতিবাদ তো কোথাও আবার নিঃশব্দ ধরনা। কেউ গান গেয়ে প্রতিবাদ করেছেন তো কেউ আবার কবিতা লিখে। এবার সেই পথে হেঁটেই রবিবার বেসন্ত নগরের রাস্তায় আলপনা এঁকে প্রতিবাদ জানাচ্ছিলেন গায়েত্রী, আরতি, কল্যাণী, প্রগতি ও মদন। সেসময় রাস্তায় টহলরত একটি পুলিশ ভ্যান ঘটনাস্থলে হাজির হয়। বিনা অনুমতিতে জমায়েতের অজুহাতে তাঁদের আটক করে। সেসময় এক আন্দোলনকারী টুইটার হ্যান্ডেলে গোটা ঘটনার ভিডিওটি পোস্ট করেন। সেই পোস্ট দেখে বেসন্ত নগরে আইনজীবী ও সমাজকর্মীরা জড়ো হন। আটক ছজনের হয়ে সওয়াল করতে গিয়ে দুই আইনজীবী আটক হন।

[আরও পড়ুন : ‘এনআরসি ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়’, মন্তব্য বাংলাদেশ বর্ডার গার্ডের প্রধানের]

পুলিশের সাফাই, “ওঁরা কোনও অনুমতি না নিয়ে জমায়েত করেছিলেন। আলপনা এঁকে প্রতিবাদ জানাচ্ছিল। সাধারণ মানুষের অসুবিধা হচ্ছিল। যান চলাচলে সমস্যা হচ্ছিল। ওঁদের চলে যেতে বললেও কথা শোনেননি। তাই আটক করতে বাধ্য হয়েছি।” তবে পুলিশের যুক্তি মানতে নারাজ আন্দোলনকারী গায়েত্রী। তাঁর কথায়, “আমি একজন আইনজীবী। আমি জানি অবৈধ জমায়েত কাকে বলে। আর  এর আগে আমরা অনুমতি চেয়েছিলাম। কিন্তু কোনও অনুমতি দেওয়া হয়নি। তাই এদিন কয়েকজন মিলে কোলাম আঁকার সিদ্ধান্ত নিই। কারোর কোনও অসুবিধা হচ্ছিল না। প্রতিবাদ আটকাতেই এসব করছে পুলিশ।” 

[আরও পড়ুন : ‘গান্ধী পরিবারের মেয়েকে হেনস্তা করা হলে, আম জনতার কী হবে?’ আতঙ্কিত শত্রুঘ্ন]

পুলিশের ভূমিকা ক্ষুব্ধ তামিলনাড়ুর বিরোধী দল ডিএমকে-র নেতা স্ট্যালিন। তাঁর কথায়, “প্রতিবাদ গণতান্ত্রিক অধিকার। সেই অধিকার ক্ষুণ্ণ করার অধিকার সরকারের নেই। ওঁদের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া অভিযোগ এখনি তুলে নেওয়া প্রয়োজন।”  

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে