BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

জাতীয় সড়ক প্রকল্পের কোনও বরাত পাবে না চিনা সংস্থা, জানালেন গড়কড়ি

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 1, 2020 4:24 pm|    Updated: July 1, 2020 4:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চিনকে ফের প্রত্যাঘাত ভারতের! বিএসএনএল (BSNL)-রেলের(Indian Railway) বরাত থেকে আগেই ঘাড়ধাক্কা দেওয়া হয়েছে চিনা সংস্থাকে। ডিজিটাল স্ট্রাইক করা হয়েছে ৫৯টি চিনা অ্যাপের (App) উপর। সেই রেশ কাটার আগেই ফের বড় ঘোষণা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নীতীন গড়কড়ির (Nitin Gadkari)। জানিয়ে দিলেন, দেশের জাতীয় সড়ক (National Highway) তৈরির বরাতও পাবে না চিনের (China) কোনও সংস্থা। এমনকী, ভারতের কোনও সংস্থার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধলেও জাতীয় সড়ক প্রকল্পে অংশ নিতে দেওয়া হবে না। বুধবার সংবাদ সংস্থা পিটিআই সূত্রে এমনটাই খবর মিলেছে। 

গত দু’মাস ধরেই ভারত-চিনের স্নায়ুযুদ্ধ চলছে। পূর্ব লাদাখ সীমান্তে চিনের আগ্রাসী মনোভাবের জন্য ১৫ জুন এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সাক্ষী থেকেই গালওয়ান উপত্যকা। শহিদ হয়েছেন ২০ ভারতীয় জওয়ান। এরপর থেকে বেজিংকে ভাতে মারতে প্রস্তুত হচ্ছে কেন্দ্র সরকার। একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আত্মনির্ভর ভারতেরও স্বপ্নও সফল করতে চেষ্টা করছে মোদি সরকার। সেই উদ্দেশ্যেই এবার জাতীয় সড়ক প্রকল্পগুলি থেকে চিনা সংস্থাগুলিকে ঘাড়াধাক্কা দেওয়ার প্রস্তুতি সেরে ফেলেছে কেন্দ্র।

[আরও পড়ুন : চিনকে ভাতে মারার কাজ শুরু, চিনা সংস্থার বরাত বাতিল করল BSNL]

এ প্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতীন গড়কড়ি সংবাদ সংস্থা পিটিআইকে জানিয়েছেন, জাতীয় সড়ক প্রকল্পে কোনও চিনা সংস্থাকে বরাত দেওয়া হবে না। যারা ভারতের কোনও সংস্থার সঙ্গে যৌথভাবেও ব্যবসা করছেন, তাঁরাও এই বরাত পাবেন না। প্রসঙ্গত, নীতীন গড়কড়ি মাঝারি, ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প মন্ত্রকের দায়িত্বেও আছেন। তিনি জানান, এই ক্ষেত্রেও কোনও চিনা সংস্থাকে গাঁটছড়া বাঁধতে দেওয়া হবে না। এই সিদ্ধান্তের ফলে চিন যে ফের বড় ধাক্কা খাবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। 

[আরও পড়ুন : লাদাখে নতুন ‘সীমানা’ তৈরির দাবি চিনের! দু’দেশের সেনাকর্তাদের তৃতীয় বৈঠকও ‘নিষ্ফলা’]

এর আগে বিএসএনএল চিনা সংস্থার বরাত বাতিল করেছিল। রেলের তরফে একই কাজ করা হয়। এরপর একই পথে হেঁটেছে মুম্বই মনোরেল। ওয়াকিবহাল মহলের কথায়, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত চিনকে যেমন আর্থিকভাবে কোণঠাসা করা যাবে, তেমনই ভারতীয় সংস্থার সামনে নতুন দরজা খুলে যাবে।  তৈরি হবে নতুন কর্মসংস্থানও।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement