BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

যুদ্ধের আবহে দিল্লি-মীরাট সড়ক প্রকল্পে সুড়ঙ্গ নির্মাণের বরাত পেল চিনা সংস্থা

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: June 16, 2020 5:57 pm|    Updated: June 16, 2020 6:02 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখ সীমান্তে ক্রমেই আগ্রাসী হয়ে উঠছে চিন। সদ্য লাল ফৌজের আগ্রাসন ঠেকাতে গিয়ে শহিদ হয়েছেন ভারতীয় সেনার তিন জওয়ান। এহেন অস্থির সময়ে দিল্লি-মীরাট RRTS (Regional Rapid Transit System) project-এর আওতায় সুড়ঙ্গ নির্মাণের টেন্ডার বাগিয়ে নিয়েছে একটি চিনা প্রতিষ্ঠান। আর তা নিয়েই দেখা দিয়েছে বিতর্ক। এ কেমন ‘আত্মনির্ভর’ ভারত, উঠছে প্রশ্ন।

[আরও পড়ুন: লাদাখে চিনের ছোবল, প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে জরুরি বৈঠকে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং]

জানা গিয়েছে, দিল্লি-মীরাট RRTS (Regional Rapid Transit System) project-এর আওতায় নিউ অশোকনগর থেকে সাহিবাবাদ পর্যন্ত প্রায় ৫.৬ কিলোমিটার আন্ডারগ্রাউন্ড রাস্তা তৈরি হবে। এর জন্য নিয়ম মাফিক টেন্ডার ডাকা হয়। জুনের ১২ তারিখ প্রক্রিয়া শেষে দেখা যায় ‘লোয়েস্ট বিডার’ বা সবথেকে কম মূল্যে সুড়ঙ্গটি নির্মাণ করার দাবি পেশ করেছে চিনা সংস্থা Shanghai Tunnel Engineering Co Ltd (STEC)। ১ হাজার ১২৬ কোটি টাকায় কাজটি করতে রাজি হয়েছে সংস্থাটি। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে ভারতীয় সংস্থা Larsen & Toubro Ltd (L&T)। তারা এই কাজের জন্য ১ হাজার ১৭০ কোটি টাকা খরচের খতিয়ান দিয়েছে। ফলে নিয়ম মতে টেন্ডারটি পাচ্ছে চিনা সংস্থা।

এই ঘটনায় রীতিমতো বিতর্ক শুরু হয়েছে দেশজুড়ে। রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের শাখা সংগঠন ‘স্বদেশি জাগরণ মঞ্চ’ দাবি জানিয়েছে কোনও কারণেই যেন এই প্রকল্পের বরাত চিনা সংস্থাটিকে না দেওয়া হয়। সংগঠনটির বক্তব্য, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দেশকে ‘আত্মনির্ভর’ হওয়ার পাঠ দিয়েছেন। এমন সময় কোনও চিনা সংস্থাকে বরাত দেওয়া হলে এর তীব্র প্রতিবাদ হবে। কেন্দ্র সরকারের কাছে এই বরাত বাতিল করার দাবিও জানিয়েছে সংগঠনটি।

উলেখ্য, লাদাখে চিনা ফৌজের হামলায় শহিদ হয়েছেন তিন ভারতীয় জওয়ান। ক্রমেই বাড়ছে যুদ্ধের আশঙ্কা। এহেন টালমাটাল সময়ে গোটা পরিস্থিতি পর্যালোচনায় মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। এর আগে তিন বাহিনীর প্রধান ও সিডিএস বিপিন রওয়াতের সঙ্গে বৈঠক করেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী। এহেন সময়ে স্বাভাবিকভাবেই চিনা সংস্থার উপর ক্ষোভ বাড়ছে দেশজুড়ে।

[আরও পড়ুন: লাদাখে ফের ভারত-চিনের ‘সংঘর্ষ’, শহিদ এক আধিকারিক-সহ তিন সেনা জওয়ান]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement