BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৩ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

বিদেশির মতো দেখতে, করোনা ছড়াতে পারেন! আতঙ্কে দুই মণিপুরী পড়ুয়াকে হেনস্তা

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 9, 2020 7:54 pm|    Updated: April 9, 2020 7:54 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিদেশিদের মতো দেখতে! তাঁদের থেকে নাকি করোনা সংক্রমণ ছড়াতে পারে! এই ধারণার ভিত্তিতে হায়দরাবাদের সুপারমার্কেটে ঢুকতে দেওয়া হল না মণিপুরের দুই পড়ুয়াকে। গোটা ঘটনার একটি ভিডিও টুইটারে ভাইরাল হয়। এদিকে বুধবার দুপুরের এই ঘটনায় দ্রুত কড়া পদক্ষেপ করেছে তেলেঙ্গানা প্রশাসন। ইতিমধ্যে ওই সুপার মার্কেটের ম্যানেজার ও দুই নিরাপত্তারক্ষীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গোটা ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরণ রিজিজু। তাঁর কথায়, বর্ণ বৈষম্যের ঘটনা অত্যন্ত নিন্দনীয়। কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, বুধবার দুপুরে মণিপুরী দুই পড়ুয়া হায়দরাবাদের বনস্থলিপুরম এলাকায় স্টার সুপারমার্কেটে বাজার করতে এসেছিলেন। তাঁরা মার্কেটে ঢুকতে গেলেই বাধা দেওয়া হয়।বারবার হেনস্তা করা হয় বলে অভিযোগ। প্রথমে নিরাপত্তারক্ষী তাঁদের পরিচয় জানতে চান। দুজনই নিজেদের আধার কার্ড দেখান। তারপরও তাঁদের আটকানো হয় বলে অভিযোগ। এরপর তাঁদের তেলেগু ভাষায় কথা বলতে বাধ্য করা হয়। ফের তাঁদের ম্যানেজারের সঙ্গে দেখা করতে বলেন অভিযুক্ত নিরাপত্তারক্ষী। কোনও বাজার না করেই তাঁরা ফিরে আসেন। দুই পড়ুয়ার এক বন্ধু জোনাহ সম্প্রতি টুইটারে শেয়ার করেছেন ঘটনার দিনের ভিডিও। সেখানে দেখা গিয়েছে সুপারমার্কেটে ঢোকার সময়েই দু’জনকে বাধা দেন দুই নিরাপত্তারক্ষী। কারণ জিজ্ঞেস করলে তাঁরা সাফ বলেন, “তর্ক করবেন না। ম্যানেজারের সঙ্গে কথা বলুন।“ জোনাহ নিজের টুইটে লিখেছেন, “আমার বন্ধুদের সমস্যায় পড়তে দেখে আশপাশের একজনও সাহায্য করতে এগিয়ে আসেননি। এটা খুবই দুঃখের।” এই টুইটটি দেখেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কিরেন রিজিজু। ঘটনার ব্যাপারে বিস্তারিত জানতেও চেয়েছেন তিনি।

[আরও পড়ুন: সবুজ সংকেত DRDO’র, এবার রেল ওয়ার্কশপেই তৈরি হচ্ছে PPE]

তিনজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছেন ওই দুই পড়ুয়া। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় যেন দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হয় সেই নির্দেশই দিয়েছেন তেলেঙ্গানার মন্ত্রী কেটি রামা রাও। একই ধরণের ঘটনা ঘটেছে কর্ণাটকেও। উত্তর-পূর্ব ভারতের নাগাল্যান্ডের পরিযায়ী শ্রমিকদের খাবার কিনতে বাধা দেওয়া হয় বলেও অভিযোগ উঠেছে। তবে এ ধরণের কোনও ঘটনা বরদাস্ত করা হবে না বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী।

[আরও পড়ুন: ত্রাণসামগ্রী নিয়ে গন্ডগোলের জের, বৃদ্ধকে পিটিয়ে খুন করল প্রতিবেশী]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement