১১ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  সোমবার ২৫ মে ২০২০ 

Advertisement

করোনার মার দেশের কর্মসংস্থানেও, মার্চে ৪৩ মাসের রেকর্ড ভাঙল বেকারত্বের হার

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: April 7, 2020 2:44 pm|    Updated: April 7, 2020 2:44 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার জেরে বিশ্ব অর্থনীতিতে মন্দার মার। রাষ্ট্রসংঘ আগেই রিপোর্ট প্রকাশ করেছিল, করোনার জেরে গোটা বিশ্বে প্রায় ২.৫ কোটি মানুষ কাজ হারাবেন। রাষ্ট্রসংঘের সতর্কবাণীই সত্যি হচ্ছে ভারতে। ইতিমধ্যে দেখা যাচ্ছে, করোনা মোকাবিলায় দেশজুড়ে লকডাউনের প্রভাব ব্যাপকভাবে পড়েছে দেশের কর্মসংস্থানে। গত এক সপ্তাহে বেকারত্ব লাফিয়ে বেড়েছে দেশে। ২৩.৮ শতাংশ বেড়েছে বেকারত্ব। যা দেশের অর্থনীতির জন্য যথেষ্ট উদ্বেগের।

দেশের অর্থনীতির থিংক ট্যাঙ্ক সেন্টার ফর মনিটরিং ইন্ডিয়ান ইকোনমির (CMIE) সাম্প্রতিক রিপোর্টে কপালে ভাঁজ ফেলার মতো পরিসংখ্যান দেখা গিয়েছে। রিপোর্ট বলছে, শুধু মার্চ মাসে লকডাউনের জেরে রেকর্ড ৩৮.২ শতাংশে নেমেছে কর্মসংস্থানের হার। চলতি বছর জানুয়ারির পর এমন ভয়াবহ পরিস্থিতি দেখা গিয়েছে কর্মসংস্থানের ক্ষেত্রে। CMIE’র রিপোর্টে আরও উল্লেখ, দেশে শ্রমবণ্টনের হার মার্চ মাসে ৪১.৯ শতাংশ, যা ফেব্রুয়ারি মাসে ছিল ৪২.৬ শতাংশ। তার মানে লকডাউনের আগে থেকে শ্রমবণ্টনের হার কমতে শুরু করেছিল। বেকারত্বের এই পরিসংখ্যান গত ৪৩ মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ, বলছেন অর্থনীতিবিদরা।

[আরও পড়ুন: এক সপ্তাহের মধ্যে ১৭ হাজার ছুঁতে পারে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা, উদ্বেগ বাড়াচ্ছে পরিসংখ্যান]

এদিকে, করোনা আতঙ্কে বছরের শুরু থেকেই কম হয়েছে আন্তর্জাতিক পর্যটকদের আনাগোনা। লক ডাউনের পর পুরো বন্ধ পর্যটন। যা কিনা অনেকের ঘরে আঁধার ডেকে এনেছে। এই সমস্যা থেকে নিস্তার পেতে পর্যটন সংস্থাগুলি সরকারের কাছে ২০ দফা দাবি পেশ করেছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল, কর্মীদের বেতনের জন্য আর্থিক সাহায্য, আগামী এক বছর পুরোপুরি করছাড়, বিমানের টিকিট বাতিলে পুরো টাকা ফেরত, জিএসটি মকুব ইত্যাদি। যদিও এ নিয়ে সরকার এখনও নিজেদের অবস্থান জানায়নি।

[আরও পড়ুন: ১৪ এপ্রিলের পর বাড়তে পারে লকডাউনের সময়সীমা? কী বলছে কেন্দ্র?]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement