BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

বাড়ি বাড়ি ঘুরে অনুপ্রবেশকারী খুঁজছে রাজ ঠাকরের দল, দায়ের অভিযোগ

Published by: Paramita Paul |    Posted: February 23, 2020 7:50 pm|    Updated: February 23, 2020 7:58 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাড়ি-বাড়ি ঢুকে অনুপ্রবেশকারীর খোঁজ চলছে। নাগরিকত্বের উপযুক্ত নথি না দেখাতে পারলেই ঘাড় ধরে পুলিশের কাছে হাজিরও করা হচ্ছে। রাজ ঠাকরের মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা (MNS)-র সদস্যদের এহেন উৎপাতে প্রাণ ওষ্ঠাগত পুণের বাসিন্দাদের। শেষপর্যন্ত বেআইনিভাবে বাড়িতে ঢুকে কাগজ দেখতে চাওয়ায় MNS-এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করলেন মহারাষ্ট্রের এক বাসিন্দা রোশন নোরশন শেইখ।

শনিবারই মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার তরফে একটি অভিযানের সূচনা করা হয়েছে। সেই অভিযানে অনুপ্রবেশকারীদের শনাক্ত করা হবে। তারপর তাদের সোজা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হবে। দলের পুণের সভাপতি অজয় শিণ্ডে বলেন, “এটা আমাদের অভিযানের প্রথমভাগ। অনুপ্রবেশকারীদের দেশছাড়া করব।” শনিবারের অভিযানে তাঁরা তিন অনুপ্রবেশকারীকে চিহ্নিত করেন। তারপর তাদের পুণের পুলিশের হাতে তুলে দেন। তাঁরা আরও জানিয়েছেন, “আমরা তল্লাশি চালানোর সময় ওই এলাকা ছেড়ে কয়েকটি পরিবার পালিয়ে যায়।”

[আরও পড়ুন : CAA বিরোধী আন্দোলনে দুই গোষ্ঠীর সংঘর্ষ-ইটবৃষ্টি, রণক্ষেত্র দিল্লি]

কিন্তু কারা অবৈধ সেটা কীভাবে চিহ্নিত করা হচ্ছে? এ প্রসঙ্গে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার পুণে শাখার সভাপতি অজয় শিণ্ডে বলেন, “পুণে ও তৎসংলগ্ন এলাকায় বহু  অনুপ্রবেশকারী থাকেন। তাদের উপর আমি কড়া নজর রেখেছি। সন্দেহভাজন কাউকে দেখলেই, তাঁর বাড়িতে ঢুকে কাগজ দেখতে চাওয়া হচ্ছে।” কিন্তু এভাবে অনুমতি ছাড়া কারোর বাড়িতে ঢোকা বা তাঁদের থেকে কাগজপত্র দেখতে চাওয়া একেবারে বেআইনি। মজার বিষয় হল, এই অভিযানে MNS-এর সঙ্গ দিয়েছে পুলিশও।

[আরও পড়ুন : ছন্দে ফিরছে ভূস্বর্গ, সোমবার থেকে চালু কাশ্মীরের সমস্ত স্কুল]

এ প্রসঙ্গে পুণের ধাংকাভাড়ির জোন-২-এর ডিসিপি শিরীষ সরদেশপাণ্ডে বলেন, “MNS-এর এহেন অভিযান বেআইনি। তাঁরা অনুপ্রবেশকারীদের চিহ্নিত করার বিষয় পুলিশকে সাহায্য করতে পারে। কিন্তু পুলিশকে নিজের কাজ করতে দিতে হবে।” এদিকে যে তিনজনকে অনুপ্রবেশকারী বলে মহারাষ্ট্র নব নির্মাণ সেনার সদস্যরা চিহ্নিত করেছিল। তাদের জেরা করেছে পুলিশ। এমনকী তাদের কাগজপত্রও খতিয়ে দেখেছে। কিন্তু তাঁরা যে  অনুপ্রবেশকারী, সে সম্পর্কে কোনও প্রমাণ মেলেনি। উলটে MNS-এর বিরুদ্ধেই অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement