BREAKING NEWS

১৯  আষাঢ়  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৫ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মোদির বাজেট বৈঠকে গরহাজির নির্মলা, সরকারের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন বিরোধীদের

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: January 10, 2020 9:21 am|    Updated: January 10, 2020 9:30 am

Congress mocks govt as finance minister absent from key pre-budget meet

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বাজেট পেশের আর বেশি দিন বাকি নেই। তার আগে অর্থনীতিবিদ ও বিশেষজ্ঞদের নিয়ে ডাকা নীতি আয়োগের বৈঠকে দেশের আর্থিক অবস্থা নিয়ে আশ্বস্ত করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ভারতের আর্থিক অবস্থার ভিত্তি অনেক সুদৃঢ় বলে দাবি করলেন। বৈঠকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, বাণিজ্য ও রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল, গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী নরেন্দ্র সিং তোমার ও সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নীতীন গড়কড়ি উপস্থিত থাকলেও নির্মলা সীতারমন ছিলেন না। এর ফলে প্রশ্ন উঠল এত গুরুত্বপূর্ণ একটি বৈঠকে অর্থমন্ত্রীর অনুপস্থিতি নিয়ে। বিষয়টি নিয়ে বিজেপিকে কটাক্ষ করা হয়েছে কংগ্রেসের তরফে। সরব হয়েছেন অন্য বিরোধীরাও।

বৃহস্পতিবার নীতি আয়োগের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেন, ‘ভারতের আর্থিক অবস্থার ভিত্তি অনেক সুদৃঢ়। এ নিয়ে অযথা দুশ্চিন্তার কিছু নেই। আর্থিক মন্দ গতির বিষয়টি সাময়িক ঘটনা। অর্থনীতি দ্রুত ঘুরে দাঁড়াবেই।’ প্রধানমন্ত্রী এই কথা বললেও বৈঠকের পরে নির্মলার অনুপস্থিতি নিয়ে টুইট করে কংগ্রেস। কটাক্ষ করে লেখে, একজন মহিলার কাজ করতে কজন পুরুষ লাগবে? টুইটারে ‘Finding Nirmala’ নামে একটি হ্যাশট্যাগও তৈরি হয়। একই প্রশ্ন জানতে চেয়ে টুইট করেন কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরও।

[আরও পড়ুন: লক্ষ্মীর আইনজীবীর নাম থাকবে ক্রেডিটে, ‘ছপাক’ নির্মাতাদের নির্দেশ দিল্লি আদালতের ]

 

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার বিজেপির একটি দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে গিয়েছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। তাই নীতি আয়োগের বৈঠকে উপস্থিত থাকতে পারেননি। কিন্তু, তাঁর বদলে এই বৈঠকে অর্থ দপ্তরের সমস্ত শীর্ষস্তরের আমলারা ছিলেন। আলোচনা খুবই ফলপ্রসূ হয়েছে। বৈঠকে উপস্থিত অর্থনীতিবিদ, বিশেষজ্ঞ ও শিল্পপতিরা অর্থনীতির হাল ফেরাতে নতুন নতুন প্রস্তাব দিয়েছেন।

[আরও পড়ুন: জেএনইউর উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি, বিজেপির অস্বস্তি বাড়ালেন মুরলি মনোহর যোশী ]

 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আগামী ১ ফেব্রুয়ারি পেশ হবে সাধারণ বাজেট। তার আগে দেশের আর্থিক হাল ফেরাতে গত কয়েকদিনে অনেক অর্থনীতিবিদ, শীর্ষস্তরের শিল্পপতি, বিনিয়োগকারী, কৃষি বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে পরপর ১২টি বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী। গতকালের বৈঠকও ছিল খুবই প্রাসঙ্গিক। কারণ বাজেট পেশের আগেই বিশ্ব ব‌্যাংকের পক্ষ থেকে আর্থিক পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে, চলতি আর্থিক বছরে দেশের আর্থিক বৃদ্ধি গত ১১ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম হবে। ফলে সবার নজর রয়েছে অর্থনীতিকে প্রধানমন্ত্রী চাঙ্গা করতে কি কি ব‌্যবস্থা নিচ্ছেন সেইদিকে। সেই পদক্ষেপগুলি আদৌও কোনও কাজে আসছে কিনা। বিশ্ব ব‌্যাংক জানিয়েছে, ২০১৯-২০ অর্থবর্ষে ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির হার থাকবে পাঁচ শতাংশ। তবে আগামী অর্থবর্ষে সেই হারে উন্নতি দেখা যাবে বলেও পূর্বাভাসে জানিয়েছে বিশ্ব ব্যাংক।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে