১৪ মাঘ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

‘জোর করে ধর্মান্তরণ সংবিধান বিরোধী’, মন্তব্য সুপ্রিম কোর্টের

Published by: Anwesha Adhikary |    Posted: December 5, 2022 4:52 pm|    Updated: December 5, 2022 4:54 pm

Forceful conversion is against constitution, says Supreme Court, seeks affidavit form Centre | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জোর করে ধর্মান্তকরণ করা অসাংবিধানিক, কড়া ভাষায় জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। সেই সঙ্গে ধর্মান্তরণ বিরোধী আইন (Anti Conversion Law) প্রসঙ্গে কেন্দ্রের কাছে হলফনামা তলব করল শীর্ষ আদালত। একটি জনস্বার্থ মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতের তরফে বলা হয়, প্রত্যেকটি রাজ্য সরকারের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করতে হবে কেন্দ্রকে। আগামী ১২ ডিসেম্বরের মধ্যে আদালতের কাছে সমস্ত তথ্য পেশ করতে হবে। শুনানি চলাকালীন সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court) আরও জানায়, জোর করে ধর্মান্তরণের বিষয়টি বেশ উদ্বেগজনক। প্রসঙ্গত, ধর্মান্তরণ রুখতে কড়া আইন প্রণয়ন করেছে ভারতের একাধিক রাজ্য।

দেশের নানা প্রান্তে জোর করে সাধারণ মানুষের ধর্ম পরিবর্তন করা হচ্ছে। বেশ কিছু ক্ষেত্রে প্রতারণাকে মানুষের ধর্ম পালটে দেওয়া হচ্ছে। এহেন অভিযোগ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়। সোমবার সেই মামলার শুনানি শুরু হয়। তারপরেই কেন্দ্রের কাছে হলফনামা তলব করে শীর্ষ আদালত। তবে এক্ষেত্রে কেন্দ্র সরকারের মতামত জানতে আগ্রহী নয় সুপ্রিম কোর্ট। ধর্মান্তকরণ বিরোধী আইন প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারগুলির কী অবস্থান, সেই নিয়ে হলফনামা জমা দিতে হবে কেন্দ্রকে।

[আরও পড়ুন: কংগ্রেস ছেড়ে শরদ পাওয়ারের দলে শশী থারুর? এনসিপি নেতার মন্তব্যে বাড়ল জল্পনা]

ইতিমধ্যেই ধর্মান্তকরণ বিরোধী আইন কার্যকর করেছে উত্তরপ্রদেশ (Uttar Pradesh) সরকার। এই আইনের বলে শাস্তিও দেওয়া হয়েছে যোগীরাজ্যে। এবার এই আইন কার্যকর করতে সক্রিয় গুজরাটের (Gujarat) বিজেপি সরকার। সুপ্রিম কোর্টে তারা জানিয়ে দেয়, ধর্মপালনের স্বাধীনতা রয়েছে সকলের। কিন্তু সেই স্বাধীনতার অপব্যবহার করে অন্যদের ধর্মান্তকরণের অনুমতি দেওয়া যায় না। প্রসঙ্গত, ধর্ম পরিবর্তন রুখতে নতুন আইন প্রণয়ন করা হয়েছে মোদির রাজ্যে। সেখানে বলা হয়েছে, ধর্ম বদল করে ভিন ধর্মে বিয়ে করতে হলেও সংশ্লিষ্ট জেলাশাসকের অনুমতি নিতে হবে। তিনি দুই পক্ষের মত আছে কিনা জেনে সেই বিয়ের অনুমতি দেবেন।

কিন্তু গুজরাট সরকারের সেই সিদ্ধান্তে স্থগিতাদেশ দিয়ে দিয়েছে গুজরাট হাই কোর্ট। গুজরাট হাই কোর্টের সেই স্থগিতাদেশেরও বিরোধিতা করেছে সরকার। হাই কোর্টের সেই স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করার জন্য় সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করেছে তারা। সোমবার আইনজীবী অশ্বিনী কুমার উপাধ্যায়ের আবেদনে শুনানির সময়ে কড়া বার্তা দেয় সুপ্রিম কোর্ট। বিচারপতিদের বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, এই বিষয়টি বেশ উদ্বেগজনক। আমাদের সংবিধানের বিরোধী। ভারতে থাকতে গেলে, এই দেশের সংস্কৃতি মেনে চলতে হবে। ধর্ম পরিবর্তনের জন্য কাউকে বাধ্য করা যাবে না। 

[আরও পড়ুন: একসঙ্গে যমজ বোনকে বিয়ে! আইন ভেঙে গ্রেপ্তার মহারাষ্ট্রের যুবক]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে