২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মন্ত্রী থেকে IAS-IPS, সবাইকে দিতে হবে সম্পত্তির হিসেব, দুর্নীতিতে ‘বুলডোজার’ যোগীর

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: April 27, 2022 2:48 pm|    Updated: April 27, 2022 3:29 pm

In UP Families of Ministers, IAS and IPS Officers Will Have to Give Property Details Every Year | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উত্তরপ্রদেশকে (Uttar Pradesh) দুর্নীতিমুক্ত করতে যোগী দাওয়াই। এবার থেকে সে রাজ্যের মন্ত্রী, আইএএস (IAS), আইপিএস (IPS), এমনকী তাঁদের পরিবারের সদস্যদেরও প্রতি বছর সম্পত্তির হিসেব দিতে হবে। জানা গিয়েছে, ক’দিনের মধ্যেই এই নির্দেশিকার বিস্তারিত উত্তরপ্রদেশ সরকারের পোর্টালে আপলোড করা হবে। বিজেপির (BJP) বক্তব্য, দুর্নীতির বিরুদ্ধে এই পদক্ষেপ ঐতিহাসিক। যদিও রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল সমাজবাদী পার্টির (Samajwadi Party) কটাক্ষ, সবটাই লোক দেখানো নাটক।

যোগী আদিত্যনাথের (Yogi Adityanath) মন্ত্রী পরিষদের বক্তব্য, দুর্নীতিমুক্ত স্বচ্ছ প্রশাসনই একমাত্র লক্ষ্য মুখ্যমন্ত্রীর। সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত। এই কারণেই কেবল মন্ত্রীদের উদ্দেশে এই নির্দেশিকা জারি করা হচ্ছে না। সেইসঙ্গে আইএএস, আইপিএস, এমনকী তাঁদের পরিবারের সদস্যদেরও প্রতি বছর স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির হিসেব দিতে হবে। বছর বছর সম্পত্তির পরিমাণ বাড়া-কমার উপরে কড়া নজর রাখা হবে। উল্লেখ্য, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী আরও জানিয়েছেন, সরকারি কাজে পরিবারের হস্তক্ষেপের অভিযোগ এলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশপাশি সাধারণ মানুষের সুবিধা-অসুবিধা জানার জন্য রাজ্যের ১৮টি জোনে নিয়ম করে যেতে হবে মন্ত্রীদের। কে কবে কোথায় যাবেন তার টাইমটেবলও তৈরি করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: ‘স্কুলে স্কুলে বিশেষ টিকাকরণ অভিযান, জোর প্রিকশন ডোজে’, করোনা রুখতে দাওয়াই মোদির]

রাজ্যেকে দুর্নীতিমুক্ত করতে যোগীর এই সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক আখ্যা দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের প্রাক্তন পুলিশ প্রধান ব্রিজলাল, যিনি বর্তমানে গেরুয়া শিবিরের অন্যতম সাংসদও বটে। ব্রিজলাল বলেন, “এই নিয়ম (সরকারকে সম্পত্তির হিসেব দেওয়া) উচ্চপদস্থ আধিকারিকদের জন্য ছিলই। এবার মন্ত্রী ও তাঁর পরিবারের লোকেদের তা মানতে হবে। ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত।”

[আরও পড়ুন: কোল্ড ড্রিঙ্ক কিনতে গিয়ে ধর্ষিত ৫ বছরের মেয়ে, অভিযুক্ত ১২ বছরের কিশোর!]

যদিও গোটা বিষয়টিকে নাটক বলে আখ্যা দিচ্ছে রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল সমাজবাদী পার্টি। অখিলেশ যাদবের দলের মুখপাত্র ফখরুল হাসান বলেন, “স্বচ্ছ প্রশাসনের নামে নাটক চলছে। এর আগে কেন্দ্রীয় সরকারও একইরকম নির্দেশিকা জারি করেছিল। কিন্তু কোনও মন্ত্রী বা আধিকারিক তাঁর সম্পত্তির হিসেব দিয়েছেন কি? এগুলো রাজনৈতিক প্রচার ছাড়া কিছু না।” ফারুখ মনে করিয়ে দেন, “এর আগে বলা হয়েছিল প্রত্যেক সাংসদ একটি করে গ্রামের দায়িত্ব নেবেন, আদৌ কেউ সেই কাজ হয়েছে?”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে