১৩  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ২৯ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কর্ণাটকের প্রতিবাদী যুবতীর পাশে ইসলামিক সংগঠন জমিয়তে! পাঁচ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা

Published by: Kishore Ghosh |    Posted: February 9, 2022 2:55 pm|    Updated: February 9, 2022 9:23 pm

Jamiat announces 5 lakh rupees reward for Muskan who confronted boys chanting ‘Jai Shri Ram’ | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গতকাল কর্ণাটকের (Karnataka) একটি কলেজে একদল উন্মত্ত হিন্দুত্ববাদী যুবকের ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনির পালটা ‘আল্লাহু আকবর’ স্লোগান তুলে খবরে আসেন বোরখা পরা এক শীর্ণকায় মুসলিম তরুণী। নেট মাধ্যমে ভাইরাল হয় ওই তরুণীর সাহসিকতার ভিডিও। এবার এই ঘটনায় তরুণীর পাশে দাঁড়াল জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ (Jamiat Ulama-i-Hind)। ওই তরুণীর জন্য ৫ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করল তারা। টুইট করে এই ঘোষণা করেছে দেশের সবচেয়ে বড় ইসলামিক সংগঠন।

কর্ণাটকের হিজাব বিতর্কের মধ্যেই গতকাল সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয় একটি ভিডিও। যেখানে দেখা যায়, বোরখা পরা এক ছাত্রী একটি স্কুটিতে কলেজ চত্বরে প্রবেশ করছেন। যেখানে আগে থেকেই উপস্থিত ছিল গেরুয়া উত্তরীয় পরা একদল ছাত্র। ছাত্রীটি গাড়ি পার্ক করে ক্লাসের দিকে এগোতেই তাঁকে ঘিরে ধরে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে থাকে হিন্দুত্ববাদী ছাত্ররা। একটা সময় ঘুরে দাঁড়ান ছাত্রী। চোয়াল শক্ত করে পালটা ‘আল্লাহু আকবর’ স্লোগান দিতে দেখা যায় তাঁকে।

[আরও পড়ুন: জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দেওয়া পড়ুয়াদের পালটা, ‘আল্লাহু আকবর’ সুর চড়ালেন মুসলিম ছাত্রী]

আজ জানা গিয়েছে, ওই ঘটনাটি ঘটে মাণ্ড্য প্রি-ইউনিভার্সিটি কলেজে! প্রতিবাদী তরুণীর নাম মুসকান খান। বুধবার টুইট করে মুসকানের জন্য ৫ লক্ষ টাকা পুরস্কার ঘোষণা করেছে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ। জমিয়তে জানিয়েছে, বিবি মুসকান খান সাহসের সঙ্গে নিজের সাংবিধানিক ও ধর্মীয় অধিকারকে প্রতিষ্ঠা দিয়েছে।

হিজাব বিতর্কে উত্তপ্ত কর্ণাটকে আজ থেকে তিন দিন সমস্ত স্কুল ও কলেজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্ণাটক সরকার। কর্ণাটকের মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই (Basavaraj Bommai) মঙ্গলবার বিকেলে টুইট করে এই নির্দেশ দিয়েছেন। টুইটে মুখ্যমন্ত্রী জানান, “আমি সমস্ত ছাত্র, শিক্ষক এবং স্কুল ও কলেজের কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি কর্নাটকের সাধারণ মানুষকে শান্তি ও সম্প্রীতি বজায় রাখার জন্য আবেদন করছি। আগামী তিন দিনের জন্য সমস্ত হাই স্কুল ও কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছি আমি। সংশ্লিষ্ট সকলকে সহযোগিতার জন্য অনুরোধ করছি।”

[আরও পড়ুন: লাভ জিহাদে ১০ বছরের জেল, উত্তরপ্রদেশের ইস্তাহারে মেরুকরণই ভরসা বিজেপির! ঢালাও প্রতিশ্রুতি কংগ্রেস]

এদিকে গতকালের পর আজ ফের হিজাব সংক্রান্ত মামলার শুনানি হয় কর্ণাটক হাই কোর্টে। এদিন মামলাকারীর বক্তব্য শোনার পর বৃহত্তর বেঞ্চে মামলাটির শুনানির সুপারিশ করেন বিচারপতি কৃষ্ণা দীক্ষিত। বিচারপতি বলেন, “হিজাব বিতর্কের গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নগুলির বিশালতা বিবেচনা করে, আদালতের অভিমত যে বিষয়টির জন্য একটি বৃহত্তর বেঞ্চ গঠন করা যেতে পারে। সেই সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য মামলার নথিপত্র প্রধান বিচারপতির হাতে দেওয়া হবে।”

উল্লেখ্য, গতকালকের শুনানিতে জনসাধারণকে শান্তি বজায় রাখার আবেদন জানিয়েছিল আদালত। পাশাপাশি হাই কোর্ট জানিয়েছিল, এই বিষয়ে সংবিধান অনুযায়ী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে