২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পড়ুয়াদের স্বতস্ফূর্ত আন্দোলন, প্রতিবাদ মিছিল। তা রুখতে গিয়ে লাঠিচার্জ পুলিশের। আন্দোলনকারীদের আটক। হস্টেল ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের আন্দোলন ঘিরে দিল্লির রাস্তা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছিল সোমবার। আর মঙ্গলবার তাঁদের বিরুদ্ধেই সরকারি সম্পত্তি নষ্টের অভিযোগে দায়ের হল এফআইআর। আজ সাংবাদিক সম্মেলন করে এর তীব্র বিরোধিতা করলেন ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ। বললেন, পুলিশের ভূমিকা অত্যন্ত নিন্দনীয়।
হস্টেল ফি বেড়েছে প্রায় তিনগুণ। নাগালের বাইরে চলে যাচ্ছে সাধারণ পড়ুয়ার শিক্ষার অধিকার। এই অভিযোগে সরব পড়ুয়ারা সোমবার, সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের শুরুর দিনই সংসদ ভবন পর্যন্ত প্রতিবাদ মিছিলে শামিল হন। ব্যারিকেড ভেঙে এগোতেই পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েন মিছিলে অংশগ্রহণকারীরা। বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়। এমনকী মহিলা পুলিশকর্মীরা ছাত্রীদেরও টেনেহিঁচড়ে ভ্যানে তোলে বলে অভিযোগ। দু’পক্ষের সংঘর্ষে বেশ কয়েকজন জখম হয়েছেন বলে অভিযোগ। পুলিশের এই ভূমিকার সমালোচনায় আজ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন তাঁরা। তাঁদের উপর কী ধরনের অত্যাচার হয়েছে, তা বোঝাতে গিয়ে ছাত্র সংসদের সভানেত্রী ঐশী ঘোষ বলেন, ‘মহিলা পুলিশকর্মীরাও যেভাবে আমাদের গায়ে হাত তুলছিল, তা একেবারেই সমর্থন করা যায় না। প্রথমে আমাদের দিল্লি ক্যানটনমেন্ট থানায় নিয়ে যাওয়া হয়, তারপর সাকেতে। এভাবে আমাদের অনেকটা সময় নষ্ট করা হল। সন্ধের পর ওই জায়গার আলো নিভিয়ে আমাদের সদস্যদের উপর লাঠিচার্জ শুরু হয়।’

[আরও পড়ুন: মা ও বোনকে লাগাতার ধর্ষণের অভিযোগ, মদ্যপকে পিটিয়ে মারল পরিবার]

ঐশী আরও বলেন, ‘রেজিস্ট্রার আমাদের সঙ্গে কথা বলতেই চাননি। আমরা যে দাবিদাওয়াগুলো নিয়ে আলোচনা করতে চেয়েছিলাম, তা শুনতে চাননি। মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক একটি উচ্চপর্যায়ের তদন্ত কমিটি তৈরি করেছে শুনেছি। কিন্তু তাঁরা আমাদের কথা না শুনেই আন্দোলন থেকে পিছিয়ে আসার কথা বলছেন। আমরা তা করব না।’ হস্টেল ফি সম্পূর্ণ প্রত্যাহারের দাবিতে একেবারে অনড় জেএনইউয়ের ছাত্র সংসদ। এদিকে, প্রতিবাদ মিছিলে নেমে, পুলিশের ব্যারিকেড ভাঙার জন্য সরকারি সম্পত্তি নষ্টের অভিযোগ দায়ের হয়েছে সোমবার মিছিলে অংশগ্রহণকারীদের বিরুদ্ধে। যদিও জেএনইউ-র পাশে দাঁড়িয়েছে আরজেডি। টুইটারে তারা জানিয়েছে, শিক্ষায় সকলের সমানাধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে হস্টেল ফি বৃদ্ধির করে। 

[আরও পড়ুন: রাজ্যসভার মার্শালদের পোশাক নিয়ে তুঙ্গে বিতর্ক, পুনর্বিবেচনার নির্দেশ নায়ডুর]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং