BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লাদাখ নিয়ে ফের ভারত-চিন আলোচনা, বেজিংয়ের গলায় ‘সমঝোতার’ সুর

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 20, 2020 9:42 pm|    Updated: August 20, 2020 9:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাদাখে প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা বরাবর সম্পূর্ণভাবে সেনা প্রত্যাহার করার উদ্দেশ্যে যৌথভাবে কাজ করবে ভারত ও চিন। ভবিষ্যতে সীমান্ত সংক্রান্ত অন্য সমস্যাগুলির সমাধানে আলোচনার মাধ্যমে বিশেষ বৈঠকে বসবে দুই দেশ। বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছেন বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব।

[আরও পড়ুন: মুসলিমদের ক্ষতি না করে ভারতে পরমাণু হামলা করব, আজব হুমকি পাকিস্তানের]

এদিন শ্রীবাস্তব বলেন, “দু’দেশের বিদেশমন্ত্রীর মধ্যে হওয়া আলোচনার মাধ্যমে লাদাখ সীমান্তে ফৌজ প্রত্যাহারের দিশায় পদক্ষেপ করবে চিন। তারা জানিয়েছে, দু’পক্ষের মধ্যে সীমান্ত সংক্রান্ত বিবাদের সমাধানে নির্ধারিত প্রটোকল ও চুক্তি মেনেই কাজ করা হবে। সীমান্তে উত্তেজনা প্রশমনের লক্ষ্যে দুই দেশই কাজ করছে। দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে সীমান্তে শান্তি ও নিরাপত্তা অত্যন্ত জরুরি।”

গত জুন মাসে গালওয়ান উপত্যকায় রক্তাক্ত সংঘর্ষের পর এদিন ভারত ও চিনের মধ্যে সীমান্ত বিবাদ সমাধানে তৈরি ‘Working Mechanism for Consultation & Coordination on India-China Border Affairs’ বা WMCC কমিটির চতুর্থ বৈঠক ছিল। এদিনের বৈঠকে সীমান্তে সংঘাত এড়াতে কূটনৈতিক ও সামরিক স্তরে আলোচনার পক্ষে মত দিয়েছে। এর আগে দু’দেশের মধ্যে পাঁচ দফা কোর কমান্ডার স্তরের বৈঠকও হয়। তবে বিদেশমন্ত্রকের এক আমলার জানিয়েছেন, জুলাইয়ের ১৪ তারিখ চতুর্থ কোর কমান্ডের স্তরের বৈঠকের পর থেকেই দেপসাং, হট স্প্রিং, গোগোরা ও প্যাংগং লেকের উত্তর ও দক্ষিণ পাড় থেকে ফৌজ সরায়নি চিন।

বিশ্লেষকদের মতে সমস্ত দিক বিচার করলে দেখা যায়, চিনের বিদেশমন্ত্রক যে সেনা অপসারণ সম্পূর্ণ শেষ করা হয়েছে বলে বার বার দাবি করছে তা পুরোপুরি ভিত্তিহীন এবং বাস্তবে তার সঙ্গে মিল নেই। কারণ চিন মনে করছে তারা প্যাংগংয়ে, দেপসাংয়ে এখনও যতটা ঢুকে বসে রয়েছে সেটাই প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা। কিন্তু চিনের আঁকা সীমান্তরেখা আসলে ভারতের ভূখণ্ডের অনেকটা ভিতরে। এই বাস্তবটাই মানতে চাইছে না পিপলস লিবারেশন আর্মি। ওই এলাকা থেকে সেনা সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার ব্যাপারে এখনও অনমনীয় চিন।মে মাসে ভারতের দিকে এলাকা দখল করে কেন এতটা এগিয়ে এসেছিল পিএলএ? এবং কেনই বা তারা আগের পুরনো অবস্থানে ফিরতে রাজি নয়? সেনা বৈঠকে ভারতের পক্ষ থেকে এই প্রশ্ন তোলা হলে কোনও সদুত্তর দিতে রাজি নয় চিনের সেনা জেনারেলরা। তাই কূটনৈতিক আলোচনায় সমাধান না হওয়ায় সংঘাতের সম্ভাবনা থেকেই যাচ্ছে।

[আরও পড়ুন: বিজেপির সঙ্গে আঁতাঁত বিতর্কে এবার Facebook কর্তৃপক্ষকে জরুরি তলব সংসদীয় কমিটির]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement