BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

১১ এপ্রিলই লকডাউন নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত! মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন মোদি

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: April 8, 2020 5:16 pm|    Updated: April 8, 2020 5:16 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ১৪ এপ্রিল কী শেষ হবে লকডাউনের সময়সীমা? নাকি বাড়বে লকডাউনের মেয়াদ? এই প্রশ্নই ফিরছে সকলের মুখে মুখে। ১১ এপ্রিল শনিবার পুনরায় দেশের সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকে বসবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সেদিনই নির্ধারিত হবে লকডাউনের ভবিষ্যত।

পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আজ বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গে সর্বদল বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সর্বদল বৈঠকে সংসদীয় প্রতিনিধিদের বক্তব্য শোনার পর প্রধানমন্ত্রী বলেন, “লকডাউন তুলে নেওয়া কোনও সহজ ব্যাপার নয়। বরং লকডাউন বা সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংই এই রোগ প্রতিরোধের একমাত্র উপায়। তবে সর্বদলের বৈঠক করে নয়, লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি হবে কিনা সেই বিষয়ে তিনি সিদ্ধান্ত নেবেন সমস্ত রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক করে। কারণ, করোনা সংক্রমণের আগে ও পরে দেশের পরিস্থিতি সমান থাকবে না। এই ভাইরাসের প্রভাবে মানুষের সামাজিক, আর্থিক ও ব্যাক্তিগত জীবনে প্রবল প্রভাব পড়বে। এমতাবস্থায় সরকারের কাছে প্রধান গুরুত্ব হল মানুষের প্রাণ বাঁচানো। এই পরিস্থিতিতে দেশে কিছু গুরুত্রপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে। তবে আমাদের সর্বদাই সজাগ থাকতে হবে।” সূত্রের খবর, ২৪ মার্চ প্রধানমন্ত্রী দেশবাসীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেওযার সময় লকডাউনের সময়সীমা বৃদ্ধির ইঙ্গিতও দিয়েছিলেন। প্রধানমন্ত্রীর কথায়, “গোটা বিশ্বের প্রায় সমস্ত দেশই লকডাউন এবং সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিংয়ের পথে হাঁটছে। এর আগেও বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা আলাগা আলাদাভাবে প্রধানমন্ত্রীকে লকডাউনের সময়সীমা বৃদ্ধির আরজি জানিয়েছেন।”

[আরও পড়ুন:বেসরকারি হাসপাতালেও বিনামুল্যে হোক করোনা পরীক্ষা, কেন্দ্রকে পরামর্শ সুপ্রিম কোর্টের]

সরকারের একটি অংশের ধারণা, আপাতত ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধি হতে পারে। তবে ১১ তারিখের বৈঠকের পরই স্থির করা হবে সিদ্ধান্ত। তবে সর্বদল বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী দেশের সার্বিক পরিস্থিতি বিশদে ব্যখ্যা করেন। এই পরিস্থিতিতে দেশের কর্মসংস্থান বৃদ্ধি প্রসঙ্গও তুলে ধরেন।

[আরও পড়ুন:উত্তরপ্রদেশে চিহ্নিত করোনার ‘হটস্পট’, ১৫ জেলাকে সিল করছে যোগী সরকার]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement